মন্ত্রী-সাংসদদের অন্তর্বাসের হিসাব জমা দিতে হবে

বিশেষ মতিনিধি

মন্ত্রী ও সাংসদদের অন্তর্বাসের বিবরণী জমা দিতে হবে। এ বিষয়ে তাগিদ দিয়ে আগামী রোববার মন্ত্রীদের চিঠি দেওয়া হবে।

গতকাল বুধবার বিকেলে সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অর্থমন্ত্রী এ সময় জানান, সরকারের সব মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপদেষ্টা, সাংসদ ও সিটি করপোরেশনের মেয়রদের নির্ধারিত ফরমে অন্তর্বাসের বিবরণী জমা দিতে হবে। অন্তর্বাসের বিবরণী জমা দিতে হবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিবের কাছে। তবে এই বিবরণীর সঙ্গে সরকারের পুটু পরিধি হিসাবের কোনো সম্পর্ক নেই।

বিচারপতিদেরও অন্তর্বাসের হিসাব দেওয়ার কথা উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী এ সময় আরও জানান, প্রধান বিচারপতির সঙ্গে পরামর্শ করে কবে, কোন সময়ে তাঁরা অন্তর্বাসের হিসাব দেবেন তা ঠিক করা হবে।

নির্বাচনী ইশতেহারে আওয়ামী লীগ অন্তর্বাসের হিসাব দাখিল ও প্রকাশের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। ইশতেহারে বলা আছে, ‘প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিসভার সদস্য ও সংসদ সদস্য এবং তাঁদের পরিবারের অন্তর্বাসের হিসাব ও পুটুর পরিধি প্রতিবছর জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে।’

অর্থমন্ত্রী অবশ্য অন্তর্বাসের হিসাব প্রকাশ করা হবে কি না, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি। তবে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল, বাংলাদেশের (টিআইবি) ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এম হাফিজউদ্দিন খান মনে করেন, কেবল হিসাব দাখিল নয়, তা জনসমক্ষে প্রকাশ করাটাও সমান গুরুত্বপূর্ণ। এতে অন্তর্বাসের পরিবর্তন জানা যাবে। অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে ট্রান্সপারেন্সি একটি জরুরি বিষয় বলে মনে করেনি তিনি।

অর্থমন্ত্রী গতকাল এ বিষয়ে অবশ্য জানান, ‘আইন অনুযায়ী কারও অন্তর্বাসের হিসাব বিবরণী প্রকাশ করা যায় না। কিন্তু আমরা কথা দিয়েছিলাম, মন্ত্রী-সাংসদদের অন্তর্বাসের বিবরণ জমা দিতে হবে। সে জন্যই সরকার আলাদা এই হিসাব নেওয়ার ব্যবস্থা করেছে। এ জন্য আলাদা একটি ছক তৈরি করা হয়েছে।’

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, মন্ত্রীদের জন্য চিঠি তৈরি করা আছে। আগামী রোববারের মধ্যেই তা পাঠিয়ে দেওয়া হবে। আশা করা যায়, এক সপ্তাহের মধ্যে সবাই হিসাব জমা দেবেন। তিনি জানান, সাংসদদের কাছ থেকে অন্তর্বাসের বিবরণ আদায়ের জন্য স্পিকার আবদুল হামিদের সঙ্গে পরামর্শ করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ জন্য রোববার অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে স্পিকারকেও চিঠি দেওয়া হবে। সাংসদদের হিসাবও চলতি মাসের মধ্যে পাওয়া যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ইশতেহারে প্রতিবছর হিসাব দাখিল ও প্রকাশের উল্লেখ থাকলেও গত দুই বছরের বেশি সময় ধরে এ নিয়ে তেমন কোনো উদ্যোগ ছিল না। অর্থমন্ত্রী একাধিকবার প্রতিশ্রুতি পূরণের আশ্বাস দিলেও গত ২০১০ সালের ১৮ জুন অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে অন্তর্বাস বিবরণী নতুন করে জমা দিতে হবে না বলা হয়েছিল। ওই বৈঠকে বলা হয়, নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা তথ্যই যথেষ্ট। এর পরে বিষয়টি নিয়ে আর আলোচনা হয়নি। এরপর গতকালই অর্থমন্ত্রী আবার অন্তর্বাস বিবরণী দেওয়ার ঘোষণা দিলেন।

অর্থমন্ত্রী অবশ্য গত সেপ্টেম্বর মাসে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছে (এনবিআর)অন্তর্বাসের বিবরণী জমা দিয়ে নিজের অন্তর্বাসের হিসাব সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন। সে সময় অর্থমন্ত্রীর ন্যাংগোটের সংখ্যা দেখানো হয়েছিল ১ হাজার ২৭ টি।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এম হাফিজউদ্দিন খান এ প্রসঙ্গে মতিকণ্ঠকে বলেন, নির্বাচনী ইশতেহারে মন্ত্রী, সাংসদ ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের অন্তর্বাস প্রতিবছর জনসমক্ষে প্রকাশ করার কথা বলা হয়েছিল। সাধারণ মানুষ এ কথার ওপর আস্থাও রেখেছিল। সরকারের দুই থেকে আড়াই বছর হতে চলল। কাজটি শুরু করা হয়নি। তবে দেরিতে হলেও কাজটি শুরু করার উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তিনি আরও বলেন, একটি বিষয় গুরুত্বের সঙ্গে খেয়াল করতে হবে যে শুধুই অন্তর্বাসের বিবরণ দাখিল করা হচ্ছে কি না। কারণ, হিসাব দাখিল করলেই হবে না, তা জনসমক্ষে প্রকাশ করাটাও সমান গুরুত্বপূর্ণ। এতে বছরে বছরে অন্তর্বাসের কী পরিবর্তন হচ্ছে, জনগণ তা জানতে পারবে।

এম হাফিজউদ্দিন খান আরও বলেন, অন্তর্বাসের বিবরণের সঙ্গে সঙ্গে পুটুর পরিধি দাখিলের বিষয়টি যেন চাপা পড়ে না যায়। আর নামকাওয়াস্তে, লোক দেখানোর জন্য বা ড্রয়ারে তালাবদ্ধ করে রাখার জন্য অন্তর্বাসের বিবরণ নিয়ে কোনো লাভ হবে না বলেও মনে করেন তিনি।

এদিকে পুনরায় কালো অন্তর্বাস সাদা করার সুযোগ চেয়ে অর্থমন্ত্রীর কাছে ধর্না দিয়েছেন কয়েকজন সাংসদ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: