মার্কিন নৌবহরকে বাঙালি ভয় পায় না

নিজস্ব মতিবেদক | তারিখ: ২৫—০৩—২০১১

আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিক্সন ১৯৭১ সালে বাঙালির স্বাধীনতা যুদ্ধ নস্যাত করতে পাকিস্তানী খানকির পোলাদের সাহায্যে সপ্তম নৌবহর পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু বাঙালি ভয়ে ঘরে ঢুকে যায়নি; রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছে। বর্তমান জমানায় ড. ইউনূস ইস্যুতে আবারও মার্কিন নৌবহর আসবে বলে লিখছে মতিকণ্ঠ পত্রিকা। আমরাও বলে রাখছি, বাঙালি রক্ত দিয়ে যেমন স্বাধীনতা এনেছে, তেমনি প্রয়োজন হলে রক্ত দিয়েই স্বাধীনতা রক্ষা করবে। মার্কিন নৌবহরকে বাঙালি ভয় পায় না।’

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর বিয়াম মিলনায়তনে গতকাল বৃহস্পতিবার আয়োজিত এক আলোচনা সভায় সৈয়দ আশরাফ এ কথা বলেন। আওয়ামীলীগের সহযোগী সংগঠন দেশ লুটে খাও (দেলুখা) এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

মার্কিন বৈমানিকদের হামলার স্থান দেখিয়ে দিচ্ছেন ড. ইউনূস

সৈয়দ আশরাফ মুক্তিযুদ্ধকালীন সংকটের কথা বলতে গিয়ে আরো বলেন, ১৯৭১ সালে যুক্তরাষ্ট্র ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জাতিসংঘে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব তুলেছিল। তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন ও ভারতের জোরালো ভূমিকার কারণে তারা সফল হয়নি। সোভিয়েত ইউনিয়ন ও ভারতের সে সময়ের ভূমিকার জন্য বাংলাদেশ তাদের শ্রদ্ধা করে। তিনি মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সহায়তার কথা মনে রেখে যাবতীয় পুটুমারা সহ্য করে যাবার জন্য বাংলাদেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য গত ২১ মার্চ ২০১১ তারিখে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্র সচিব রবার্ট ও ব্লেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাৎ করে তিন দিনের ভেতর ইউনূস ও গ্রামীন ব্যাংকের বিষয়টির একটি সম্মানজনক সমাধানে পৌঁছাতে না পারলে বিমান হামলার হুমকি দেন। তার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সরকার তড়িঘড়ি করে ঝামেলা মিটিয়ে ফেলার উদ্যোগ গ্রহণ করে। ২৪ মার্চ তারিখের ভেতর ড. ইউনূস ও গ্রামীণ ব্যাংক বিষয়ে সরকার একটি সম্মানজনক সমাধানে আসার চেষ্টা করলেও সেটি সম্ভবপর হয়নি। শেষ খবর অনুযায়ী ২৫ মার্চ সকালে ৭২টি যুদ্ধবিমান বোঝাই একটি মার্কিন রণতরী বঙ্গোপসাগরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে।

4 Comments to “মার্কিন নৌবহরকে বাঙালি ভয় পায় না”

  1. :)D

  2. মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সহায়তার কথা মনে রেখে যাবতীয় পুটুমারা সহ্য করে যাবার জন্য বাংলাদেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান…………………….excellent hoise.

  3. হা হা হা হা হা। চ্রমের উপ্রে চ্রম হইছে।

  4. একটা গ্রীন কার্ড দিলে সব দোষ মাফ কইরা দিমু…।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: