Archive for April 16th, 2011

April 16, 2011

নিজামী-মুজাহিদের জীবনহানির আশঙ্কা করছে জামায়াত

নিজস্ব মতিবেদক | তারিখ: ১৬-০৪-২০১১

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির খানকির ছেলে মতিউর রহমান নিজামী ও সেক্রেটারি জেনারেল খানকির ছেলে আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের জীবনহানির আশঙ্কা করছে দলটি। আজ শনিবার দুপুরে দলের বড় মগবাজার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল খানকির পোলা এ টি এম আজহারুল ইসলাম এ আশঙ্কার কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে খানকির পোলা আজহারুল ইসলাম বলেন, ৫ এপ্রিল এক আদেশে নিজামী ও মুজাহিদকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রেখে পুটু মারার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু  এক সপ্তাহের ব্যবধানে সরকার তাঁদেরকে ধানমন্ডির একটি বাড়িতে নিয়ে পুটু মারার আয়োজন করে। সরকার স্রেফ পুটু মারার কথা বললেও আসলে মনে হচ্ছে তারা সিদ্ধ ডিম ও ঢোকাবে। এ দুই নেতাকে ধানমন্ডির একটি বাড়িতে নিয়ে পুটু মারার খবরে তাঁদের পরিবার সদস্যরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।

খানকির পোলা আজহারুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ‘সরকার জনগণকে ধোঁকা দেওয়ার জন্য পুটু মারার কথা বললেও জামায়াত নেতাদের পুটুতে সিদ্ধ ডিম ঢোকানোই তাদের আসল উদ্দেশ্য। এ ছাড়া বাড়িটি নিউমার্কেট এলাকার সন্নিকটে অবস্থিত হওয়ায় ডিমের চালান দ্রুততম সময়ে পৌঁছানো সম্ভব। এ অবস্থায় আমরা দুই নেতার নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমরা তাঁদের জীবনহানির আশঙ্কা করছি।’

খানকির পোলা এ টি এম আজহার আবারও দাবি করেন, দেশে কোনো যুদ্ধাপরাধী নেই। একাত্তরে জামায়াতের কেউ যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। যুদ্ধাপরাধী হিসাবে অভিযুক্ত জামায়াতের শীর্ষ নেতারা মুক্তিযুদ্ধের সময় ইয়াহিয়া খানের নুনু চোষার কাজে ব্যস্ত ছিলেন। ভারতকে খুশি করার জন্য সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের উদ্যোগ নিয়েছে।

নিজামী ও মুজাহিদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে দলটি ১৮ এপ্রিল সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। কর্মসূচীর পর জামায়াতের নেতাকর্মীরা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একযোগে উলঙ্গ হয়ে পুটু প্রদর্শন করে প্রতিবাদ জানাবেন বলে জানা গেছে।

April 16, 2011

কুমিল্লায় জাগ্রত মুসলিম জনতার পাঁচ সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব মতিবেদক, কুমিল্লা | তারিখ: ১৬-০৪-২০১১

কুমিল্লায় প্রচারপত্র ও পোস্টারসহ জাগ্রত মুসলিম জনতার পাঁচ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার শহরের নজরুল এভিনিউয়ের ট্রমা সেন্টার ও গোমতী হাসপাতালের সামনে থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ছোটঝিল গ্রামের আবদুর রহিম, দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের মোহাম্মদ মামুন, দেবীদ্বার উপজেলার ধানী গ্রামের মোহাম্মদ কায়সার, আশুরা গ্রামের মোহাম্মদ শামীম এবং বুড়িচং উপজেলার পুণ্যমতী গ্রামের জসীম উদ্দিন।
কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিউদ্দিন মাহমুদ বলেন, তাঁদের কাছ থেকে সংগঠনের শতাধিক পোস্টার উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের একজন বলেন, আমরা ষড়যন্ত্রের শিকার। কারণ আমরা অতি নিরীহ একটি সংগঠন। নাম থেকেই বোঝা সম্ভব যে, এই সংগঠনের মুসলিম ভাইয়েরা কখনো ঘুমায় না। আসলে দুশ্চিন্তায় আমাদের ঘুম আসে না। পরকালে একজন পুরুষের পক্ষে বাহাত্তরটি কুমারীকে কীভাবে তৃপ্তিদান করা সম্ভব, সেই চিন্তায় আমরা ইহকাল ব্যয় করছি জাগ্রত অবস্থায়। আর তাই ঘুম বাদ দিয়ে দিন-রাত আমাদের একমাত্র কাজ – ইন্টারনেটে ঘুরে ঘুরে নেংটু ছবি আর দুষ্টু ভিডিও দেখে এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা লাভ করা।

April 16, 2011

উপাচার্যকে চার ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে ছাত্রলীগের একাংশ

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় মতিবেদক | তারিখ: ১৬-০৪-২০১১

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের এক নেতার বিচারের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার উপাচার্যকে চার ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাতটার দিকে উপাচার্যের বাসভবনের প্রধান ফটকে অবস্থান নেন ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা। তাঁরা যৌন হয়রানির অভিযোগে ছাত্রলীগের অপর একটি অংশের নেতা শামসুজ্জামান চৌধুরীর বিচারের দাবিতে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করেন। এ পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপাচার্যের বাসভবনে বৈঠকে বসেন। পরে বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পক্ষে আগামী রোববার থেকে এক সপ্তাহের মধ্যে ওই নেতার বিচারের আশ্বাস দেওয়া হয়। এই আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। উপাচার্য মো. সালেহ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ছাত্রলীগের এক নেতা জানান, উপাচার্য এবারে ছাত্রলীগের একাংশের দাপট দেখলেন। ভবিষ্যতে তিনি যাতে বাকি অংশের দাপটও সশরীরে অনুভব করতে পারেন, সেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

April 16, 2011

কথা রাখলেন পুনম পাণ্ডে

মনলাইন ডেস্ক | তারিখ: ১৪-০৪-২০১১

ভারত বিশ্বকাপ জিতলে ক্রিকেটারদের আরও উজ্জীবিত করতে বিবস্ত্র হবেন—এমন ঘোষণা আগেই দিয়ে রেখেছিলেন। ভারত বিশ্বকাপ জিতেছে অনেক দিন হলো। এখনো কেন কথা রাখছেন না পুনম পাণ্ডে? তাহলে কি শুধু সস্তা জনপ্রিয়তা পাওয়ার লোভেই ‘বোমা’ ফাটানোর মতো খবরটা শুনিয়েছিলেন এ ভারতীয় মডেল? তবে পুনমের বিরুদ্ধে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ আনলে ভুল হবে। পুনম তাঁর কথা রেখেছেন। তবে ক্রিকেটারদের সামনে নয়, গণমাধ্যমের কর্মীদের সামনে!
সম্প্রতি বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমারের উপস্থাপনায় একটি রিয়েলিটি শোতে অংশ নেন পুনম। সেখানে তাঁকে পরিচয় করে দেওয়ার পরই উপস্থিত সাংবাদিকদের রোষানলে পড়েন পুনম। বিশ্বকাপে জয়ের এত দিন পরও কেন নিজের কথা রাখছেন না—প্রশ্ন করার পরই অবিশ্বাস্য কাণ্ডটি করে বসেন পুনম। এক টানে খুলে ফেলেন গায়ের জ্যাকেট! তখনই শুরু হয়ে গেছে ফটোগ্রাফারদের উন্মাতাল ক্যামেরা ক্লিকিং! গণমাধ্যমের কর্মীরা তো বটেই, মুহূর্তটা উপভোগ করেছেন পুনম নিজেও!

পুনম পাণ্ডের এক জবান

তবে তা সরাসরি উপভোগ করতে পারেননি আমিনী। এবারে তিনি নিজের পুটু প্রদর্শনের প্রতিশ্রুতি রাখবেন কীনা, মতিকণ্ঠের পক্ষ থেকে তাঁর কাছে তা জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, এক ঘন্টায় বাংলাদেশ অচল করে দিতে না পারলে তিনি এক বারেই বিবস্ত্র হয়ে দীর্ঘ সময় ধরে পুটু দেখাবেন।

মুসলমান না হয়েও পুনম পাণ্ডে এক জবানের মেয়ে হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন বলে আমিনী তাঁর মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন। তিনি আরো বলেন, এই সংবাদ পাওয়া মাত্র তিনি ফেসবুকে পুনমকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছেন। কারণ পুনমের ফেস ও বুক তাঁর ভীষণ পছন্দ।

%d bloggers like this: