Archive for May, 2011

May 31, 2011

অবসরই নিয়ে ফেললেন আফ্রিদি

মনলাইন ডেস্ক | তারিখ: ৩১-০৫-২০১১

গত বছর টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন পাকিস্তানি অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। এবার পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের ওপর অভিমান করে একদিনের ক্রিকেটকেও বিদায় বলে দিলেন এ সাবেক অধিনায়ক। হঠাৎ কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই তাঁর কাছ থেকে ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব কেড়ে নেওয়ার পর এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। ‘যে বোর্ড সিনিয়র ক্রিকেটারদের পুটু মারে, তাদের সঙ্গে এক বিছানায় শোয়া যায় না’ বলে মন্তব্য করেছেন আফ্রিদি।

গত বছর স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারি, দলের বাজে পারফরম্যান্স ইত্যাদি অতিক্রম করে পাকিস্তানের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব নিয়েছিলেন আফ্রিদি। এরপর এ বছর বিশ্বকাপ শুরুর আগে আগে অধিনায়ক নির্বাচনে আবার দীর্ঘসময় ধরে দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভোগার পর শেষ পর্যন্ত আফ্রিদির হাতেই নেতৃত্বের ভার তুলে দেয় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। অধিনায়ক হিসেবে একেবারেই খারাপ পারফরম্যান্স দেখাননি আফ্রিদি। দলকে নিয়ে গিয়েছিলেন বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল পর্যন্ত। এত কিছুর পরও অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়াটা একেবারেই মানতে পারছেন না বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি।

সেক্সি শহীদ আফ্রিদি

আফ্রিদির অবসর গ্রহণের খবরে বাংলাদেশের দৈনিক পত্রিকাগুলোর ক্রীড়া বিভাগের দায়িত্বে থাকা সাংবাদিক ও দেশের আপামর পাকিস্তানি সমর্থকদের ভেতর কান্নার রোল পড়ে গেছে। তাদের আহাজারিতে সারা দেশের আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত। আফ্রিদির জন্য শোকে পাখি গান গাইতে ভুলে গেছে, গাছ ফুল ফোটানো বন্ধ রেখেছে,  রাখালেরা গরু গোয়ালে ভরতে ভুলে গেছে, খালেদা জিয়া আর ফালুকে চুমু খাচ্ছেন না।

পাকিস্তানি সমর্থকেরা কান্নাজড়িত কণ্ঠে মতিকণ্ঠকে বলেন, ‘আফ্রিদি আর নেই। তার পুরুষালি বডি আর দেখা হবে না।” আফ্রিদির ফর্সা পুরুষালি বডির জায়গায় বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের কালো, খাটো, অপুষ্ট বডি দেখতে হবে ভেবে তারা শোকে মুহ্যমান।

অভিমান ভাঙিয়ে আফ্রিদিকে দলে ফিরিয়ে আনতে পাকিস্তানি সমর্থকেরা দ্বিতীয় আলোর ক্রীড়া সাংবাদিক উটপোঁদ শুভ্রের নেতৃত্বে আগামী শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মুখে এক জনসমাবেশের  ডাক দিয়েছেন। সমাবেশ শেষে প্রেসক্লাব থেকে লংমার্চ শুরু হয়ে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড সদর দপ্তরের সামনে গিয়ে শেষ হবে।

লংমার্চ শেষে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান ইজাজ বাটের বাট হোলে আফ্রিদির ব্যবহৃত ক্রিকেট ব্যাটের হাতল ঢোকানো হতে পারে বলে জানা গেছে।

May 31, 2011

র‍্যাব নিয়ে মার্কিন প্রতিবেদন সত্য নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউইয়র্ক মতিনিধি | তারিখ: ৩১-০৫-২০১১

বাংলাদেশের মানবাধিকার ও র‍্যাব নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের (স্টেট ডিপার্টমেন্ট) প্রকাশিত প্রতিবেদন সত্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন। তিনি দাবি করেন ড. ইউনূসকে পুটু মারার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন আওয়ামীলীগ সরকারের ওপর মনঃক্ষুণ্ন ছিলেন। তাই স্টেট ডিপার্টমেন্ট বিদেশিদের কাছে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার লক্ষ্যে ইচ্ছাকৃতভাবে একপেশে রিপোর্ট পেশ করেছে।

তিনি বলেন, বিএসএফের হাতে নিহত ফেলানি বাংলাদেশি নয়, ভারতীয়। তারপরও সরকার পরিবারটির জন্য অনেক কিছু করেছে। আমি নিজে তাদের বাড়িতে গিয়েছি।

উপস্থিত মতিবেদক পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন, ফেলানি ভারতীয় নাগরিক হলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে তিনি কীভাবে ফেলানিদের বাড়িতে গেলেন? বাংলাদেশ সরকার ভারতীয় নাগরিকের জন্য কিছু করার অধিকার রাখে কি?

মতিবেদকের প্রশ্নের জবাবে অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন বিড়বিড় করে বলেন, “চুদানির ফুয়া!”

আওয়ামীলীগে যুদ্ধাপরাধী আছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সেটা আমাদের জানা নেই। তবে তদন্তে প্রমাণিত হলে সে যে দলেরই হোক, ছাড় দেওয়া হবে না। তবে আগে তদন্তে প্রমাণিত হতে হবে।’

শেখ হাসিনার মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের দাদাশ্বশুর ফরিদপুর সদর উপজেলার কৈজুরী ইউনিয়ন পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রয়াত খন্দকার নূরুল হোসেন নূরু মিয়া (ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের পিতা) ফরিদপুরে রাজাকারদের তালিকার ১৪ নম্বর রাজাকার হলেও তিনি যুদ্ধাপরাধী ছিলেন না বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, নূরু মিয়া শান্তি কমিটির সদস্য থাকলেও যুদ্ধের সময় তিনি কোনো অপরাধমূলক কাজকর্ম করেননি।

মহিউদ্দীন দেওয়ানের সভাপতিত্বে যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগ ওই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, র‍্যাব গঠন করেছিল বিএনপি। এ পর্যন্ত র‍্যাবের হাতে মারা গেছে ৬৩৭ জন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের সময় মারা গেছে মাত্র ৯১ জন। তিনি বলেন, ‘র‍্যাবকে নিরপেক্ষতা বজায় রাখার লক্ষ্যে আওয়ামীলীগ শাসনামলে আরো  ২২৭.৫ জন মানুষকে বিচার বহির্ভূতভাবে হত্যা করতে হবে।

কিছুদিন আগে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে রাজধানীর ফার্মগেটে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মালিকানাধীন ইম্পেরিয়াল হোটেল থেকে ৩৯ জন পতিতা-খদ্দের (২০ জন পুরুষ ও ১৯ জন নারী) আটক করে। আটককৃত পতিতা-খদ্দেরদের ভেতর পুরুষের সংখ্যা একজন বেশি কেন জানতে চাইলে তিনি উদাসীন হয়ে বলেন, মনে হয় একটি রুমে থ্রিসাম চলছিল।

May 29, 2011

ইলেকট্রনিক ভোটিং বিএনপি মানবে না : মওদুদ

নিজস্ব মতিবেদক

ইলেকট্রনিক ভোটিং পদ্ধতির মাধ্যমে নির্বাচন করতে চাইলে তা প্রতিহত করা হবে বলে সরকারকে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যরিষ্টার মওদুদ আহমদ। তিনি বলেন, এ ধরনের নির্বাচন বিএনপি মেনে নেবে না। এ পদ্ধতির মাধ্যমে কাগজের ব্যালটের মত অবাধ, সুষ্ঠু, ও নিরপেক্ষভাবে কারচুপি করা সম্ভব নয় দাবি করে তিনি ওই পরিকল্পনা থেকে সরকারকে ফিরে আসার আহ্বান জানান। ইলেকট্রনিক ভোটিং পদ্ধতির মাধ্যমে এমন কী মঙ্গল গ্রহ থেকেও কারচুপি করা সম্ভব দাবি করেন তিনি।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এসব কথা বলেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩০তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম’ এ আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শামা ওবায়েদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল-নোমান, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু প্রমুখ।

সরকারের কঠোর সমালোচনা করে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, প্রায় বিশ বছর আগে বিএনপি যখন ক্ষমতায় তখন ইহুদি-নাছাড়ারা বিনামূল্যে সাবমেরিন কেবল সংযোগ দিয়ে দেশের তথ্য বিদেশে চুরি করতে চেয়েছিল। আমাদের মাননীয় অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশবাসী এই অপচেষ্টা সাফল্যের সাথে প্রতিহত করেছিল। সারা পৃথিবী ফাইবার অপটিক নেটওয়ার্কে যোগ দেওয়া শেষ হবার প্রায় দশ-পনের বছর পর আমরা সবদিক বিবেচনা করে দেশের তথ্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করে তবেই যোগ দিয়েছি। একই ভাবে এ মুহুর্তে সারা পৃথিবীতে ইলেকট্রনিক ভোটিং ব্যবস্থা চালুর কাজ চলছে। এ অবস্থায় আমরা আগে ভাগে যাচাইবাছাই না করে এ ধরনের পদ্ধতি গ্রহণ করে দেশকে ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিতে পারি না।

তিনি আওয়ামীলীগ শাসিত সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আওয়ামীলীগ একটি চুদানির ফুয়া! পৃথিবীর যে দেশে আওয়ামীলীগ আছে সে দেশের ভাগ্য জ্বলে পুড়ে ছারখার হয়ে গেছে।’

শেখ হাসিনার ছেলে ও সফটওয়্যার বিশেষজ্ঞ সজীব ওয়াজেদ জয়কে উদ্দেশ্য করে মওদুদ বলেন, ‘ইলেকট্রনিক ভোটিং পদ্ধতির মাধ্যমে নির্বাচন হলে ওয়াশিংটনে বসেই তিনি ফল পাল্টে দেবেন।’

মতিবেদক মওদুদকে প্রশ্ন করেন, ‘ওয়াশিংটনে বসে নির্বাচন কমিশনের সার্ভার হ্যাক করে নির্বাচনের ফলাফল পাল্টে দেয়ার মত হ্যাকিং বিদ্যা সজীব ওয়াজেদ জয়ের পেটে আছে কি?’ পাল্টা প্রশ্নে মওদুদ মতিবেদককে জিজ্ঞেস করেন, ‘হ্যাকিং কী?’

May 29, 2011

বিদেশে “বিরল অর্জন” দেশে বিরাট সংবর্ধনা!

নিজস্ব মতিবেদক | তারিখ: ২৮-০৫-২০১১

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে ১৪ দিনের সফর শেষে কাল রোববার বিকেলে দেশে ফিরেছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তাঁকে ঢাকা বিমানবন্দরে বড় ধরনের সংবর্ধনা দেবে বিএনপি। দলীয় সূত্র জানায়, খালেদা জিয়া এ সফরে দেশের জন্য বিরল সম্মান বয়ে এনেছেন তাই তার বিরল অর্জনকে উদযাপন করতে বিশাল সংবর্ধনার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এই আয়োজনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিএনপির ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক কমিটিকে।

কমিটির সদস্য-সচিব আবদুস সালাম মতিকণ্ঠকে বলেন, ‘খালেদা জিয়ার যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সফর সম্পূর্ণ সফল হয়েছে। বিমানবন্দরে তাঁকে সংবর্ধনা দিতে বড় ধরনের শোডাউনের প্রস্তুতি চলছে।’

এই সম্পূর্ণ সফলের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মতিবেদককে বলেন, ‘আমরা গরীব দেশের নেতা হতে পারি, বিরোধী দলে থাকতে পারি, কিন্তু আমাদের নেত্রী দেখতে সুন্দর! সুন্দরের জয় সর্বত্র। তাই আমাদের নেত্রী যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে গিয়ে সফল হয়েছেন।’ শেখ হাসিনার সাথে খালেদা জিয়ার দৈহিক সৌন্দর্যের তুলনা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার মুখমণ্ডল দেখতে দেশি মুরগীর শুকনা পুটুর মত। আর আমার নেত্রীর মুখ বেহেশতে হুরের মত।’

যুক্তরাষ্ট্র সফরে ব্যাপক চেষ্টা তদবির করার পরও ক্যামেরন ও হিলারির সাক্ষাৎ পাননি খালেদা জিয়া। এ নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক হতাশা বিরাজ করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির কেন্দ্রীয় ও মধ্যম সারির কয়েকজন নেতা মতিকণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে এই ‘ব্যর্থতার’ জন্য হিলারি ক্লিনটনের বন্ধু ড. ইউনূসের প্রতি আওয়ামীলীগের আচরণকে দায়ি করেছেন। তারা বলেন, আওয়ামীলীগ একটি চুদানির ফুয়া! পৃথিবীর যে দেশে আওয়ামীলীগ আছে, সে দেশের ভাগ্য জ্বলে পুড়ে ছারখার হয়ে গেছে।

খালেদা জিয়ার এই ব্যর্থতার সুযোগে সরকারী দল আওয়ামীলীগের কোন কোন নেতা “যতই চেষ্টা করুন না কেন, রাজা হতে পারবেন না” বলে মন্তব্য করার সুযোগ পেয়েছেন। তারা খালেদা জিয়াকে খুশকি মুক্ত চুলের জন্য ক্লিয়ার শ্যাম্পু ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে যুক্তরাষ্ট্র সফরে খালেদা জিয়াকে নিউ জার্সি অঙ্গরাজ্যের সিনেট একটি নতুন জার্সি উপহার দিয়েছে। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সি অঙ্গরাজ্যের সিনেটে খালেদাকে যে নতুন জার্সিটি দেওয়া হয়েছে, তা বিরল। কেননা ওই সিনেটের ১৬৬ বছরের ইতিহাসে খালেদা জিয়াই কেবল নতুন জার্সি পেলেন। এটা সমগ্র বাংলাদেশের জন্য আনন্দের বিষয়।’ এই ‘অর্জনের’ জন্য দলটির নেতাকর্মীদের গত বৃহস্পতিবার রাজধানীতে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের আশপাশের এলাকায় আনন্দ মিছিল করতে দেখা গেছে।

%d bloggers like this: