Archive for April 8th, 2012

April 8, 2012

মালাউনদের সাথে মারপিটেই শান্তি: মকসুদ

বিশেষ মতিবেদক

বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ, কলামিষ্ট ও উপমহাদেশে গান্ধীবাদী আন্দোলনের পুরোধা বেক্তিত্ব সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেছেন, সাতক্ষীরায় মালাউনদের সাথে মারপিটের ঘটনায় তিলকে তাল করে দেখাচ্ছে মিডিয়া।

আজ কারওয়ানবাজারে ‘সাতক্ষীরায় মালাউনদের সাথে মারপিট: কিভাবে আরও ঘন ঘন করা যায়’ শীর্ষক এক গোল টেবিলে মকসুদ এ কথা বলেন।

সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, পুর্ব বাংলা সব সময় মুসলিম অধ্যুষিত ছিল। বখতিয়ার খিলজির আগমনের পর থেকেই পুর্ব বাংলায় মালাউনদের মারপিট করা শুরু হয়েছে। এ আমাদের ঐতিহ্য, আমাদের অহংকার। পুর্ব বাংলায় যতদিন মালাউন থাকবে, মুসলমানরা তাদের মারপিট করবে।

মকসুদ আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, অথচ আমাদের মিডিয়ার আচরন দেখে মনে হয়, তারা ধর্ম নিরপেক্ষতার ভাইরাসে আক্রান্ত। কয়েকটা মালাউনের বাড়ি পুড়ালে তা নিয়ে এত হই চই করার কি আছে?

তিনি বলেন, মহাত্মা গান্ধীর আমল থেকেই মালাউনে মুসলমানে দায়ে কুমড়া কুপাকুপি চলে আসছে। এ ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য আমাদের আরও পরিশ্রম করতে হবে।

উপস্থিত বক্তারা মকসুদের এ মনোভাব গান্ধীজীর অহিংস শান্তির বানীর সাথে সাংঘর্ষিক কিনা জানতে চাইলে মকসুদ বলেন, মালাউনদের সাথে মারপিটেই শান্তি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের ছাত্ররা শাহবাগে সড়ক অবরোধ করায় মানবাধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে উল্লেখ করে মকসুদ বলেন, সরকারের উচিত ছিল সেনাবাহিনী পাঠিয়ে জগন্নাথ হলের মালাউনদের টাইট দেয়া।

বাংলাদেশের সকল হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টানকে ইসলাম গ্রহনের আহ্বান জানিয়ে মকসুদ বলেন, লাইনে আসুন।

এ সময় মকসুদের পোষা ছাগল পুটু মকসুদকে সমর্থন জানান।

Tags:
April 8, 2012

ধন্যবাদ বাদ, শুভকামনা না: ফখরুল

বিশেষ মতিনিধি | তারিখ: ০৮-০৪-২০১২

মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমার বিরোধ নিষ্পত্তিতে ইটলসের রায়ের পর সরকারকে না জেনেই ধন্যবাদ জানিয়েছিল বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখা। কিন্তু ওই রায় নিয়ে ‘মালাউন শুভংকরের ফাঁকি’ আছে জানতে পেরে ‘শুভকামনা’ ও ‘ধন্যবাদ’ ফিরিয়ে নিয়েছে দলটি। দলটি বলেছে, এখন আমরা শুভকামনাকে না বলছি এবং ধন্যবাদ বাদ দিচ্ছি।

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল শনিবার সকালে রাজধানীতে এক গোলটেবিল বৈঠকে ‘ধন্যবাদ’ ফিরিয়ে নেওয়ার এই কথা বলেছেন।

‘মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা-সংক্রান্ত রায়ে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি’ শীর্ষক এই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে দৈনিক আমার দেশ। এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মির্জা ফখরুল তথাকথিত সমুদ্রজয়কে নিজের জীবনের প্রথম প্রেমের সঙ্গে তুলনা করে বলেন, ‘প্রথম প্রেম একটা ভুল ধারণা। আমরা সেটা পরে বুঝতে পারি। আমার নিজের কথা বলি। প্রথম প্রেমের পর পর আমি কিছুটা বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। কারন এটি আমার পুরো শরির ও মনকে নাড়া দিয়েছিল। আমি কুমারত্ত উৎসর্গ করেছিলাম প্রথম প্রেমিকাকে। আমি তখন কিছুটা বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু বিবাহের পর আমি স্ত্রীকে সগর্বে জানাই, আমি এখনও কুমার। কারণ আমি আমার হারানো কুমারত্ত ফেরৎ নিয়ে এসেছি।’

মতিকণ্ঠের ছ্যাঁচরা সাংবাদিক তাকে প্রশ্ন করেন, ‘এশিয়া কাপে পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন হলে বিবসনা হয়ে দৌড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বিএনপি-পল্লীর বাসিন্দা পাপিয়া পান্ডে, তিনিও কি প্রতিশ্রুতি ফিরিয়ে নিয়েছেন?’ উত্তরে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সেক্সের সাথে সমুদ্রজয় মিশাবেন না।’

%d bloggers like this: