Archive for April 10th, 2012

April 10, 2012

বাচ্চু রাজাকার মাটির নিচে লুকালেও খোঁজে বের করা হবে: সাহারা

নিজস্ব মতিবেদক

জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে রুকন ও একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী মাওলানা আবুল কালাম আজাদ ওরফে বাচ্চু রাজাকার মাটির নিচে লুকালেও তাকে খোঁজে বের করে আনা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এডভকেট সাহারা খাতুন।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন সাহারা খাতুন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, বাচ্চু রাজাকার তিনটি দিন এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজে লুকিয়ে ছিল। এই তিনদিন তাকে নিয়মিত খানা সরবরাহ করা হয়েছে। সে যেসব পানীয় পছন্দ করে, তা চকবাজারের আড়ত থেকে খোঁজে এনে পরিবেশন করা হয়েছে। সুন্দরী দুই একষ্ট্রাকে তার ঘরে শরবত সহ পাঠান হয়েছে। বাজারে আন্ডার জন্য হাহাকার, অথচ বাচ্চুকে সকালে দুইটি আন্ডার মামলেট, একটি আন্ডা হাপবয়েল ও একটি আন্ডা পোছ করে পরটা সহকারে খেতে দেয়া হয়েছে। দেশী মুরগির রান ও সিনার গোস্ত দিয়ে পলাও দিয়ে দুপুরের খানা দেয়া হয়েছে। তার ঘরে দিন রাত চব্বিশ ঘন্টা এছি চলেছে। হিন্দী চেনেল সহ তাকে ২৪ ইঞ্চি ফ্লেট স্কৃন টিভি দেয়া হয়েছে। তার বিছানার পাশে ড্রয়ারে পাতলা বিদেশী মেগাজিন দেয়া হয়েছে।

সাহারা খাতুন আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, এত যত্ন করার পর বাচ্চু রাজাকার কি করেছে? সে এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজের বিল পরিশোধ না করে পলায়ন করেছে। শুনেছি সে ভারত চলে গেছে।

সাহারা বলেন, বাচ্চু রাজাকার একটি অভিশাপ।

তিনি বলেন, একাত্তর সালে সে কি করেছিল না করেছিল, তা নিয়ে আমার মাথাবেথা নাই। কিন্তু এই দুই হাজার বার সালে সে এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজের বিল পরিশোধ না করে ভারতে পলায়ন করেছে, এর চেয়ে বড় মানবতাবিরুধী অপরাধ আর কি হতে পারে। সাহারা খাতুন বলেন, যে লোকের সামান্যতম মানবতা আছে, সে কখনও হোটেলের বিল বাকি রেখে পলায়ন করতে পারে না।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাহারা খাতুন বলেন, আমি ইন্টারপোলের কাছে বিচার দিয়েছি। বাচ্চু পালাতে পারবে না। মাটির নিচে লুকালেও তাকে খোঁজে বের করে এনে এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজের বকেয়া বিল পরিশোধ করান হবে। জাতির কাছে এ আমার ওয়াদা।

কিভাবে বাচ্চু রাজাকার পুলিশের চোখ ফাকি দিয়ে এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজ থেকে পলায়ন করল, এ প্রশ্নের জবাবে সাহারা খাতুন বলেন, সে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জামাতি অধ্যাপক আবু ইউসুফের সহায়তায় পালিয়েছে। পুলিশ এখন আবু ইউসুফকে খোঁজছে।

এমপেরিয়াল গেষ্ট হাউজে আবু ইউসুফকে পাওয়া যাবে কি না, এ প্রশ্ন করা হলে সাহারা খাতুন উত্তেজিত হয়ে পড়েন।

এক পৃথক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ হোটেল মালিক সমিতির সভাপতি সাহারা খাতুন বাচ্চু রাজাকারের প্রতি তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে তাকে অবিলম্বে গ্রেফতার করার জন্য মনমোহন সিংহ ও মমতা বেনার্জির প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, হোটেলের টেকাটুকা মেরে যে পালায়, সে মানবতার শত্রু, সভ্যতার শত্রু। এই জানোয়ারকে হত্যা করতে হবে।

রেবের মহাপরিচালক বলেন, বাচ্চু রাজাকার কিভাবে যেন ভারতে পালিয়ে গেল। দুষ্টু একটা।

ভারতের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী শ্রী বনশাল বলেন, বাচ্চু রাজাকার ভারতের অর্থনীতিতে বিপুল অবদান রাখবেন বলে আমরা আশা করি।

এদিকে কারাগারে বন্দী জামায়াতে ইসলামীর অন্যান্য খানকির পোলায়ে আমীরেরা বাচ্চু রাজাকারের পলায়নের খবর শুনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সাবেক খানকির পোলায়ে আমীর অধ্যাপক গোলাম আজম বলেন, কেউ পাবে, কেউ পাবে না, তা হবে না, তা হবে না।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি জাকা আশরাফ বাচ্চু রাজাকারকে পাকিস্তানে স্বাগতম জানিয়ে বলেছেন, আর মাত্র দশজন যুদ্ধাপরাধী বাংলাদেশ ছেড়ে পালিয়ে পাকিস্তানে উপস্থিত হলেই তিনি বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তান মেচের আয়োজন করবেন।

%d bloggers like this: