Archive for April 13th, 2012

April 13, 2012

ঢাকা উত্তর থেকে মেয়র নির্বাচন করবেন মজিনা ফায়ারফক্স

নিজস্ব মতিবেদক

ঢাকা উত্তর থেকে মেয়র নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষনা দিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদুত ডেন ডবলিউ মজিনা ওরফে মজিনা ফায়ারফক্স।

আজ মার্কিন দুতাবাসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে মজিনা ফায়ারফক্স বলেন, আমি বাংলাদেশকে ভালবাসি। আমি বাংলাদেশের উন্নতি চাই। সোনার বাংলাদেশ গড়তে চাই। বংগবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে তাই আমার মত কামেল আদমী প্রয়োজন। তাই ঢাকা উত্তরের মেয়র হিসাবেই আমি এই কাজ শুরু করতে চাই। আপনারা আমার জন্য দুয়া করবেন।

সোনার বাংলা গড়তে চান মজিনা

আবেগঘন কণ্ঠে মজিনা বলেন, বাংলাদেশ এক অপার সম্ভাবনাময় দেশ। এর গেস আছে, তেল আছে, বন আছে, সাগর আছে। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী ভাষা কন্যা গনতন্তের মানস কন্যা ড. শেখ হাসিনা কয়েক দিন আগে সমুদ্র জয় করেছেন। আগে বাংলাদেশের সমুদ্র ছিল না। এখন বাংলাদেশের সমুদ্র আছে। তাছাড়া ঢাকা উত্তরে কাঠার পর কাঠা, বিঘার পর বিঘা পতিত জমি আছে, যা ভুমি দস্যুদের কাছে বিক্রি করে কুটি কুটি টেকা আয় করা সম্ভব। এ কারনেই আমি ঢাকা উত্তরের মেয়র হতে চাই।

মজিনা বলেন, আমি আওয়ামী লীগের শেখ হাসিনা ও বিএনপির মোসাদ্দেক আলী ফালু, উভয়কেই সালাম করে এসেছি। আপনারা আমার জন্য দুয়া করবেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মজিনা বলেন, আমি আমেরিকান তো কি হয়েছে? গওহর রিজভীও তো আমেরিকান। শেখ সজীবও তো আমেরিকান। আমিও আমেরিকান। আমরা সবাই সোনার বাংলা গড়তে চাই। সোনার বাংলাদেশ গড়ব মোরা, সোনায় ধরে আজ শপথ নিলাম।

আবেগঘন কণ্ঠে মজিনা বলেন, আমেরিকা একটি অভিশাপ। সেখানে জমি ভরাট করে প্লট তুলা যায় না। সৈকত দখল করে হোটেল তুলা যায় না। সরকারি নিয়োগের জন্য ঘুষ খাওয়া যায় না। কিন্তু বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনাময় একটি দেশ।

মজিনা বলেন, আমি মেয়র নির্বাচিত হলে ঢাকা উত্তরের চেহারা পাল্টে দিব। দিনে ২৪ ঘন্টা বিদ্যুত থাকবে। পানি থাকবে। গেস থাকবে। রাস্তায় জাম থাকবে না। আপনারা আমার জন্য দুয়া করবেন।

মোসাদ্দেক আলী ফালুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মজিনা খুব ভাল ছেলে। আমাকে পা ছুয়ে সালাম করে বাংলায় বলল, আমার জন্য দুয়া করবেন।

তুরস্ক থেকে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মজিনা ভাল লোক। সালাম করতে এসেছিল। মিষ্টি নিয়ে। আমি মজিনার জন্য দুয়া করব।

April 13, 2012

মোহাম্মদ নাসিমকে ধানের শীষ বলার কারনে কারাগারে দুই যুবক

সিরাজগঞ্জ মতিনিধি

সাবেক স্বরাষ্ট্র ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে ধানের শীষ ডাকার অপরাধে দুই যুবকের নামে মামলা করা হয়েছে। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে প্রেরনের আদেশ দিয়েছেন।

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার প্রতীক ধানের শীষ। সেই সাথে এটি একটি অত্যন্ত আপত্তিকর গালি হিসেবে বিবেচিত হয়।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, লোকজন আমার বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় আমাকে খানকির পুলা, বানচুদ, মাদারচুদ, ভোটকা নাসিম, প্রভৃতি গালি দেয়। এটি এ অঞ্চলের ঐতিহ্য। আমার বাড়ির সামনে দিয়ে যাবে কিন্তু আমাকে খানকির পুলা বলবে না, আমাকে বানচুদ বলবে না, আমাকে মাদারচুদ বলবে না, আমাকে ভোটকা নাসিম বলবে না, এমন মানুষ সিরাজগঞ্জে বিরল। শুধু শিশু আর পাগলরা আমাকে বিলাইপুটকি বলে ডাকে।

আবেগঘন কণ্ঠে নাসিম বলেন, এত বছর ধরে রাজনীতি করেছি, মন্ত্রী হয়েছি, পতাকা শোভিত গাড়িতে চড়েছি, শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানী করেছি, হাজার হাজার কুটি টেকা মেরেছি, ঘুষ খেয়েছি, আবার পরে ক্ষমতা হারিয়ে ফকিন্নীর পুতের মত রাস্তায় শুয়ে পুটুতে পুলিশের লাঠির বাড়ি খেয়েছি, এখন মন্ত্রীত্ব না পেয়ে ফেফে করে ঘুরছি, কিন্তু কই, কেউ তো আমাকে কখনও ধানের শীষ বলে গালি দেয়ার সাহস করেনি।

এক পর্যায়ে কথা বলতে বলতে নাসিম কেদে ফেলেন। তিনি কাদতে কাদতে বলেন, আমি ঐ দুই যুবকের ফাসি চাই। তারা আমাকে ধানের শীষ বলে গালি দিয়েছে, অপমান করেছে। তারা দুইটি অভিশাপ।

April 13, 2012

সুরঞ্জিত লাইনে নতুন, তাকে মাফ করে দিন: মওদুদ

নিজস্ব মতিবেদক

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার নেতা মওদুদ আহমদ বলেছেন, সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এই লাইনে নতুন। তাকে মাফ করে দিন।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে মওদুদ এই অনুরোধ করেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, আমি এরশাদের আমলে যোগাযোগ মন্ত্রী ছিলাম। রেল বিভাগের পুটু মেরে তখন কুয়াকাটা বানিয়েছি। আমাদের সময় এত এপিএস বিপিএস সিপিএসের ঝামেলা ছিল না। জিএম এজিএম ইনজিনিয়ার সবাই বাসায় নিজ দায়িত্বে টেকাটুকা বাজারের বেগে করে দিয়ে আসত।

মওদুদ আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, সুরঞ্জিত মাত্র তিন মাস ধরে মন্ত্রী। এই লাইনের অনেক কায়দা কানুন তিনি এখনও শিখেন নাই। তাই রাতের বেলা চোরের মত টেকাটুকা দিয়ে আসতে বলেছেন। তিনি জানেন না, টেকাটুকা দিতে হয় দিনের বেলা, সবার সামনে। যাতে কেউ সন্দেহ না করে। একটা চটের বেগে বান্ডিলগুলি ঢুকানর পর উপরে লালশাক, ডাটাশাক, এসব দিয়ে ঢেকে নিয়ে যেতে হয়। এইসব বেসিক বেপার না জানার কারনেই তিনি টেকাশুদ্ধা ধরা খেয়েছেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, আমাদের তরুন নেতা তারেক জিয়া বিশ হাজার কুটি টেকা মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম ও সৌদী আরবে পাচার করেছেন। সব দিনের বেলা। লোকজনের চোখের সামনে। সুটকেছে করে। কেউ কোন সন্দেহ করে নাই। কেউ তাকে ধরে বিজিবির সদর দপ্তরে নিয়ে যায়নি। কারন তিনি সব কাজ নিজের হাতে করেন। ড্রাইভারের হাতে টেকাটুকা দিলে তারা ছোটলোকের জাত কখন কি করে কোন ঠিক আছে?

মওদুদ বলেন, আমি আইন মন্ত্রী থাকার সময় কত টেকাটুকা খাইলাম, কখনও ধরা পড়ি নাই। কারন আমি ছোটকাল থেকেই মন্ত্রী ছিলাম। সব কায়দা জানি। সুরঞ্জিত লাইনে নতুন, তাই ফেসে গেছেন।

মওদুদ আহমদ সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে কুচিং করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনার প্রশিক্ষন লাগলে আমি প্রশিক্ষন দিব। কিন্তু কাচা কাজ করবেন না। তাহলে পরে আমাদেরও টেকাটুকা খেতে সমস্যা হবে।

প্রাক্তন যোগাযোগ মন্ত্রী কর্নেল (অবঃ) ড. অলি আহমদ গাড়ি চালক আজম খানের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, আজম খান একটি অভিশাপ। তাকে বন্দুকযুদ্ধে নিহত না করলে আমাদের সকলের এপিএসের গাড়ি চালকরা তার মত জঘন্য অপরাধে জড়িয়ে পড়তে উৎসাহ পাবে। তিনি এ বেপারে রেবের হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, আর বিলম্ব না না আর বিলম্ব নয়।

কর্নেল (অবঃ) অলি বলেন, এই ঘটনায় সকল রাজনীতিবীদের লুসকান হয়েছে। লাভবান হয়েছে সাংবাদিকরা। তারা এখন আমাদের নিকট হতে অতিরিক্ত কমিশন দাবী করবে। তারা আমাদের গাড়ি চালকদের টেকাটুকা দিয়ে ভবিষ্যতেও এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি করাতে পারে। আমাদের টেকাটুকা যদি এইভাবে ধরা পড়ে, আমরা বিপদে আপদে বিদেশে গিয়ে কি খাব? কি পিন্দব?

রেল মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত পৃথক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমি ৭০ লক্ষ টেকার আশায় টিকেট কিনলাম ১০ টাকায়। যদি লাইগা যায়।

%d bloggers like this: