Archive for May 6th, 2012

May 6, 2012

সিলাই মেশিন পেয়ে আনন্দে ঝলমল হিলারি

কূটনৈতিক মতিবেদক

অবশেষে হিলারি রডহাম ক্লিনটনের বাসনা পুর্ন হল। বাংলাদেশে তাঁর সফর সার্থক হল।

আজ সকালে মার্কিন রাস্ট্রদুত মজিনা ফায়ারফক্সের গুলশান বাসভবনে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের হাতে একটি সিলাই মেশিন তুলে দেন বিশ্বের বৃহত্তম বেসরকারী প্রতিষ্ঠান ব্রেকের মালিক সার ফজলে আবেদ ও বিশ্বের বৃহত্তম ক্ষুদ্র ঋন বেবসায়ী নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ডঃ মুহম্মদ ইউনূস।

হিলারি সার আবেদ ও ডঃ ইউনূসের সাথে আলাপ শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, শত জনমের স্বপ্ন তুমি আমার জীবনে এলে, কত সাধনায় এমন ভাগ্য মেলে।

হিলারি ক্লিনটন আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, আপনারা জানেন, আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দীপু মনি। কিন্তু চিরদিন কাহারও যায় না সমান। জন্মিলে মরিতে হবে। রাজনীতি করলে অবসর নিতে হবে। আমার বয়স হয়েছে। অবসরের সময় ঘনিয়ে এসেছে। আর বেশী দিন পলিটিক্স করতে পারব না। কিন্তু অবসর জীবনে একটা কিছু করে খেতে হবে।

হিলারি বলেন, আপনারা জানেন, ইউনূস আমার ছোটবেলার বন্ধু। বন্ধুর বিপদে বন্ধু এগিয়ে আসে। আমি তার বিপদের সময় এগিয়ে এসে পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্ব বেংকের ঋন বন্ধ করে দেয়ার বেবস্থা করেছি। আর সে আমার বিপদে সিলাই মেশিন নিয়ে এগিয়ে এসেছে। এই মেশিন চালিয়ে আমি আমার অবসর জীবনে আয় রোজগার করব।

সিলাই মেশিন পেয়ে হাসছেন হিলারি রডহাম ক্লিনটন

গ্রামীন বেংকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে হিলারি বলেন, গ্রামীন বেংকের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ঋন নিয়ে আমার মেয়ে চেলসিয়া ক্লিনটনের বিবাহ দিয়েছি। মাশা আল্লাহ ভাল পাত্র পেয়েছি, বেশি যৌতুক দিতে হয়নি। একটি ফৃজ, একটি মোটর সাইকেল ও একটি রংগীন টেলিভিশন দিয়েই কাজ হয়ে গেছে। আর এসব আমি কিনতে পেরেছি গ্রামীন বেংকের সহায়তায়।

হিলারি ক্লিনটন দৃপ্ত কণ্ঠে বলেন, গ্রামীন বেংক পুনরায় ইউনূসের হাতে তুলে না দিলে আমি বাংলাদেশে পুনরায় একটি নৌবহর পাঠাব। এবার আর সোমালিয়া দিয়ে পাঠাব না। সোমালিয়ার লোকজন বানচুদ। তারা সবাই জলদস্যু। তারা গতবার আমার নৌবহর আটক করেছিল। এবার আমি নৌবহর পাঠাব প্রশান্ত মহাসাগর দিয়ে। তখন দেখি শেখের বেটী কোথায় পালায়।

ডঃ ইউনূস হিলারি ক্লিনটনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, হিলারি খুব রাগ করেছে। বলেছে হাসিনাকে বকে দিবে। সাবধান হাসিনা। তুই ভাল হয়ে যা।

সার আবেদ বলেন, সিলাই মেশিনটি সম্পুর্ন আমার পয়সায় কিনা। ইউনূস একটা টাকাও খরচ করেনি। সিলাই মেশিন কিনলাম আমি আর নাম হয় ইউনূসের।

সার আবেদ সিলাই মেশিনের দামের পঞ্চাশ শতাংশ অবিলম্বে পরিশোধের তাগিদ দিয়ে ইউনূসকে বলেন, লাইনে আসুন।

%d bloggers like this: