মুক্ত বাতাসে বাট

ক্রীড়া মতিবেদক

অবশেষে কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন পাকিস্তান কৃকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সালমান বাট। ষ্পট ফিক্সিং এর অভিযোগে সাম্রাজ্যবাদী যুক্তরাজ্য সরকার তাকে কারাদন্ড দেয়।

বাটের মুক্তির খবর ছড়িয়ে পড়লে কারওয়ানবাজারে আনন্দঘন পরিবেশের সৃস্টি হয়।

কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান ও উপসর্দার আমিষুল হক পরস্পর কোলাকুলি করেন ও একে অপরকে মিষ্টিমুখ করান বলে জানা গেছে। এ ছাড়া উতপল শুভ্র বাটের ছবি নিয়ে দির্ঘ সময় বেপী শৌচাগার জিয়ারত করেন।

“সবাই বাট মারে” – সালমান বাট

সালমান বাট মুক্তি পেয়ে বলেন, কারওয়ানবাজারের টানা সুপারিশেই যুক্তরাজ্য সরকার আমাকে আগে আগে মুক্তি দিয়েছে। তা না হলে আমাকে আরও দুই বছর পুটু মারা খেতে হত।

বাট আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, জেলে আমার ওপর অকথ্য নির্যাতন চালান হয়েছে। অন্যান্য কয়েদীদের মধ্যে জেল কতৃপক্ষ একটি উতসব চালু করেছিল, “কে আজ বাট মারবে?” তারা “বাট মারে ও লাড়কা বাট মারে” নামে একটি গানেও সুর দিয়েছে বলে বাট জানান।

বাট বলেন, আমি এই দুঃসহ স্মৃতি ভুলে যেতে চাই।

কারাধ্যক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিবেদককে জানান, বাট আগাম মুক্তি পাওয়ায় জেলে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বাটের মুক্তি বাতিল করে তাকে আবার জেলে ফিরিয়ে না আনলে কয়েদীরা অনশন ও কয়েদী বন্ধন করবে বলে হুমকি দিয়েছে।

মুক্তির পর সালমান বাট দেশে ফিরতে চান। তিনি বলেন, লন্ডনে আর নয়।

কারওয়ানবাজার সর্দার মতিচুর রহমান বাটকে অভ্যর্থনা জানাতে রাতের ফ্লাইটে করাচীর দিকে যাত্রা করবেন বলে বিশ্বস্ত সুত্রে জানা গেছে।

One Comment to “মুক্ত বাতাসে বাট”

  1. ” কৌন মারেগা বাট কা বাট ” প্রতিযোগিতায় কেন্টাবুরি জেল শাখার চেমপিয়ন পর্ণইসটার মেনডিংগো ভিষণ মুষড়ে পড়েছেন বাটের বিদায়ে।তিনি বলেন,এই দিনদুনিয়ায় একমাত্র বাটের বাট পুরোটা ধারণ করতে পারতো।পর্ণ ছাইড়া জেলে আইলাম হেতের লাই। এখন আমার কি হপে? বাটের বাট ফিরিয়ে না দেয়া পর্যন্ত আমরন অনশন চলবে..অধিকার ফিরিয়ে দাও দিতে হবে।

    অনান্য মুশকো পালোয়ান কয়েদিরাও তখন স্লোগান দেয়।

    এই সমস্যা সমাধানে মওদুদ রে আইনী সমাধান দিতে জিগাইলে তিনি হোমো এর্শাদের একটা প্রশংসাপত্র দেখিয়ে,লাজুক হেসে আবীর রাঙ্গা নতমুখে বলেন,ওনারে অনশন ভাংতে বলেন, আমি তো এখনো পুটুসমেত বাইচ্চা আছি।

    এদিকে করাচি যাত্রা প্রশ্নে, কাওরানবাজার এস্তেনজাখানায় আমিষুল আবারো মতিচুরের লগে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন।আমিষুল বলেন,আগে ভিনামালিক নিলেন এখন বাটের বাট।অন্তত বাটের বাট আমাকে দেন।

    মতিচুর ধমকে বলেন,কলেমা জানো মিয়া ? গেলমান বুঝো ? আমি বুঝি,তওবা পড়ছি হুদাহুদাই ? বেশি বেড়োনা ঝড়ে পড়ে যাবে।

    অভিমানী আমিষুল তখন বলেন,আমিতো কারো সাতেপাচে থাকিনা,তবু আমার সাথে কেন বারেবারে এমুন হয়।

    কাওরানবাজার এস্তেনজাখানায় লুকিয়ে থাকা তসলিমার জিগোলো এস্তেনজা মেলন মতিচুরের গোপনে করাচি যাত্রার খবর পেয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

    পরে তিনি বলেন,আমি হলাম কালো ঘোড়া উপন্যাসের বারেক,মতিচুর কি বাট আমাত্তে বেশি বুঝে ? আম্মো করাচি যামু..

    সূত্র:সুনা বলগ

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: