রামুর ক্ষতে প্রয়োগের জন্য নুন ও লেবু নিয়ে আসুন: মকসুদ

শান্তি মতিবেদক

উপমহাদেশের বিখ্যেত ইতিহাসবীদ, কলামিষ্ট ও গান্ধীবাদী আন্দোলনের অগ্র সেনানী সৈয়দ আবুল মকসুদ অবশেষে সাম্প্রদায়ীক আক্রমনে ভস্মীভুত রামুতে এসেছেন।

আজ রামু বাস স্টেন্ডে এক সমাবেশে তিনি রামুর ক্ষতে প্রয়োগের জন্য আয়ডিন যুক্ত নুন ও কাচা লেবু নিয়ে দলে দলে যোগদানের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

মকসুদ বলেন, রামুতে হাজার হাজার বৌদ্ধ বাস করে। এদের নেড়া মাথা ও পেচ দিয়ে পরা কাপড় দেখে বিভ্রান্ত হবেন না। এরাই আরাকানে আমাদের জাতভাই রোহিংগাদের পুটু মেরে চৌচির করছে। বৌদ্ধরা কত হিংস্র হতে পারে তা ব্রুস লী ও জেকি চেনকে দেখলেই বোঝা যায়। রোহিংগারা কুংফু আবিষ্কার করেনি, বৌদ্ধরাই করেছে। তাই এই বৌদ্ধদের মুলসহ উপড়ে ফেলতে হবে। আমাদের রোহিংগা ভাইয়েরা ও আমাদের জামায়াতে ইসলামীর খানকির পুলারা এদের গায়ে ক্ষত সৃস্টি করেছে। সেই ক্ষতে নুন ও লেবুর রস প্রয়োগের দায়িত্ব এখন আমাদের। রোহিংগা বাংগালী বিচারের সময় এ নয়। দল মত নির্বিশেষে রামু-উখিয়া-পটিয়ার বৌদ্ধদের দেশছাড়া করুন।

বৌদ্ধদের উদ্দেশে মকসুদ তর্জনী উচিয়ে বলেন, হয় যান আরাকান, নয় এইখানে মারা খান।

আবেগঘন কণ্ঠে মকসুদ বলেন, আপনারা জানেন, মালাউন মহাত্মা গান্ধী একবার নোয়াখালীতে তার পোষা ছাগল নিয়ে শান্তি রক্ষা করতে এসেছিলেন। কিন্তু নোয়াখালীর মুসলমানবৃন্দ তার ছাগলটিকে চুরি করে উত্তম রেজালা রন্ধন করে ভক্ষন করে। গান্ধীর জীবন থেকে আমি শিক্ষা নিয়েছি। আমার পোষা ছাগল পুটুতে নিয়ে আমি কখনও নোয়াখালী যাই না। কিন্তু সুদুর অতীতে একবার আমি একটি পোষা শশা নিয়ে রামু এসেছিলাম। রামুর হিংস্র সবজি লোলুপ নিরামিশাশী বৌদ্ধরা আমার পোষা শশাটিকে অপহরন করে ও জবেহ করে নুন মরিচ সহযোগে ভক্ষন করে। এদের হিংস্রতার বর্ননা দেওয়ার ভাষা আমার জানা নাই।

জামায়াতে ইসলামীর খানকির পুলা ও রোহিংগাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মকসুদ বলেন, যারা খেয়েছে মকসুদের শশা, তাদের হবে মরন দশা। হে আমার রোহিংগা ভাইয়েরা, পেগডার লৌহ কপাট, ভেংগে ফেল কর রে লোপাট।

বক্তৃতা শেষে স্থানীয় একটি ছাগলের দুধ দোহন করে মকসুদ বলেন, দুগ্ধং শরনং গচ্ছামি।

Tags:

One Comment to “রামুর ক্ষতে প্রয়োগের জন্য নুন ও লেবু নিয়ে আসুন: মকসুদ”

  1. মহাত্মা গান্ধী একবার নোয়াখালীতে তার পোষা ছাগল নিয়ে শান্তি রক্ষা করতে এসেছিলেন। কিন্তু নোয়াখালীর মুসলমানবৃন্দ তার ছাগলটিকে চুরি করে উত্তম রেজালা রন্ধন করে
    Misa Kotha, not historical fact.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: