ঐক্য সম্ভব

নিজস্ব মতিবেদক

ঐক্যের কথা বলেছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন ও বিকল্পধারা সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দুজা চৌধুরী।

আজ রেডিসন হোটেলে বিলাস বহুল পরিবেশে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কামাল হোসেন ও বদরুদ্দুজা ঐক্যের কথা বলেন।

তাদের সংগে যোগ দিয়ে ঐক্যের জন্য আবদার করেন কিংবদন্তী ছাত্র নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না, উপমহাদেশের বিখ্যেত ইতিহাসবীদ, কলামিষ্ট ও গান্ধীবাদী আন্দোলনের প্রবাদ পুরুষ সৈয়দ আবুল মকসুদ ও শেখ হাসিনার কাছে টিভি চেনেল চেয়ে প্রত্যাখ্যাত সাংবাদিক এ বি এম মুসা।

কামাল হোসেন বলেন, এক সপ্তাহ আগে আমি বিশ্ব বেংকের আমন্ত্রনে রাতে তাদের সংগে ভাত খেয়েছি। বিশ্ব বেংকের ভাত পেটে পড়ার পর আমার বুদ্ধি খুলে গেছে। আমি এখন যুদ্ধাপরাধীদের সুবিচার চাই। সেই সংগে বদরুদ্দুজার সংগে ঐক্য চাই।

বদরুদ্দুজা বলেন, বিশ্ব বেংক কামাইল্লারে রাতে খাওয়ার দাওয়াত দিল কিন্তু আমারে দিল না। আমি এই দেশটার রাষ্ট্রপতি ছিলাম, কিন্তু কুন শালার পুত আমারে পুছে না। আমি তাই আপাতত কামাইল্লার সংগে ঐক্য চাই। এই ঐক্যের পর যদি আমাকে বিশ্ব বেংক দাওয়াত দিয়ে না খাওয়ায়, আমি ঐক্য ভেংগে বের হয়ে যাব।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কামাল হোসেন বলেন, কখনও শেখ হাসিনা কখনও খালেদা জিয়ার ছাতার নিচে মাথা ঢুকানই আমাদের নিয়তি। আমরা গুড়া গাড়া রাজনৈতিক দল চালাই, সেনাবাহিনী ক্ষমতায় আসলে ভাল মন্দ দুটি খেতে পাই। গনতান্ত্রিক বেবস্থায় হাসিনা খালেদার চামচামি করা ছাড়া আমাদের গতি নাই। কিন্তু সেনাবাহিনী একটি অভিশাপ। তাদের এত তেল দেওয়ার পরও তারা সময় মত টেংক বন্দুক নিয়ে বের হয় না। তাই আপাতত আমরা সব দুধভাত নেতারা ঐক্য করব।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে বদরুদ্দুজা চৌধুরী আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, রমজানে খালেদা জিয়ার ইফতারের দাওয়াতে আমি গিয়েছিলাম। মাগনা খাওয়ার চাঞ্ছ পাইলে ছাড়ার পাত্র আমি নই। আপনারা দাওয়াত দিলে আপনাদের দাওয়াতেও যাব। শুধু ইফতার কেন, জন্মদিন বিবাহ মুসলমানি সবকিছুতেই গিয়া বসে পড়ব। কিন্তু তার মানে এই না যে আপনাদের সংগে আমার ঐক্য হবে। তাই খালেদার ইফতারে উপস্থিত হওয়ার পিছনে ঐক্য নয়, মাগনা ভোজনই আসল কারন। খালেদার সংগে ঐক্য করা মানে জনগনের সংগে বেইমানি। তবে খালেদার দাওয়াতে গিয়ে পেট ভরে খেলে জনগনের টেকাটুকা কিছু উসুল হয়।

ঐক্য সম্ভব

ছাত্র নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ২০০৮ সালে সেনাবাহিনী আমাকে ফুসলি দিল। বলল আয় মান্না, আমাদের সংগে আয়। টেকাটুকা পাবি। মন্ত্রী এমপি হবি। আমি বললাম ইয়েচ ছার। কিন্তু সেনাবাহিনী একটি অভিশাপ। তারা গাছে তুলে মই নিয়ে কেনটনমেন্ট ফিরে গেল। আমার লন্সও গেল পন্সও গেল। শেখ হাসিনা আমার পুটুতে লাথি মেরে দুর করে দিল। আমি ২০০৯ সাল থেকেই রাজনৈতিক ইয়াতীম হয়ে ঘুরছি। এখন যদি কামাল চাচা, বদরুদ্দুজা চাচা আমায় ভালবেসে দত্তক নেন, আমি শান্তি পাই। ঐক্য ঐক্য ঐক্য চাই, ঐক্য ছাড়া উপায় নাই।

সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, আপনারা ঐক্য করছেন করুন, কিন্তু রেংগুনকে চেতান যাবে না। রেংগুন যদি কুপিত হয়, আমাদের সর্বনাশ হবে। আমরা দুটি খেয়ে পরে বাচতে পারছি রেংগুনের দয়ায়। অথচ শেখ হাসিনা সমুদ্র বিজয়ের আনন্দে শুধু ফাল পাড়ে। রেংগুনের পুটুতে কাঠি ঢুকিয়ে খুচা দেয়। ভাইসব আপনাদের সংগে আছি, খালি রেংগুনরে চেতাবেন না। রেংগুনরে চেতালে আমি চলে যাব।

এ বি এম মুসা বলেন, টিভি চেনেল বরাদ্দ না দিলে ঐক্য ভেংগে গুড়া গুড়া করে চলে যাব।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: