কারাগার কর্তৃপক্ষের সংগে চুক্তি করতে চায় বিজিএমইএ

নিজস্ব মতিবেদক

পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ কারাগার কর্তৃপক্ষের সংগে চুক্তি করতে আগ্রহী।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএর সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এ আগ্রহের কথা জানান।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, আশুলিয়ায় তাজরিন ফেশনসে আগুন লেগে কিছু লেবার মরে গেছে। তারা ছিল আল্লাহর মাল। আল্লাহ তাঁর মাল ফিরত নিয়েছেন। পোশাক বেবসায় মাল ফিরত নেওয়া একটি স্বাভাবিক ঘটনা। ক্রেতারা অভিযোগ করলে আমরাও মাল ফিরত আনি। তারপর আবার নতুন মাল পাঠাই। তাজরিন ফেশনসের জন্য আল্লাহও আবার নতুন মাল পাঠাবেন। আল্লাহর রহমতে দেশে আল্লাহর মালের অভাব নাই।

সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন মিডিয়ার প্রতি অভিযোগ করে বলেন, মিডিয়া বেশি বাড়াবাড়ি করছে। তারা লাশের ছবি দেখাচ্ছে। আমার ছুট ছেলে সেই ছবি দেখে ভয় পেয়ে রাতে দুদুভাত খায় নাই। এই যে আমার ছেলেকে তারা ভয় দেখাল, কেন দেখাল?

সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, টেলিভিশন সিনেমায় সবকিছু সরাসরি দেখান যায় না। চুদাচুদির সিন বুঝানর জন্য দুইটা ফুল একটা আরেকটার গায়ে বাড়ি খাচ্ছে, এমন সিন দেখান হয়। রেপ ধর্ষন বলাতকার বুঝানর জন্য বজ্রপাতের সিন দেখান হয়। মিডিয়া লেবারদের লাশের ছবি না দেখিয়ে ষ্টার কাবাবের কড়াইয়ের সিন দেখাতে পারত। তাহলে আমার ছেলেটা রাতে দুদুভাত খাইত।

আবেগঘন কণ্ঠে মহিউদ্দিন বলেন, মিডিয়ার কারনে পথে ঘাটে তো বটেই, নিজের বাড়িতেও লোকজন আমাদের খানকির পুলা মাদারচুদ ছাড়া কথা বলে না। তাজরিন ফেশনসকে কমপ্লায়েন্ট বলায় আমার বৃদ্ধ দাদী আমায় মুঠোফোন মেরে খানকির পুলা ও মাদারচুদ বলেছেন। মিডিয়ার কারনে আমি আপন দাদীর গালি খাইলাম।

কান্নাবিজড়িত কণ্ঠে মহিউদ্দিন বলেন, রাস্তা ঘাটে লোকজন এসকিডেন্ট করে মরে। কেউ কুন ক্ষতি পুরন দেয় না। আমরা বলছি আমরা লাখ টাকা ক্ষতি পুরন দিব। তারপরও মিডিয়া শত্রুতা করে।

সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, সবাই খালি আগুনে পুড়ে মরার কথাই বলে, কিন্তু আমাদের সিকিউরিটির কথা কেউ বলে না। এই যে এত বড় একটা আগুন লাগল, তবুও কুন মাল আমরা চুরি যাইতে দেই নাই। আমাদের পোশাক কারখানার সিকিউরিটি বাংলাদেশ বেংকের ভল্টের সিকিউরিটির মত।

হন্ডুরাসের কারাগারের উদাহরন দিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, হন্ডুরাসের কারাগারে ৩৬১ জন আগুনে পুড়ে মারা গেছে। আর আমাদের কারখানায় পুড়ে মারা গেছে মাত্র ১১২ জন। আপনারাই বলেন, হন্ডুরাসের কারাগারের চেয়ে আমাদের কারখানা ভাল না খারাপ?

অচিরেই কারাগার কর্তৃপক্ষের সংগে চুক্তি করে পোশাক কারখানায় কারাবন্দীদের নিয়োগ দেওয়ার কথা বিবেচনা করছেন জানিয়ে মহিউদ্দিন মিডিয়ার উদ্দেশে বলেন, খারাপ খারাপ কথা না বলে মানুষের ভাল করুন, তার ভাল দিক নিয়ে রিপুট করুন। টেকাটুকা লাগলে, টেকাটুকা দিব। লাইনে আসুন।

One Comment to “কারাগার কর্তৃপক্ষের সংগে চুক্তি করতে চায় বিজিএমইএ”

  1. লেখা পড়ে অনেক মজা পেলাম।
    অভ্যাসবশত প্রতিদিনই মতিকন্ঠে একবার করে ঢু মারি। তবে ইদানিং মতিকন্ঠের ‘প্রতিবেদনের’ সংখ্যা কমে গেছে বলে মনে হয়। এটা হতাশাজনক।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: