Archive for January, 2013

January 31, 2013

এডমিরাল জেনারেল আলাদীনের কাছে খালেদার চিঠি

নিজস্ব মতিবেদক

অবিলম্বে বাকশালী দুঃশাসন হতে বাংলাদেশকে মুক্ত করে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য রিপাবলিক অফ ওয়াদিয়ার স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু আলহাজ্জ্ব এডমিরাল জেনারেল আলাদীনের কাছে ইংরেজী ভাষায় চিঠি লিখেছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর দেশনেত্রী আপোষ হীন সংগ্রামী বেগম খালেদা জিয়া।

গতকাল এক মাস সাধনার পর তিনি চিঠিটি রচনা সম্পন্ন করে রেজিষ্ট্রি কৃত ডাকযোগে এডমিরাল জেনারেল আলাদীনের কাছে পাঠান বলে মতিকণ্ঠ সুত্র নিশ্চিত করেছে। চিঠিটি মুসাবিদা করার কাজে বেগম জিয়াকে সহায়তা করেন কারওয়ানবাজারের ইংরেজী সর্দার মহাফুজ আনাম।

চিঠিটির একটি কপি মতিকণ্ঠের হাতে এসে পৌঁছেছে।

চিঠিতে বেগম খালেদা জিয়া এডমিরাল জেনারেল আলাদীনের ভুয়সী প্রসংশা করে বলেন, পৃথীবির তিন ভাগ জল এক ভাগ স্থল। তিন ভাগ জল মেনেজ করার জন্য আপনি এডমিরাল, আর এক ভাগ স্থল মেনেজ করার জন্য জেনারেল। লাইক এ বস।

বাংলাদেশে গনতন্ত্রের সমুহ বিপদের কথা উল্লেখ করে বেগম জিয়া বলেন, বাংলাদেশ এখন গনতন্ত্রের জন্য বিপদজনক। বড় গনতন্ত্র ও শহীদ জিয়ার সুযোগ্য উত্তরাধিকারী তারেক জিয়া এখন হামলায় মামলায় বিপন্ন হয়ে লনডনে আছেন। আপনিও হামলায় মামলায় কাবু হয়ে নিউ ইয়র্কে আটকা পড়েছিলেন, বড় গনতন্ত্রের সমস্যা আপনি বুঝবেন।

খালেদার ভরসা আলাদীন

নিজের অপর সন্তান আরাফাত কোকোর কথা উল্লেখ করে বেগম জিয়া বলেন, ছোট গনতন্ত্র বেংককে আটকা পড়েছে। তবে সে দুধভাত।

এডমিরাল জেনারেল আলাদীনকে অবিলম্বে বাংলাদেশে হামলা করে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনার অনুরোধ করে খালেদা জিয়া বলেন, ওয়াদিয়া সারা পৃথীবিতে গনতন্ত্র কায়েমের জন্য প্রসিদ্ধ। আপনি আপনার টেংক ও বন্দুক লয়ে শিঘ্র বাংলাদেশে আসুন, বাকশালী শেখ হাসিনাকে খতম করুন।

চিঠির সংগে সিগমা হুদার একটি ছবি ভাতের আঠা দিয়ে সংযুক্ত করে খালেদা জিয়া এডমিরাল জেনারেল আলাদীনকে লিখেছেন, বাংলাদেশে একটি বিবাহ করে যান। আপনার চেরাগের কুন সমস্যা হবে না। বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনাময় একটি দেশ।

January 31, 2013

বিজয় প্লাস এখনও বাজারে না আসায় পল্লীবন্ধুর হুমকি

নিজস্ব মতিবেদক

সচ্ছল বিত্তবান কিন্তু গোপন সমস্যায় আক্রান্ত মানুষের শেষ ভরসা বিজয় টেবলেটের বর্ধিত সংস্করন ‘বিজয় প্লাস’ এখনও বাজারে না আসায় বিশিষ্ঠ তথ্য প্রযুক্তবীদ ও বাংলার জবস মোস্তফা জব্বারকে কঠর হুমকি দিয়েছেন সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু আলহাজ্জ্ব হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

আজ নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পল্লীবন্ধ এ হুমকি দেন।

সাবেক স্বৈরাচার এরশাদ বলেন, জব্বার তার গোপন লেবরেটরীতে পরীক্ষা নিরীক্ষা করার জন্য আমার কাছ থেকে গত সাত মাসে সাড়ে সাত লক্ষ টেকা লয়েছে আগাম। অথচ কামের নাই নাম।

বিজয় প্লাসের বিকল্প

মোস্তফা জব্বারের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে এরশাদ বলেন, কাগু একটি অভিশাপ। মুঠোফোন মারলে সে বলে, তিষ্ঠ, কাজ অতি অল্প অবশিষ্ঠ। এদিকে মুন্নী সাহা আমায় বিরক্ত করে। খালি বলে, কিছু হল?

আবেগঘন কণ্ঠে পল্লীবন্ধু বলেন, জব্বার যদি আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বিজয় প্লাস বাজারে না ছাড়ে, আমি তাকে মাইনাস করে দিব। তার পরিনতি হবে সাংসদ গোলাম রেজার মত ভয়ানক।

মোস্তফা জব্বারকে মাইনাস করা হলে বিজয় প্লাসের বিকল্প কি হবে, মতিবেদকের এমন প্রশ্নের জবাবে পল্লীবন্ধু বলেন, আল্লাহ মধ্যাকর্ষন যেমন দিয়েছেন, তেমন হাইড্রজেনও দিয়েছেন। আমি বেলুন ফুলাব।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে একটি ছবি দেখিয়ে পল্লীবন্ধু বলেন, আজন্ম সলজ্জ সাধ একদিন বাসাতে কিছু ফানুস ফুলাই।

মুন্নী সাহাকে উদ্দেশ করে এরশাদ বলেন, সে যে যখন তখন ফুনে করে জ্বালাতন, এইবার আসুক তারে আমি মজা দেখাব।

January 30, 2013

সাঈদীর মেশিন সংরক্ষনের আবেদন করল ছাত্রী সংস্থা

নিজস্ব মতিবেদক

জামায়াতে ইসলামীর সাবেক খানকির পোলায়ে নায়েব বাচ্চু রাজাকারের নেয় জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব, বিশিষ্ঠ ইসলামী চিন্তাবীদ, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের নিষ্ঠুর বলি, ইসলামের বাগানে ফুটন্ত গোলাপ আল্লামা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের বিচারে মৃত্যু দন্ড দেওয়া হলে মৃত্যুর পর আল্লামা সাঈদীর মেশিন সংরক্ষনের জন্য প্রধান মন্ত্রীর দরবারে আবেদন পত্র দাখিল করেছে ইসলামী ছাত্রী সংস্থা।

অস্পস্ট সাক্ষর বিশিষ্ঠ এই আবেদন পত্রে বলা হয়, আল্লামা সাঈদী ইসলামী ছাত্রী সংস্থার সদস্যদের গত ৩৪ বছর ধরে আনন্দ দিয়েছেন। তার মধুর কণ্ঠের বানী ও পানের শক্তিতে চালিত মেশিনের মোহে আকুল হয়ে ইসলামী ছাত্র শিবিরের অনেক পুরুষও ছদ্মবেশে ইসলামী ছাত্রী সংস্থার সদস্য পদ গ্রহন করে আল্লামা সাঈদীর সংগে ফোনে ও টেবিলে মধুর সময় অতিবাহিত করেছেন।

রাশপুটিনের মেশিন

এমতাবস্থায়, মৃত্যুর পর তার সাড়ে সাত ইঞ্চি দির্ঘ ও ওয়ান এন্ড হাপ ইঞ্চি পুরু মেশিনটিকে কবরের আযাবে দাখিল না করে তা পৃথক ভাবে সংরক্ষনের উদ্যোগ নেওয়ার জন্য আকুল আবেদন জানানো হচ্ছে।

এ বেপারে যথাযথ বেবস্থা নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফেক্টরীকে নির্দেশ দেওয়ার অনুরোধও করা হয় আবেদন পত্রে।

কারাগারে আল্লামা সাঈদীর সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ছাত্রী সংস্থার নাতনীদের জন্য আমি আমার মেশিনটি মালে গনিমত হিসাবে ওয়াকফ করিয়া দিব। কুন চিন্তা নাই।

January 30, 2013

রামপালের কুন ক্ষতি হবে না: পংকজ শরন

নিজস্ব মতিবেদক

ভারতীয় রাস্ট্রদুত পংকজ শরন বলেছেন, রামপালের কুন ক্ষতি হবে না।

আজ ভারত-বাংলাদেশ যৌথ উদ্যোগ নির্মানাধীন কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুত কেন্দ্র পরিদর্শন করতে গিয়ে পংকজ শরন এ কথা বলেন।

পংকজ শরন বলেন, আমাদের কারখানায় ঢুকাবেন কয়লা, বাইর হবে গুলাপ ফুল। একবিংশ শতাব্দীর টেকনলজি দিয়া আমরা সকল বালা মুসিবত দুর করব ইনশাল্লাহ।

ভারত রামপালের ক্ষতি করবে না: পংকজ শরন

সুন্দরবন অঞ্চলে মশার প্রকোপের কথা তুলে ধরে পংকজ শরন বলেন, সুন্দরবন অঞ্চলে কবুতরের মত বড় বড় মশা। তারা এক চুষায় এক মামের বুতল সমপরিমান রক্ত খায়। সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা নিয়া আপনারা উদ্বিগ্ন। কিন্তু বাঘ মরে কিরুপে? বাঘ মরে মশার কামড়ে। আমাদের রামপাল বিদ্যুত কেন্দ্রের ধুয়ায় এই অঞ্চলের মশা দুর হবে। বাঘের দেহে থাকবে লাবন্য, মনে থাকবে আনন্দ। ঘরে ঘরে এরসল কয়েল মশারীর খরচ কমবে।

আবেগঘন কণ্ঠে পংকজ শরন বলেন, মিথ্যা কথা বলি ত গু খাই।

Tags:
%d bloggers like this: