Archive for March 21st, 2013

March 21, 2013

রাস্ট্রপতির গদি নিয়ে সংঘাতের আশংকা, সমাধানে জব্বারের প্রস্তাব

নিজস্ব মতিবেদক

প্রবীন রাজনীতীবীদ ও মহামান্য রাস্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের মৃত্যুর পর বাংলাদেশের রাস্ট্রপতির গদি নিয়ে সংঘাতের আশংকা দেখা দিয়েছে।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের আসামী যুদ্ধাপরাধী বৃহত্তর জামায়াতের সাবেক খানকির পোলায়ে আমীর অধ্যাপক গোলাম আযম ও সাবেক স্বৈরাচার রাস্টপ্রতি ও পল্লীবন্ধু আলহাজ্জ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, উভয়েই বাংলাদেশের রাস্ট্রপতি হওয়ার অভিলাশ বেক্ত করেছেন।

রাস্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পর পরই বংগবন্ধু মেডিকেলের কারা কক্ষে বন্দী গোলাম আজম আনন্দে উলু ধ্বনি করেন। তারপর তিনি নার্স ও ডাক্তারের মাধ্যমে বাকশালী সরকারের কাছে রাস্ট্রপতি হওয়ার আবেদন দাখিল করেন।

আবেদনে গোলাম আজম বলেন, জিল্লুর রহমানের মৃত্যুতে বাংলাদেশের রাজনীতী এখন অভিভাবক শুন্য। মুরুব্বীদের বয়সী একমাত্র আমিই জীবীত আছি। অতএব আমাকে রাস্ট্রপতি বানান হউক। আমার আগে আবদুর রহমান বিশ্বাস রাস্ট্রপতি হয়েছিল। সেও রাজাকার ছিল। হুয়াটস দি প্রবলেম?

অপরদিকে পৃথক এক আবেদনে সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, আমি আগে রাস্ট্রপতি ছিলাম। আবার রাস্ট্রপতি হব বলে হাজার লাথি ঝাটা খেয়ে রাজনীতী করে যাচ্ছি। জিল্লুর রহমান বয়সে আমার ছুটই ছিলেন। রওশন এরশাদ ও বিদিশা বাদে সকলেই আমায় মুরুব্বী মানে। কাজেই আমিই হব নতুন রাস্ট্রপতি।

দুই আবেদনের কথা বুধবার সন্ধায় প্রকাশিত হলে রাজনীতীবীদ মহলে উত্তেজনাময় পরিস্থিতির সৃস্টি হয়।

আসন্ন সংঘাত ও উত্তেজনা ঠেকাতে এ সময় কার্যকরী ভুমিকা নিয়ে এগিয়ে আসেন তথ্য প্রযুক্তির দিকপাল বাংলার ষ্টীভ জবস মোস্তফা জব্বার।

জব্বারের বলী

এক সংবাদ সম্মেলনে জব্বার বলেন, আমি বিজয় টেবলেটের আবিস্কারক। উত্তেজনা প্রশমন নয়, বরং উত্তেজনা তৈয়ার করতেই আমি পটু। কিন্তু দেশের এই পরিস্থিতিতে আমি উত্তেজনা দুর করার একটি কায়দা আবিস্কার করেছি।

দুই নেতাকে এক টেবিলে আসার আহ্বান জানিয়ে জব্বার বলেন, গোলাম আজম ও এরশাদের মধ্যে এক ঐতিহাসিক জব্বারের বলী অনুষ্ঠিত হবে। কুস্তিতে তাদের দুইজনের মধ্যে বিজয়ীকে রাস্ট্রপতি বানান হবে ও পরাজিতকে যুদ্ধাপরাধী হিসাবে ফাঁসি দেওয়া হবে।

স্বচ্ছ নিরপেক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানের কুস্তি নিশ্চিত করার আশ্বাস দিয়ে জব্বার বলেন, আমি নিজে রেফারী থাকব। হুয়াটস দি প্রবলেম?

%d bloggers like this: