অবেবস্থাপনার কারনে এরশাদকে দুষলেন হেফাজত নেতৃবৃন্দ

নিজস্ব মতিবেদক

শাহবাগে ফেসিবাদী বাকশালী মঞ্চের প্রতিবাদে মতিঝিলে ফঞ্চের আয়োজনে অবেবস্থাপনার কারনে সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু আলহাজ্জ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের উপর দোষারপ করেছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর কওমী মাদ্রাসা শাখা হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে এরশাদের প্রতি এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী।

বাবুনগরী বলেন, এরশাদের প্রতি লোকজন কেন গোস্বা করে তা আমি ছুটকালে বুঝতাম না। বড় হওয়ার পরও তাকে আমার ভালই লাগত। সে জেনারেল ছিল, প্রেছিডেন্ট ছিল, জাতীয় পার্টির চেয়ারমেন ছিল। অবসরে সে কবিতা লিখিত, পর্দানশীন শরীফ বংশের মেয়েদের সংগে নিরবে নিভৃতে দিলের সওগাত বদল করত। কিন্তু ঝানু লোকে তাহাকে আড়ালে কেন কুত্তার বাচ্ছা বলিয়া গালি দিত আমি বুঝি নাই।

আবেগঘন কণ্ঠে বাবুনগরী বলেন, মতিঝিলে ফঞ্চ করতে গিয়া আমি ঠাহর করিতে পারলাম, কেন এরশাদকে লোকে কুত্তার বাচ্ছা বলে।

এরশাদের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বাবুনগরী বলেন, সালা রাশকেল আমাদের শুরুতে বলল, তুমরা ঢাকায় আস পথে তুমাদের পানি দিব। আমরা আসিয়া পড়লাম। পথে বিভিন্ন জায়গায় সে আমাদের পানি দিল, রুটি দিল, কলা দিল। অথচ মতিঝিলে আসিয়া পৌছানর পর দেখি পিশাবের কুন বন্দবস্ত নাই। পাইখানা ত দুরের কথা।

দীর্ঘ লাইন

ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বাবুনগরী বলেন, আমরা গ্রামে গঞ্জে ওয়াজ মাহফিল করি। পিশাব পাইখানা সেখানে কুন ভাবনার বিষয় নহে। যে কুন দিকে পঞ্চাশ কদম হাটা দিলেই মনোরম কুন স্থানে যতক্ষন ইচ্ছা বসিয়া কর্ম করা সম্ভব। নদীমাতৃক বাংলাদেশে মাশা আল্লাহ পানিরও কুন অভাব নাই। আজকাল পাতলা পাতলা কাগজ বাজারে পাওয়া যায়, তাকে বলে ট্রান্সকম টিসু পেপার, পকেটে এক বান্ডিল থাকিলে ১ বতসর কুন চিন্তা নাই। কিন্তু মতিঝিল ত গ্রাম নহে। মতিঝিলে পিশাব পাইখানার এন্তেজাম করবে কে?

অশ্রু মুছে বাবুনগরী বলেন, পানির বেবস্থা যে করে, পিশাবের বেবস্থাও তাকেই করতে হয়। রুটি কলার আয়োজন যিনি করেন, পাইখানার সুযুগ সুবিধাও তাকেই মেনেজ করতে হয়। অথচ মোনাফেক এরশাদ আমাদের জন্য পিশাব পাইখানার কুন শিশ্টেমই রাখে নাই। ঘন্টার পর ঘন্টা আমরা পিশাবের বেগ, পাইখানার চাপ সহ্য করে নাস্তিকদের বিরুদ্ধে জেহাদ করেছি।

সরকারের প্রতি নিন্দা জ্ঞাপন করে বাবুনগরী বললেন, নাস্তিক শাহাবাগীদের জন্য সিটি কর্পরেশন পাইখানার গাড়ি পাঠায়। আর মুমিন মুজাহিদদের জন্য বাস ট্রাক লঞ্চ আটকানর পর পাইখানার গাড়িও তারা আটকাই রাখে।

ভবিষ্যতে ফঞ্চের জন্য পাইখানার সুবন্দবস্ত করা না হলে ৪৫ কুটির পরিবর্তে ৯০ কুটি টেকা দাবী করে বাবুনগরী বলেন, লাখো মুজাহিদের পিশাব পাইখানার দায় এরশাদকেই নিতে হবে। মনে রাখবেন এরশাদ সাহেব, আমরা আপনার বাসার ঠিকানা জানি। পাইখানা আমাদের কাছে না আসিলে আমরা পাইখানার কাছে যাব।

শাহবাগে গন জাগরন মঞ্চের উপর আক্রমনের অভিযোগ অস্বীকার করে বাবুনগরী বলেন, কতিপয় চেংড়া আলেম অলিতে গলিতে পিশাবের পর কুলুখ চাপিয়া সত্তর কদম হাটা ধরেছিলেন। হাটতে হাটতে শাহবাগ পর্যন্ত তারা গিয়ে থাকতে পারে। উহা আক্রমন নহে।

এ বেপারে এরশাদের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি যখন রাস্ট্রপতি ছিলাম, দেশে পলিথিন শিল্প বিকশিত হয়েছিল। পরবর্তী সরকার এসে এই শিল্পকে ধ্বংস করে। আমায় আবার রাস্ট্রপতি নির্বাচন করা হলে আমি আবার পলিথিন শিল্পের উন্নতি করব।

3 Comments to “অবেবস্থাপনার কারনে এরশাদকে দুষলেন হেফাজত নেতৃবৃন্দ”

  1. হাসতে হাসতে পড়ে গেলাম।

  2. চরম হইছে…..।

  3. পর্দানশীন শরীফ বংশের মেয়েদের সংগে নিরবে নিভৃতে দিলের সওগাত বদল করত, what a noble act

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: