শাহবাগের ফেসিবাদিনীদের বক্ষ ছুড: হাই

সাহিত্য মতিবেদক

কারওয়ানবাজারের দেওয়ালে শাহবাগের ফেসিবাদিনী বাকশাল কর্মীদের নিয়ে চটি গল্প লিখে ফেসবুক ব্লগ সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে আজ মতিকণ্ঠ কার্যালয়ে এক অন্তরংগ সাক্ষাতকারে উপস্থিত হয়েছিলেন দুই বাংলার আদিরসাত্মক সাহিত্যের দিকপাল ও বৃহত্তর জামায়াতের সাহিত্য শাখার খানকির পোলায়ে আমীর আল্লামা হাসনাত আবদুল হাই।

মতিবেদকের সংগে অন্তরংগ সাক্ষাতকারে হাসনাত আবদুল হাই বলেন, শাহবাগের ফেসিবাদিনীদের বক্ষ ছুড। তারা ওড়না পরিধান করলেই কি আর না করলেই কি।

হাই বলেন, শাহবাগে রেপ হয়, ড্রাগস হয় শুনে আমি সেখানে গিয়েছিলাম। অগনিত তরুনী সেখানে উপস্থিত হয়েছিল। তাদের সবার বুক চেপ্টা। আমি লক্ষ লক্ষ মানুষের জন সমুদ্রের মধ্যে ঠেলাঠেলি করে হেটে হেটে পুরা শাহবাগ ঘুরে রেপ ও ড্রাগসে লিপ্ত তরুনীদের নিকট হতে দেখেছি। তাদের একটি স্তন সর্বদা উড়না দ্বারা আবৃত, অপরটি উড়নার বাহিরে। কিন্তু কুন লাভ হয় নাই। বক্ষ দেখিয়া তাহারা নারী নাকি পুরুষ তাহা আন্দাজ করা অতিশয় কঠিন ছিল।

বুক নাই ত সুখ নাই: হাই

কেন তিনি শাহবাগের তরুনীদের বুক দেখলেন, এ প্রশ্নের জবাবে আল্লামা হাই বলেন, বুক নাই ত সুখ নাই।

শাহবাগে সম্প্রতি ফেসিবাদ, রেপ ও ড্রাগস ঝিমিয়ে এসেছে উল্লেখ করে হাসনাত আবদুল হাই বলেন, ছুড বক্ষের নারীরা যে আন্দুলনের নেতৃত্ব দেয় তাহা কখনই কামিয়াব হবে না। আমাদের যৌবনে ফতিমা জিন্না আইয়ুব খানের সংগে পাল্লা দিতে গিয়াছিলেন। পারেন নাই। তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। তার কারন একটাই, তিনি ছিলেন বুড়ি, তার বুক ছিল চীনের দেওয়ালের নেয় সমান। বরং আইয়ুব খানের স্তন যুগল বেশ বড় ছিল।

শাহবাগের পুরুষ নেতাদের প্রশংসা করে হাসনাত আবদুল হাই বলেন, শাহবাগের পুরুষ ফেসিবাদীদের অনেকেরই বড় বড় গোলগাল বক্ষ দেখেছি। আমি তাদের লইয়া খুবই আশাবাদী।

নিজের স্ত্রী কন্যা নাতনী নিয়ে গর্ব করে আল্লামা হাই বলেন, আমার ঘরে মাশা আল্লাহ সবারই ইয়া বড় স্তন। তারা শাহবাগে গেলে কাপাইয়া দিত। আল্লাহর রহমতে তারা ঘরে চার দেওয়ালের ভিতরেই ছিল, শাহবাগে রেপ ড্রাগসের মধ্যে যায় নাই।

ভবিষ্যতে শাহবাগের ফেসিবাদিনীদের নিয়ে আরও গল্প উপন্যাস রচনার আশাবাদ বেক্ত করে হাসনাত আবদুল হাই বলেন, রসময় গুপ্ত ওরফে শফিক রেহমান বর্তমানে অবসরে আছে। তাই বলে চটি সাহিত্য ত বন্ধ থাকতে পারে না। থাকিতে আবদুল হাই, কুনই চিন্তা নাই।

13 Comments to “শাহবাগের ফেসিবাদিনীদের বক্ষ ছুড: হাই”

  1. সময়ের প্রয়োজনে, জাতির বৃহত্তর স্বার্থে হাই হোগার পুতের গুয়া দিয়া রসময় গুপ্তের চটি সমগ্র ঢুকানো হোক।

  2. লেখাটা খুবই বাজে হয়েছে। বাঁশটা কাকে দিয়েছেন ? হাসনাত আব্দুল হাইকে না প্রথম আলোকে না তার বাসার মেয়েদেরকে?

  3. স্ত্রী কন্যা নাতনির লাইনটা বাদ দিলেও পারতা।

  4. নব্য রসময় গুপ্ত

  5. শাহীন ভাই লাইনটা বাদ দিবে কেন? হারামজাদা বুইরা বলতে পারলে মতিও বলতে পারবে

  6. Matikandho, pls withdraw this perverted piece! your one is even worse than the original one. SHAME on such SICK satire!

  7. বরং আইয়ুব খানের স্তন যুগল বেশ বড় ছিল।

  8. এই হালা বুড়া বাইঞ্চোদ ছাত্রীনেতার স্লোগান দেইখা হাত মারে, সো হালার বউ বেটির দুধের কথা চিন্তা কইরা আমরাও হাত মারি আরকি, সমিস্যে কই?

  9. Could it be possible that one of the many reasons Moti-r Alo withdrew the original article by Hasnat Abdul Hye was this ‘sick satire’ or ‘perverted piece’ or ‘khub e baje lekha’? How many of the readers really were aware of (as well as troubled) the original ‘perverted article’ by Hye before reading this one?

  10. shala kuttar bachha

  11. গালি ছাড়া আজকাল জমে না , হতাশা প্রত্যাশা গুলারে বিভিন্ন মাত্রিক এর গালিগালাজ দিয়া ….তাড়না – বাসনা কে নর্দমার গান্ধার সাথে কসাইয়া কসাইয়া (উপস্থাপন বলা টা মানাবে না ) গলায় আঙ্গুল দিয়া হড় হড় করে বের করা টাই মডার্ন সাহিত্য

  12. @Irina,where was your moral sense when the bull shit was published in Protho Alo ?

  13. Irina apne sustho acen?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: