বাকশালী সরকার রজনীকান্তের সাহায্যে লাশ গুম করেছে: আনোয়ার

নিজস্ব মতিবেদক

বিগত ৫ মে দিবাগত রাত্রে বাকশালী সরকারের ফেসিবাদী পুলিশ রেব ও বিজিবির সমন্বয়ে গঠিত যৌথ বাহিনীর নির্মম আক্রমনে মতিঝিলে শাপলা চত্বরে জিহাদে বেস্ত ৫০ হাজার মুজাহিদের হত্যা কান্ড সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার নায়েবে আমীর মতি কণ্ঠ আনোয়ার ওরফে এম কে আনোয়ার।

আজ বাকশালী সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী ও সাবেক স্বরাস্ট্র মন্ত্রী এবং নিখিল বাংলাদেশ হোটেল মালিক সমিতির সভাপতি এডভকেট সাহারা খাতুনের মালিকানাধীন বিলাস বহুল আরাম দায়ক হোটেল এমপেরিয়াল এন্ড গেষ্ট হাউসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন মতি কণ্ঠ আনোয়ার।

আনোয়ার বলেন, আপনারা সবাই জানেন, বিগত ৫ মে বাকশালী সরকার মতিঝিলে মুজাহিদগনের উপর কি নির্মম হত্যা যজ্ঞ চালিয়েছে। সারা দুনিয়া আজ এর নিন্দায় মুখর। দেশে দেশে এম পি মন্ত্রীদের চোখে আজ পানি। ৫০ হাজার মুজাহিদ সেদিন নিহত হন। আরও ৫০ হাজার আহত হন। শহীদের রক্তে সেদিন মতিঝিল ভেসে যায়। একাত্তর এর কাছে কিছুই না। পাকিস্তানীরা একাত্তর সালে কিছু দুমদাম ঠুশঠাশ করেছিল শুধু।

আবেগঘন কণ্ঠে মতি কণ্ঠ আনোয়ার বলেন, পরদিন সকালে আমি মর্নিং ওয়াকে গিয়া দেখি শুধু লাছ আর লাছ। আমি স্থানীয় বাদাম বুট বিক্রেতার নিকট হইতে দশ টেকার বুট ক্রয় করি। হাওয়া ভবনের চান্দা হিসাবে সেই দশ টেকার এক টেকা পুনরায় তার নিকট হইতে আদায় করি। তারপর বুট চিবাইতে চিবাইতে লাছ গননা শুরু করি। ৫০ হাজারে গিয়া আমার গননা শেষ হয়। আর বাকশালী সরকার কিনা এই হত্যা কান্ড অস্বীকার করে। ৫০ হাজারের একজন যদি কম মরছে ত গু খাই।

মতিঝিলে রাত্র কালে পুলিশী অভিযানে রজনীকান্ত

এত লাশ কোথায় গেল, এ প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার প্রকাশ করেন এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। তিনি বলেন, বাকশালী সরকার রজনীকান্তের সাহায্যে ৫০ হাজার মুজাহিদের লাছ গুম করছে।

মতি কণ্ঠ আনোয়ার ভারতের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রজনীকান্ত একজন হিন্দু ও ইনডিয়ার লোক। এতেই প্রমানিত হয় সে বাকশালী সরকারের বন্ধু ও মুমিন মুসলমানের শত্রু। সেদিন ৫ মে দিবাগত রাত্রে পুলিশ রেব বিজিবির সংগে রজনীকান্তও অংশ নিয়াছিল। পরদিন সকালে আমার মর্নিং ওয়াকের পর সে এই ৫০ হাজার লাছ গুম করে। তাই কুন ডেডবডি লইয়া আমরা মিছিল করতে পারি নাই।

এই ৫০ হাজার শহীদের পরিবারের সদস্যরা তাহলে কেন প্রকাশ্যে প্রতিবাদ করছে না, এমন প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার বলেন, রজনীকান্ত উহাদের পরিবারকেও গুম করিয়া থাকতে পারে।

অবিলম্বে আন্তর্জাতিক আইনে রজনীকান্তের বিচার দাবী করে মতি কণ্ঠ আনোয়ার বলেন, লাছ গুমকারী রজনীকান্তের ফাসি চাই দিতে হবে।

এ বেপারে রজনীকান্তের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিবেদককে বলেন, মতি কণ্ঠ আনোয়ারের সংগে আমার ৬ মে সকাল বেলা মতিঝিলে দেখা হয়েছিল। সে আমার নিকট হতে দশ টেকা ধার লইয়া বাদাম বুট কিনল। তারপর বাদামওলার নিকট হইতে এক টেকা চান্দা আদায় করল। তারপর আমায় বলল, তুমাদের এই ঋন কুনদিন শুধ হবে না।

7 Comments to “বাকশালী সরকার রজনীকান্তের সাহায্যে লাশ গুম করেছে: আনোয়ার”

  1. o hey moti tu great ../.

  2. এ বেপারে রজনীকান্তের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিবেদককে বলেন, মতি কণ্ঠ আনোয়ারের সংগে আমার ৬ মে সকাল বেলা মতিঝিলে দেখা হয়েছিল। সে আমার নিকট হতে দশ টেকা ধার লইয়া বাদাম বুট কিনল। তারপর বাদামওলার নিকট হইতে এক টেকা চান্দা আদায় করল। তারপর আমায় বলল, তুমাদের এই ঋন কুনদিন শুধ হবে না।

  3. It was great

  4. O Moti…তুমাদের এই ঋন কুনদিন শুধ হবে না। ❤

  5. এত সকালে মতি কন্ঠ আনোয়ারের সাথে আপনি কি করছিলেন – এ কথা জিজ্ঞেস করা হলে রহস্যময় হাসি হেসে রজনীকান্ত বলেন, “কিছু কথা থাক না গুপন।”

  6. পোস্ট এতো কম কেন? আরও পোস্ট চাই। ঘন ঘন………।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: