Archive for August, 2013

August 31, 2013

‘শক্তি দই’ সম্পুর্ন নিরাপদ: বাবুনগরী

রসায়ন মতিবেদক

ফ্রান্সের ডানন কম্পানী ও বাংলাদেশের গ্রামীন কম্পানীর সম্মিলিত বেবসা ‘গ্রামীন-ডানন দধি কোং’ কতৃক উতপাদিত বিতর্কিত ‘শক্তি দই’ ভক্ষনের ফলে ৫ মে কালরাত্রে রাজধানীর মতিঝিল শাপলা চত্বরে অরাজনৈতিক জংগি সংগঠন হেফাজতে ইসলামের ৬১ জন মর্দে মুজাহিদের এনতেকাল প্রসংগে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখা কতৃক গঠিত গোপন তদন্ত কমিটির রিপট প্রত্যাখ্যান করেছেন সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ, গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক ও ‘শক্তি দই’-এর ব্রেন্ড এমবেসেডর ও পোষ্টার বয় ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরী।

আজ মিরপুরের কাশিমবাজারে গ্রামীন বেংক ভবনের একাংশ দখল করে গঠিত কুঠিবাড়ির গদি ‘বাবুনগরী সেন্টার’-এ আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন বাবুনগরী।

ইউনূস বলেন, রসায়ন একটি রহস্যময় বেপার। কিছুই না জানিয়া ফট করিয়া কুন বিখ্যেত পন্যের বদনাম রটান কুন ভদ্র সভ্য মার্জিত তদন্ত কমিটির আচরন হতে পারে না। আমি বিএনপি শাখার তদন্ত কমিটির রিপট প্রত্যাখ্যান করলাম।

আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, গরীবের উপকার করতে গেলে পদে পদে খালি বাধা বিঘ্ন। ফ্রান্সের ডানন কম্পানী দই বানায়। তারা মার্কিন যুক্তরাস্ট্রে কিছু দই রপ্তানী করতে গেছিল। যুক্তরাস্ট্রের খাদ্য মন্ত্রনালয় সেই দই পরীক্ষা করিয়া ফতোয়া দিল, দই নাকি ভাল না। আরে ঘোচুর দল, তুরা খালি পপ্পন হড্ডগ হেমবার্গার খাছ, ননী-দধির গুন তুরা কি বুঝবি? সারা দুনিয়ায় দুদুর সেরা দুদু হয় ফ্রান্সে, তাদের বানান দইয়ের বদনাম তুরা কুন মুখে করছ? ডানন কম্পানীর আমীর আমায় মুঠোফুন মারিয়া বলল, বাবুদা দইগুলি দিয়া কি করব? ফালাইয়া দিব? আমি বললাম, হে আমীরে ডানন! আপুনি দইগুলি বাংলাদেশের গরীবকে কম দামে খাওয়াইয়া দিন। তাতে করিয়া আপুনি সারা দুনিয়ায় বুক ফুলাইয়া বলতে পারবেন, আপুনি গরীবের বন্ধু। এতে করে আপনার বিজনেশে টেকার খাতে সামান্য লছ হইলেও সুনামের খাতে শুদু লাভই লাভ হবে। ডানন কম্পানীর আমীর আমায় বললেন, কিন্তু বাবুদা তাতে আপনার কী লাভ? আমি তাকে রহস্য করিয়া বললাম, হোয়াটিজ লাভ?

শক্তি দই বৃদ্ধের দেহে আনে যুবকের বল

‘শক্তি দই’ এর একটি কৌটা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরে বাবুনগরী বলেন, ‘শক্তি দই’ এর নাম খামখা ‘শক্তি দই’ নহে। এতে আছে ভিটামিন, মিনারেল ও একটি গুপন ফরমুলা। বাকশালী তথ্য প্রযুক্তিবীদ বাংলার জবস মোস্তফা জব্বারের অকেজু বিজয় টেবলেটের বিপরীতে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মুল্যবধে উজ্জীবীত শিকড় বাকড়ের রস দিয়া ‘শক্তি দই’ প্রস্তুত করা হয়েছে। আমার সন্দেহ, মোস্তফা জব্বারের প্ররচনাতেই বিএনপি শাখার তদন্ত কমিটি শক্তি দইয়ের বদনাম রটাইতেছে।

বিএনপি শাখার নায়েবে আমীর আল্লামা সাদেক হোসেন খোকা কতৃক সরবরাহকৃত রুটি কলা খিরাই বিস্কুটের উপর দোষারপ করে বাবুনগরী বলেন, রাসায়নিক সমস্যা যদি থাকে, তাহলে আছে ঐ রুটি কলা খিরাই বিস্কুটে। আমার শক্তি দই এর বদনাম করবেন না। বদনামের আগে একটা গপ শুনেন। চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় হাতিটার বাচ্চা হইতেছিল না। চিড়িয়াখানার আমীর একদিন আমায় মাছের বাজারে ছালাম দিয়া বলল, বদ্দা একটা উপায় বলেন, শুনিয়াছি আপনি ইদানীং নানা বুদ্ধি পরামিশ দিতেছেন। আমার হাতিটার কি বেবস্থা করব? আমি বললাম, এক বালতি শক্তি দই খাওয়ায় দেও। বললে ত আপনারা বিশ্বাস করবেন না হাজেরানে মজলিশ, হাতিকে এক বালতি শক্তি দই খাওয়ানর পর হাতির ত বাচ্চা হইলই, সিংহের বাচ্চা হইল, বাঘের বাচ্চা হইল, ভল্লুকের বাচ্চা হইল, চিড়িয়াখানার আমীরেরও বাচ্চা হইল। তারপরও আপনারা পরওয়ারদেগারের কুন নিয়ামত অস্বিকার করবেন?

‘শক্তি দই’কে রাসায়নিক অস্ত্র ডাকার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাবুনগরী বলেন, রাসায়নিক অস্ত্র নয়, শক্তি দই হইল অস্ত্রের রাসায়নিক। সাবধান জব্বার, তুমার ফালতু টেবলেট জেবে ভরে তুমি পলায়ে যাও। শক্তি দই এর কথা জানতে চাও, ত শেরন স্টনরে গিয়া জিগাও।

August 31, 2013

রাজনীতীবীদদের প্রতি সোহেল রানার হুশিয়ারী

নিজস্ব মতিবেদক

দেশের সকল দলের রাজনীতীবীদদের সতর্ক করে দিয়ে দেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক এবং সাবেক স্বৈরাচার ও পল্লীবন্ধু আলহাজ্জ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বিশেষ উপদেষ্টা মাসুদ পারভেজ ওরফে সোহেল রানা বলেছেন, চুলের সংগে রাজনীতী মিশাবেন না। মিশালে খবর হেজ।

শুক্রবার বাদ মাগরিব নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাজনীতীবীদদের সতর্ক করে দেন সোহেল রানা।

সোহেল রানা বলেন, রাজনীতী আমাদের জীবনের সর্ব স্তরে নানা প্রকার হাংগামা তৈয়ার করেছে। কিন্তু চুল আছিল এইসব হাংগামা হতে মুক্ত। কিন্তু রাজনীতীর ময়দানে বড় বড় খেলোয়াড় যারা আছেন, তারা এখন চুলের উপর রাজনীতীর গজব ফালাইয়া দিছেন। এ মেনে নেওয়া যায় না।

আশি বতসর ধরে ঘন কাল কেশের মালিক সোহেল রানা

আবেগঘন কণ্ঠে সোহেল রানা বলেন, গত কয়েক সপ্তা ধরিয়া খালি শুনতেছি চুল উড়িয়া যাবে চুল উড়িয়া যাবে। এই দলের মালিক ওই দলের মালিকরে হুমকি দিয়া বলতেছেন, তোমার চুল নকল, বাতাস দিলেই উড়িয়া যাবে। সকালে রুটি কলা খিরাই বিস্কুট খাইয়া এক কাপ চা নিয়া পেপার খুললেই দেখি এই দলের নায়েব ওই দলের নায়েবরে বলতেছেন, তর মালকিনরে কইছ, বাতাস দিলেই চুল যাইবগা। আমরা কি এই বাংলাদেশ চেয়েছিলাম? চুল সে পরের হোক বা নিজের হোক, উড়ান কুন ভদ্রলোকের কাম নহে।

সংবাদ সম্মেলনের এক পর্যায়ে সোহেল রানা কাদতে কাদতে বলেন, চুল উড়ান কুন ভাল কাম নহে। আসুন আমরা যে যার চুলের হেফাজত করি। আল্লাহ রসুলের দোহাই লাগে, বাতাস দিবেন না। বাতাস দিলে সমাজে নানা সমস্যা দেখা দেয়।

চুল উড়ান নিয়ে বাকযুদ্ধে লিপ্ত বাকশালের নায়েবে আমীর মোহাম্মদ নাসিম ও তোফায়েল আহমদ এবং বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে সতর্ক করে দিয়ে সোহেল রানা বলেন, আমার ছুট ভাই রুবেল কুংফু জানে। চুল নিয়া চুলাচুলি বন্ধ না করলে আপনাদের চুল থাকবে কিন্তু হাড্ডি থাকবে না। লাইনে আসুন।

August 30, 2013

মতিঝিলে ৬১ জনের মৃত্যু রাসায়নিক অস্ত্রে?

নিজস্ব মতিবেদক

৫ মে মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের ৬১ জন মুজাহিদের মৃত্যু রাসায়নিক অস্ত্রে ঘটে থাকতে পারে।

মতিকণ্ঠের নিজস্ব অনুসন্ধানে এ চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার নেতৃবৃন্দের হাতেও এ ধরনের তথ্য রয়েছে। তাই আচমকা মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের মর্দে মুজাহিদদের মৃত্যু নিয়ে দলটি নীরবতা অবলম্বন করেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার মহিলা আমীর বেগম খালেদা জিয়ার ঘনিস্ঠ সুত্র মতিকণ্ঠকে বলেন, বিএনপি শাখার নায়েবে আমীর মতি কণ্ঠ আনোয়ার নিজের চক্ষে মতিঝিলে ৫ মে কালরাত্রে বাকশালী পুলিশ, রেব ও রজনীকান্তের সম্মিলিত আক্রমনে ৫০ হাজার মুজাহিদকে নিহত ও ৫০ হাজার মুজাহিদকে আহত হতে দেখেছেন দাবী করায় শুরু থেকে বিএনপি শাখা জোর দিয়ে এ কথাটিই বলে আসছে। কিন্তু হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী নিহত ও আহত মুজাহিদ বাবদ ১৭৫০ কুটি টেকা বিল দাবী করায় পরবর্তীতে এ ঘটনা নিয়ে বিএনপি শাখা নিজস্ব তদন্ত কমিটি গঠন করে।

পুলিশের সংগে অন্তরংগ অবস্থায় ‘কানাবাবা’ শুভ্র

আবেগঘন কণ্ঠে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঘনিস্ঠ সুত্র বলেন, তদন্ত কমিটির রিপটে বেরিয়ে আসে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ, রেব বা রজনীকান্তের আক্রমনে নয়, মতিঝিলে ৬১ জন মর্দে মুজাহিদের মৃত্যু হয়েছে রাসায়নিক অস্ত্রে।

ঘনিস্ঠ সুত্র জানান, ৫ মে দিনের বেলা বিএনপি শাখার সংগে সম্পাদিত চুক্তি মতাবেক মতিঝিলে আগত মুজাহিদ বৃন্দকে বিএনপি শাখার নায়েবে আমীর আল্লামা সাদেক হোসেন খোকার তত্তাবধানে রুটি কলা খিরাই বিস্কুট সরবরাহ করা হয়। এ ছাড়া দুপুরের আহারের পর সরবরাহ করা হয় কায়েদে নোবেল ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরীর ফরমুলায় প্রস্তুত ‘শক্তি দই’। আর এই নিম্ন মানের রুটি কলা খিরাই বিস্কুট ও শক্তি দইয়ের রাসায়নিক ক্রিয়াতেই হেফাজতের ৬১ জন মুজাহিদ এনতেকাল করেন।

রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়গের কারনে সিরিয়ার উপর মার্কিন যুক্তরাস্ট্রের হামলার সম্ভাবনা বিএনপি শাখা গুরুত্বের সংগে পর্যবেক্ষন করছে বলে জানা যায়। ঘনিস্ঠ সুত্র বলেন, যদি সিরিয়ার বাকশাল আসাদের উপর ওবামা সত্য সত্যই আক্রমন করার হেডম প্রদর্শন করেন, তাহলে মতিঝিলে রাসায়নিক অস্ত্রের বেবহারের প্রতি উন্নত বিশ্বের দৃস্টি আকর্ষন করে বাংলাদেশের বাকশাল শেখের বেটীকেও হামলার মাধ্যমে গদিচ্যুত করার জন্য বিএনপি শাখা বিশ্ব জনমত গঠন করবে।

এ বেপারে দর কষাকষির লক্ষে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর বিএনপি শাখার দুইজন দুত জাতিসংঘের মহাসচিব বানকি মুনের আমন্ত্রনে জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে ফরিদ-মুকুল মেথডে ইংরাজী শিখছেন বলে ঘনিস্ঠ সুত্র মতিবেদকের কাছে স্বিকার করেন।

কারাবন্দী মানবাধিকার কর্মী আদিলুর রহমান ওরফে ‘কানাবাবা’ শুভ্রর বেপারে বিএনপি কি করবে জানতে চাইলে ঘনিস্ঠ সুত্র হাসতে হাসতে বলেন, ‘কানাবাবা’কে নিয়া আমাদের কুন মাথাবেথা নাই। তাছাড়া শুনলাম সে পুলিশের সংগে একটি মিস্টি অন্তরংগ সম্পর্ক গড়ে তুলেছে।

এসব তথ্যের জন্য নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঘনিস্ঠ সুত্রকে ধন্যবাদ জানিয়ে মতিবেদক বলেন, থেংকিউ ফালু ভাই।

August 30, 2013

ইসলামী মুল্যবধের সরকার গঠন করব: বাবুনগরী

নিজস্ব মতিবেদক

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারা দেশে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেওয়ার লক্ষে বাবুনাগরিক শক্তির নেতৃত্বে নতুন জোট গঠনের ইচ্ছা প্রকাশ করে সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক কায়েদে নোবেল ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরী বলেছেন, গদিতে গিয়া ইসলামী মুল্যবধের সরকার গঠন করব।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন বাবুনগরী। এ সময় তার সংগে ছিলেন সংবিধান প্রনেতা ড. কামাল হোসেন, ঘেঁটুনাগরিক শক্তির আমীর কাদের সিদ্দিকী ওরফে ঘেঁটুপুত্র কাদেরা, বাকশালে দলীয় কোন্দলের নির্মম শিকার ঘিমাখন বঞ্চিত কিংবদন্তী ছাত্রনেতা মাহমুদুর রহমান মান্না ও বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার দলীয় কোন্দলের নির্মম শিকার বিকল্পধারা বাংলাদেশের আমীর ডা. বদরুদ্দুজা।

বাবুনগরী বলেন, আজি হতে সাত বতসর পুর্বে কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান আজমী ও ইংরাজী সর্দার মহাফুজ আনাম আমার বাসায় আসিয়াছিল। মতিচুর আনছিল এক পেকেট বুনদিয়া আর আষ্টখান পরটা। আর মহাফুজ আনছিল দশ ইঞ্চি বেসের একটি পিজজা। আমি পিজজা বুনদিয়ার পেকেট বাবুর মার হাতে দিয়া তাদের বৈঠকখানায় বসাইলাম। বললাম, কি চাও এই অবেলায়? মতিচুর বলল, বাবুদা আপনাকে রাজনীতীতে নামতে হবে। নসিমন তখনই সুজাসুজি চলতে পারে যখন তার পাইলট থাকে একজন অভিজ্ঞ লোক। ঘরের বউদের হাতে নসিমন তুলিয়া দিলে তা এসকিডেন্ট করবেই। তারা নসিমন চালাইতে পারে না অথচ দেশ চালাইতে আছে। এইভাবে আর কত? মহাফুজ আনামকে ইংরাজীতে বলিলাম, হোয়াট সে ইউ? সে চোখে চোখ রাখিয়া বলল, এ কুইক ব্রাউন ফক্স জাম্পস ওভার এ লেজি ডগ। আমি চিন্তা করিয়া দেখলাম, মতিচুরের কথা সত্য। মহাফুজের কথা আরও সত্য। আমি তখন বললাম, ওক্কে বয়েজ, তুমরা যখন সাহস দিলা, আমি নাগরিক শক্তি গঠন করলাম।

ইসলামী মুল্যবধের সরকার গঠন করব: বাবুনগরী

আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, তারপর যা ঘটল তা ইতিহাসে সোনার অক্ষরে লিখা। আমায় গাছে তুলিয়া এই দুই বানচুদ মই কাড়িয়া চম্পট দিল। আমি না পাইলাম ক্ষমতা, না পাইলাম মমতা। জীবনে কুন বিজনেশে লছ খাই নাই, কিন্তু রাজনীতীর বিজনেশে নামতে না নামতেই লছের পর লছ। আমি মতিচুর মহাফুজরে মুঠোফুন মারিয়া বললাম, তোমরা একটা কিছু কর। তারা হাসতে হাসতে বলল, হোয়াটস আপ ডগ? আমি বুঝলাম, কুইক ব্রাউন ফক্সের বদলে তারা আমায় লেজি ডগ বানাইয়ালাইছে। তাই চুপচাপ বেবসা গুটাইয়া শান্তিতে শক্তি দইয়ের বিজনেশে ফিরত গেলাম।

কাদতে কাদতে বাবুনগরী বলেন, সেইখানেই যদি লছ খাওয়া বন্দ হইত আমার আপসস হইত না। কিন্তু শেখের বেটী ক্ষমতায় আসিয়া আমায় গ্রামীন বেংকের গদি হতে ঘেটী ধরিয়া বিতাড়ন করল। ইসকা বদলা মুঝে লেনা হি পড়েগা। তাই আমি সামনে ইলেকশনে কামাল-কাদের-মান্না-বদুকে সংগে নিয়া জোট গঠন করতেছি।

অশ্রু মুছে অধ্যাপক ইউনূস বলেন, আমাদের জোট বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী। সেই সংগে আমরা গদিতে গিয়া ইসলামী মুল্যবধের সরকার গঠন করব। আল্লামা শফীর বাংলায় নাস্তিকদের ঠাই নাই।

বানকি মুনের সংগে শেখ হাসিনার করমর্দনের ঘটনার কঠর সমালচনা করে বাবুনগরী বলেন, আজ ইসলামী মুল্যবধের সরকার থাকলে এমনটি হত না।

%d bloggers like this: