টেকা দেওয়ার আগে আসল নোবেল দেখে দিন: বাবুনগরী

নিজস্ব মতিবেদক

সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার প্রাপ্তির প্রলভনে পড়ে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরীর ‘দি জেনারেশন’ নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে ১ কুটি ৫০ লক্ষ টেকা দেওয়ায় কবি জসীমউদ্দীন আহমদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক কায়েদে নোবেল ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরী।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে কায়েদে নোবেল এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বাবুনগরী বলেন, পরমানু বিজ্ঞানীগুলি কুন কামেরই নহে। এই দেশে যতগুলি পরমানু বিজ্ঞানী ছিল সবই বেকুব। নাম বলব না, তবে একজনকে চিনতাম যিনি এক ভয়ংকর মহিলাকে বিবাহ করে বাকি জীবন লন্ডভন্ড করিয়াছিলেন। আল্লাহ তাকে বেহেস্তে নছিব করুন।

পরমানু বিজ্ঞানী জসীমউদ্দীনের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে ইউনূস বলেন, সে তিনটি কবিতার বই লিখিয়াছে। তার মধ্যে একটি আবার ইংরাজিতে। দি জেনারেশন নামের এনজিওটির আমীর সানোয়ার হোসেন তারে গিয়া বলছে, কাকু আপনার লিখা মারাত্মক। ২০১২ সালে আপনিই নোবেল পাবেন। আমরা এই দেশে নোবেলের একমাত্র বৈধ ডিষ্ট্রিবিউটার। তবে নোবেল এমনি এমনি আসে না। কিছু খরচাপাতি লাগে। ৩ কুটি টেকা খরচ হয় সব মিলাইয়া, তবে আপনার জন্য এক দাম ১ কুটি ৫০ লক্ষ টেকা।

আবেগঘন কণ্ঠে বাবুনগরী বলেন, দি জেনারেশনের হারামজাদা আমীর ২০০৬ সালে আমার কাছেও আসছিল। তখন তার রেট ছিল কম। আমায় আসিয়া সে বলল, বদ্দা ১ কুটি টেকা দিলেই অর্থনীতীতে নোবেল পাইয়া যাবেন। আমি তারে বললাম, আমায় অর্থনীতীতে কুন দুঃখে নোবেল দিবে? আমি ত অর্থনীতীতে কুন গবেষনা করি নাই। শুধু একটি গরীবের বেংক খুলিয়া শান্তিতে কতিপয় বেবসা পাকাইয়াছি। সানোয়ার আমায় চোখ টিপিয়া বলিল, বদ্দা জায়গামত টেকাটুকা দিলে গবেষনা কুন বেপারই নহে। আইচ্ছা আপনি ৮০ লক্ষ টেকা দিন, আমি শান্তিতে আপনাকে নোবেল আনিয়া দিতেছি।

কবি জসীমউদ্দীনকে তিরস্কার করে বাবুনগরী বলেন, বাংলাদেশের এক মাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ আমি। নোবেল বিষয়ক যে কুন গুপন সমস্যা বা জিজ্ঞাসা থাকলে আপনি আমার নিকট আসবেন। সানোয়ার হারামজাদাকে আপনি কেন ১ কুটি ৫০ লক্ষ টেকা দিলেন? এইভাবে নোবেলের রেট বৃদ্ধিতে আপনি অবদান রাখলেন কুন সাহসে? ভবিষ্যতে যদি কখনও অর্থনীতীতে আরেকটি নোবেল প্রয়জন হয়, তখন বাড়তি ৭০ লক্ষ টেকা কি আপনি দিবেন? সালা ঘোচু।

নোবেলের জন্য যোগাযোগ করুন: বাবুনগরী

উত্তেজিত কণ্ঠে কায়েদে নোবেল বলেন, আমায় ১ কুটি টেকা দিলেই ত আমি আপনার একটি বেবস্থা করিয়া দিতাম। ভবিষ্যতে চীটার সানোয়ারের কাছে আর যাবেন না। বাবুনগরী সেন্টারে আসিয়া আমার সংগে আলাপ করবেন। কিনার আগে আসল নোবেল দেখিয়া কিনুন। লাইনে আসুন।

সানোয়ারকে তিনি নোবেলের খরচাপাতি বাবদ ৮০ লক্ষ টেকা দিয়েছিলেন কিনা, এ প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে বাবুনগরী বলেন, দেশটা বাটপার দিয়া ভরিয়া গেল। নোবেল নিয়া অন্য লোকে বাটপারি করে কেন? অর্থনীতী বলিয়া একটি বেপার আছে ত, নাকি? দুস্টামির একটা সীমা আছে।

দি জেনারেশনের আমীর সানোয়ার হোসেনের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিবেদককে বলেন, আমি পল্লীকবি জসীমউদ্দীনকে নোবেল দেওয়ার জন্য নোবেল কমিটির সংগে চিঠি ও মুঠোফোনে কথা চালাচালি করতেছিলাম। তারা প্রায় রাজিও হইয়াছিল। কিন্তু তারপর খোজ নিয়া দেখি পল্লীকবি জসীমউদ্দিন বহুকাল আগে এন্তেকাল করিয়াছেন। তখন আমি পড়লাম মুশকিলে। শেষে পল্লীকবির বদলে প্রবাসীকবি জসীমউদ্দীনরে মেনেজ করিয়া আনছি। কুন চিন্তা নাই উনিও কবিতা লিখেন। কবিতার বইও বাইর হইছে মাশাল্লাহ।

ইউনূসের অভিযোগ প্রসংগে সানোয়ার হাসতে হাসতে বলেন, ইউনূস বাবুনগরী শান্তিতে নোবেল পাইলে প্রবাসীকবি জসীমউদ্দিন সাহিত্যে নোবেল পাবে না কেন?

বাবুনগরীর নিকট হতে ২০০৬ সালে ৮০ লক্ষ টেকা গ্রহন করেছিলেন কিনা, এমন প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে সানোয়ার হাসতে হাসতে বলেন, বুঝেনই ত। কিছু কথা থাক না গুপন?

One Comment to “টেকা দেওয়ার আগে আসল নোবেল দেখে দিন: বাবুনগরী”

  1. বাবুনগরী বলেন, পরমানু বিজ্ঞানীগুলি কুন কামেরই নহে। এই দেশে যতগুলি পরমানু বিজ্ঞানী ছিল সবই বেকুব। নাম বলব না, তবে একজনকে চিনতাম যিনি এক ভয়ংকর মহিলাকে বিবাহ করে বাকি জীবন লন্ডভন্ড করিয়াছিলেন। আল্লাহ তাকে বেহেস্তে নছিব করুন। 😛 😛 😛

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: