এ কাল রায়ের পর দেশে গরিব বৃদ্ধি পেল: বাবুনগরী

নিজস্ব মতিবেদক

উচ্চ আদালতের আপিল বিভাগ কতৃক বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব ও একাত্তর সালে মিরপুরে হাজার হাজার বাংগালী নিধনকারী বেক্তিত্ব মিরপুরের কসাই আবদুল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় ঘোষিত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক কায়েদে নোবেল ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরী বলেছেন, এ কাল রায়ের পর দেশে গরিব বৃদ্ধি পেল।

আজ মিরপুরের কাশিমবাজারে অবস্থিত গ্রামীন বেংক ভবনের একাংশ দখল করে স্থাপিত কুঠিবাড়ির গদি ‘বাবুনগরী সেন্টারে’ আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন বাবুনগরী।

কায়েদে নোবেল বলেন, আমরা বিয়াল্লিশ বতসর আগের বস্তা পচা অতীত নিয়া পড়িয়া আছি, যেখানে আমাদের সকলের উচিত ছিল সাত বতসর আগের টাটকা অতীত নিয়া পড়িয়া থাকা। কুথাকার কুন কাদের মোল্লা, তারে ফাসি দিতে এত অশান্তি। অথচ দেখুন আজ মিরপুরে শুধু শান্তি আর শান্তি। আমি যে সাত বতসর আগে নোবেল পাইয়া মিরপুর তথা বাংলাদেশে বিপুল শান্তি কায়েম করলাম, এই কথা কেউ বলে না। খালি বলে আমি নাকি আয়কর দেই না।

আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, আপিল বিভাগের কথা আর কি বলব। এই ঘোচু প্রতিষ্ঠানের হাতে আমিও আমার গ্রামীন বেংকের গদি হারাইছি। আর কাদের মোল্লা হারাইল তার গর্দান। আমরা দুইজন একই পথের পথিক। কিন্তু যেহেতু কাদের মোল্লার গর্দান অপেক্ষা আমার গদি বেশী গুরুত্বপুর্ন, তাই আজ এই কাল রায়ের পর আমারই সহানুভুতি প্রাপ্য।


আপিল বিভাগের রায়ে অসন্তুষ্ট বাবুনগরী

কাদের মোল্লাকে ধনী বেক্তি উল্লেখ করে বাবুনগরী বলেন, কাদের মোল্লা একাই এক লক্ষ গরিবের সমান। তারে ফাসি দেওয়া হলে দেশে গরিব ইষ্টু ধনীর অনুপাত এক দফে বাড়িয়া যাইবে। তাই গরিবের সংখ্যা আনুপাতিক হারে বৃদ্ধি পাবে। এইভাবে ধনী ধনী লোকদিগকে ধরিয়া ফাসি দিলে দেশে দারিদ্র্যতা দুরীকরন কিভাবে হবে? দারিদ্র্যতা দুর করিতে গেলে দুই চারটা গরিবরে ফাসি দিলেই ত হয়। কত মুক্তিযুদ্ধা আদাড়ে বাদাড়ে ধুকিয়া মরতেছে, এদের ফাসি দিলে ত দেশে দারিদ্র্যতা আরেকটু কমিত।

কাদের মোল্লার পরিবর্তে বাকশালের যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ফাসি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ইউনূস বলেন, কাদের মোল্লাও কাদের, ওবায়দুল কাদেরও কাদের। বেচারা ওবায়দুল সরকারের শেষ দুই বছর মন্ত্রী ছিল, টেকাটুকা বানাইতে পারে নাই। সব টেকা আবুল খাইয়ালাইছে, সে কিছুই খাইতে পায় নাই। তার উপর সেতু পার হয় এরশাদ আর টোল দেয় ওবায়দুল। দেশে দারিদ্র্যতা দুর করতে গেলে ওবায়দুল কাদেরকেই ফাসি দিতে হবে। এতে করে কাদেরের ফাসিও বহাল থাকবে, গরিব ইষ্টু ধনী অনুপাতও কমবে। ওবায়দুল কাদেরকে ফাসি দেওয়া না গেলে রংগবীর ঘেঁটুপুত্র কাদেরাকেও ফাসি দেওয়া যায়। সে আমার সংগে জুট বানতে আসছিল। বললাম, টেকাটুকা সংগে আনছনি? সে বলে, আমি গরিব, টেকা নাই।

এ বেপারে তাতক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় ঘেঁটুনাগরিক শক্তির আমীর রংগবীর কাদের সিদ্দিকী ওরফে ঘেঁটুপুত্র কাদেরা বলেন, আমার সংগে কাদের মোল্লাকে গুলাইয়া ফেলার কুন সুযুগ নাই, যদিও আমরা একই লাইনের লোক। বাবুদার প্রস্তাবের ওবায়দুল শাখাকে আমি সমর্থন জানাচ্ছি।

ওবায়দুল কাদেরের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মিরপুরের কসাই ইউনূস বাবুনগরী, বেশী বাড়াবাড়ি করিও না।

4 Comments to “এ কাল রায়ের পর দেশে গরিব বৃদ্ধি পেল: বাবুনগরী”

  1. বিয়াফক বিনুদন

  2. এম্মা বিরাট বিনুদোন দিলে পেট খারাপ হবিন তো ভাই…….

  3. ঘেঁটুপুত্র কাদেরা বলেন, আমার সংগে কাদের মোল্লাকে গুলাইয়া ফেলার কুন সুযুগ নাই, যদিও আমরা একই লাইনের লোক।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: