এত অংগ প্রত্যংগ দিয়া গরিবের কি কাম? : বাবুনগরী

নিজস্ব মতিবেদক

ক্ষুদ্র ঋনের বোঝা সহ্য করতে না পেরে অংগ প্রত্যংগ বিক্রয় করে ঋন শোধ করছেন বাংলাদেশের গরিব বৃন্দ।

এমনই চিত্র উঠে এসেছে ইংরাজ সংবাদ সংস্থা বিবিসির প্রতিবেদনে।

বাংলাদেশের জয়পুরহাটের কালাই এলাকায় ক্ষুদ্র ঋন গ্রহনের পর দেনার কিস্তি শোধ করতে না পেরে কিডনী, যকৃত প্রভৃতি বিক্রয় করছেন গরিব মানুষ। সস্তায় এসব অংগ প্রত্যংগ কিনে নিচ্ছে একটি বেবসায়ী মহল। অংগ প্রত্যংগ বিক্রয়ের টাকা দিয়ে গ্রামীন বেংক, ব্রেক, আশা প্রভৃতি ক্ষুদ্র ঋন সরবরাহ কারী প্রতিষ্ঠানকে দেনার কিস্তি শোধ করছেন এ অঞ্চলের অনেক গরিব।

এ বেপারে সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক কায়েদে নোবেল ড. ইউনূস বাবুনগরীর সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি পরিস্থিতি নিয়ে সন্তুস্টি প্রকাশ করেন।

বাবুনগরী বলেন, ক্ষুদ্র ঋন বাংলাদেশকে দিয়াছে বেগ, আর কাড়িয়া লইছে আবেগ। আবেগ দিয়ে ক্ষুদ্র ঋনকে বিচার করলে চলবে না। কুন জামানত ছাড়াই গরিব দুঃখীর কাছে আমরা হাজার হাজার কুটি টেকা আমানত রাখি। সেই টেকা দিয়া তারা বড়লোক হয়। আর এভাবেই দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হয়। বিশ্বের সব বড় বড় পন্ডিতগন এই পদ্ধতিকে স্বিকৃতী দিয়াছে।

আবেগঘন কণ্ঠে কায়েদে নোবেল বলেন, ক্ষুদ্র ঋনের টেকা দিয়া ভাগ্য উন্নয়ন করিয়া কুটিপতি হইছে এমন লোকের সংখ্যা কম নহে। আমাকেই দেখ। ক্ষুদ্র ঋনের বেবসা খুলিবার পর গ্রামীন বেংকের নাম দিয়া নরওয়ের সংগে পাটনারশিপে গ্রামীন ফুন কম্পানী চালু করিয়া উহার মালিক হইলুম। টেকা কামালুম তিরিশ হাজার কুটি। সংগে ফাউ হিসাবে নরওয়ে হইতে শান্তিতে নোবেলও পাইলুম। তারপরও কি তুমি বলিবে যে ক্ষুদ্র ঋন খারাপ?


তুমাদের কাছে এসে বিপদের সাথী হতে আজকের চেস্টা আমার: বাবুনগরী

হাসতে হাসতে ইউনূস বলেন, ক্ষুদ্র ঋনের কারনে আমাদের ভুখা নাংগা গরিব বৃন্দের গরিব পরিচয় ঘুচিয়াছে। তারা ক্ষুদ্র ঋনের এক ঠাপে গরিব হইতে উদ্যক্তায় পরিনত হইছে। কেহ যদি নিজের অংগ প্রত্যংগ নিয়া বেবসা করে দুটু লাভের মুখ দেখে, তুমি আমি বাধা দিব কেন?

শরীরে অংগ প্রত্যংগের আধিক্যের বাড়াবাড়ির প্রতি ইংগিত করে বাবুনগরী বলেন, একটি দিয়াই যেখানে কাজ চলে, সেখানে দুটি দিয়া গরিব কি করবে? দুটি চুখ, দুটি কান, দুটি কিডনী, দুটি যকৃত। আরে সালা ঘোচু একে তুই গরিব, তার উপর সব কিছু ডাবুল ডাবুল। এত ভাত ত দুধ দিয়া খাওয়া যায় না। ক্ষুদ্র ঋন লইছ, পরিশুধ করতে পার না যখন, একটি কিডনী, একটি যকৃত বিক্রয় করিয়া দেও। কুন অভাগা উহা সস্তায় খরিদ করিয়া দুটি খেয়ে পরে বাচুক।

অংগ প্রত্যংগ বিক্রয় করা আইনত নিষিদ্ধ, এ তথ্য জানালে ‌উত্তেজিত হয়ে কায়েদে নোবেল বলেন, বানচুদ সরকার দেশটার কুন উন্নয়নই করতে দিবে না। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল আইন, গ্রামীন বেংক আইন, আয়কর আইন, একের পর এক এমন কাল আইন বানাইয়া বানাইয়া তারা দেশের মানুষের উন্নয়নের পথে খালি খালি কাটা বিছাইয়া রাখে। শেখের বেটীর কাল হাত ভেংগে দাও গুড়িয়ে দাও।

দেশের আপামর গরিবকে রুখে দাড়ানর আহোভান জানিয়ে তিনি বলেন, অবিলম্বে অংগ প্রত্যংগ বেচিয়া উন্নয়নের পথে সকল প্রতিবন্ধকতা দুর করতে হবে। আমার মালিকানাধীন ৮৪ লক্ষ গরিব নারী, যাদের আমি পুষি, আস আমরা এক লগে উঠি ফুসি। আমার কিডনী আমি বেচব, যাকে খুশি তাকে বেচব। হুয়াটস দি প্রবলেম?

আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী।

11 Comments to “এত অংগ প্রত্যংগ দিয়া গরিবের কি কাম? : বাবুনগরী”

  1. আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী। আল্লারে, ভাই ক্যাম্নে লেখেন :O

  2. “আবেগঘন কণ্ঠে ইউনূস বলেন, জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী।”

    ওরে আমি হাসতে হাসতে মুতে দিলাম…. মতিকন্ঠ rocks…

  3. , জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী lol

  4. জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী।

    😮 😮 😮 মাননীয় স্পীকার আমি তো…

  5. আমার কিডনী আমি বেচব, যাকে খুশি তাকে বেচব। হুয়াটস দি প্রবলেম?

  6. অংগ প্রত্যংগ বিক্রয় করা আইনত নিষিদ্ধ, এ তথ্য জানালে ‌উত্তেজিত হয়ে কায়েদে নোবেল বলেন, বানচুদ সরকার দেশটার কুন উন্নয়নই করতে দিবে না
    Shabash Nobel winner.

  7. “তারা ক্ষুদ্র ঋনের এক ঠাপে গরিব হইতে উদ্যক্তায় পরিনত হইছে। কেহ যদি নিজের অংগ প্রত্যংগ নিয়া বেবসা করে দুটু লাভের মুখ দেখে, তুমি আমি বাধা দিব কেন?”
    “জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী।”
    মতি ভাই, আপনেরে আমি নোবেল দিমুই দিমু, কোনো শালা ঘোচু আমারে ঠেকাইতে পারবে না, কছোম!!!!

  8. এই সাহিত্য নুবেল পাওয়ার যুগ্য।
    8)

  9. মতিরে,তুই একটা গজব।

    জুটে যদি মুটে একটি কিডনী যত্ন করিও মুতার লাগি, দুটি যদি জুটে একটি বেচিয়া ঋণ শুধ কর, হে অনুরাগী।

    কী বাণীটাই না মারছো।

  10. বাকশালি মিডিয়ার বিপক্ষে লুঙ্গি মজহারের সসস্ত্র সংগ্রামের ডাক নিয়ে কোন পোস্ট নাই কেন?

  11. পুরাই উড়াইয়া দিছে। নোবেইল না দিলে তো শরমে আর মুখ দেখানো যাবেনা, খালি পাছা দেখান লাগবে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: