পেশাদার জোতিষী হিসাবে নতুন জীবন শুরু করবেন ফখা

নিজস্ব মতিবেদক

পেশাদার জোতিষী হিসাবে নতুন জীবন শুরু করার ঘোষনা দিয়েছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’ মির্জা বাড়ির গৌরব মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখা।

আজ নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন আগুনগীর।

সংবাদ সম্মেলনে ফখা ইবনে চখা বলেন, বাল্যকাল হতেই হাত দেখার বেপারে আমার আগ্রহ ছিল। পাকিস্তান আমলে দশ টেকা দিয়া গুলিস্তান হতে একটি আতশ কাচ সংগ্রহ করে আমি শখের বশে হাত দেখা শুরু করি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন ছাত্র আছিলাম, তখন হলে আমার রুমের বাইরে দর্শনার্থী ছাত্রদের ভিড় লাগিয়া থাকত। কেহ দিত নগদ টেকা, কেহ আনিত কেক বিস্কুট, কেহ বা সিনেমার টিকেট। দিন খারাপ যাইত না।

দির্ঘ শ্বাস ফেলে আগুনগীর বলেন, কিন্তু চিরদিন কাহারও সমান নাহি যায়। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আমার সুখের দিন ফুরাইল। ফেসিবাদী বংগবন্ধুর আমলে দেশে নেমে আসে অভাব অনটন। হাত দেখার বিলাসিতা করার সুযুগ কাহারও ছিল না। আমার জীবনে নেমে এল দুর্দিনের ঘনঘটা।

হাসতে হাসতে ফখা বলেন, কিন্তু চিরদিন কাহারও সমান নাহি যায়। একদিন একাত্তরের রেম্ব মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান আমায় ডাকিয়া পাঠাইলেন। আমি তার হাত, তার বেগমের হাত, তার উত্তরাধিকারী তারেক জিয়ার হাত ও আরাফাত কোকো নামে বেগম জিয়ার অপর সন্তানের হাত দেখিয়া বললাম, সঠিক কাজটি করিলে আপনারা দেশের রাজা হইবেন। জেনারেল জিয়া আমায় বললেন, সঠিক কাজটি কি? আমি তখন গ্রহ নক্ষত্রের ছক পর্যালচনা করিয়া বললাম, যদি ফেসিবাদী বংগবন্ধুর মৃত্যুর পর একটি নীল কান্তমনি ধারন করেন তাহলে রাজা হইতে পারবেন।


থাকিতে নিজের হস্ত, হব না পরের দারস্থ: ফখা

নষ্টালজিকতায় আচ্ছন্ন মির্জা বাড়ির গৌরব বলেন, আমার জোতিষী বানী অক্ষরে অক্ষরে ফলিয়া গেল। জিয়া পরিবার দেশের রাজা হইল। একবার নহে দুইবার নহে সাড়ে তিনবার। অতছ আমি যে ফখা ছিলাম সে ফখাই রয়ে গেলাম। আমায় ভাঁড়প্রাপ্ত হতে প্রমুশন দিয়া পুর্ন নায়েবে আমীর করা হইতেছে না। মেডামের পায়ে ধরিয়া কতবার কান্দিয়া বললাম প্রমুশন দিতে, তিনি আমায় শুধু বড় গনতন্ত্র তারেক জিয়ার হাইকুট দেখান।

অশ্রু মুছে আগুনগীর বলেন, আর ক্রন্দন নহে। থাকিতে নিজের হস্ত, হব না আর মেডামের দারস্থ। এখন পুরাপুরি পেশাদারী জোতিষ চর্চা শুরু করব। আজহারুল নামে সাতক্ষীরার এক ছাত্রদল নেতা সেদিন মুঠোফুনে ছবি তুলিয়া আমায় তার হস্তরেখা পাঠাইল। আমি বললাম আজহারুল রে তুই ত ক্রসফায়ারে এন্তেকাল করবি। সময় থাকতে চিকিতসা করাইতে লনডন যা। সে আমার কথা হাসিয়া উড়াই দিল। দুইদিন যাইতে না যাইতেই সে ক্রসফায়ারে মরল।

শাহবাগে চেম্বার খুলে এ পেশায় মননিবেশ করার আকাংখা জানিয়ে মির্জা সাহেব বলেন, দিনকাল ভাল নহে। সবাই আসবেন। বৃহত্তর জামায়াতের কেডারদের জন্য হাদিয়া কম রাখব।

One Comment to “পেশাদার জোতিষী হিসাবে নতুন জীবন শুরু করবেন ফখা”

  1. হা হা হা

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: