পলাশী দিবস নিয়া হইচই কেন: ফখা

নিজস্ব মতিবেদক

ঐতিহাসিক পলাশী দিবস নিয়ে এক শ্রেনীর মানুষের ‘হইচই’ দেখে বিস্ময় প্রকাশ করে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’ মির্জা বাড়ির বড় গৌরব মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখা বলেছেন, পলাশী দিবস নিয়া এত হইচই কেন?

সোমবার ঐতিহাসিক পলাশী দিবস উপলক্ষে এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে আগুনগীর এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে হইচইকারী এক শ্রেনীর মানুষকে তিরস্কার করে ফখা ইবনে চখা বলেন, পলাশী দিবসে ততকালীন বাকশাল সিরাজুদ্দুলার কাল হাত ভেংগে দিয়ে গুড়িয়ে দিয়ে বাংলার গনতন্ত্র কামী মানুষকে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। আমার পুর্বপুরুষ সতেরশ সাতান্নর রেম্ব জনাবে আলা জেনারেল মিরজাফর ইসলাম আলমগীর এই পলাশী দিবসে নীলক্ষেত হতে অদুরে পলাশীর মোড়ে দাড়াইয়া নিজেকে রাস্ট্রনবাব দাবী করিয়া স্বাধীনতার ঘোষনা দিয়াছিলেন। বাংলার মানুষ মুক্তির বাধ ভাংগা আনন্দে তাঁহাকে নবাব পদে বসায়।


পলাশী দিবস নিয়া এত হইচই কেন?

জেনারেল রবাট ক্লাইভের ভুয়সী প্রসংশা করে আগুনগীর বলেন, রবাট পৃথীবির মানবাধিকারের ইতিহাসের এক উজ্জল চরিত্র। আমার পুর্বপুরুষ সাতান্নর রেম্ব জেনারেল মিরজাফর উনাকে চিঠি দিয়া বলছিলেন, রবাট, তুমি আমাদিগকে বাকশাল সিরাজুদ্দুলার হাত হতে উদ্ধার কর। রবাট তখন সিরাজুদ্দুলাকে সংলাপের আহোভান জানাইলে বাকশাল সিরাজুদ্দুলা তাহাকে বলে, বাংলা বিহার উড়িষ্যার মহান অধিপতি, তুমার কথা আমি ভুলিনি জনাব। রবাট তখন তাহাকে বলেন, আরে সালা ঘোচু এই সংলাপ নহে, তুকে ক্ষমতা হস্তান্তরের সংলাপের আহোভান জানাইছি ইউ ডেম ফুল। তখন সিরাজুদ্দুলা রাতের আধারে কাপুরুষের মত রবাটের বাহীনীর উপর আক্রমন চালায়। তখন সাতান্নর রেম্ব জেনারেল মিরজাফরের বীরত্ব পুর্ন হস্তক্ষেপে একটা হেস্তনেস্ত হয়। বাংলা আবার ফুলে ফলে ভরিয়া যায়।

আবেগঘন কণ্ঠে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাগের মির্জা বাড়ির বৈঠকখানায় সাতান্নর রেম্ব জেনারেল মিরজাফর আর একাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়ার দুটি ছবি পাশাপাশি টাংগান আছে। দুইজনের মধ্যে অদ্ভুত সব মিল। আমি তাই একাত্তরের রেম্বকেও নিজের পুর্বপুরুষ ভাবি।

জেনারেল মিরজাফরের নামে জঘন্য বাকশালী অপপ্রচার চালান হয়েছে, এমন দাবী করে তার উত্তরসুরী ফখা বলেন, এই অপপ্রচারে এমনকি লনডন প্রবাসী বড় গনতন্ত্র বড় গুন্ডে তারেক জিয়াও প্রভাবিত হয়ে আমায় আদর করে মির্জাফখ ডাকেন। কিন্তু এমনটি করা ঠিক নহে। মির্জা বাড়ির প্রতিষ্ঠাতা জেনারেল মিরজাফরকে তার উপযুক্ত সম্মান দিয়ে ইতিহাসে পুনরায় তেগী জেনারেল রুপে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

মির্জা বাড়ির অন্যান্য সদস্য ছোট মির্জা আসাদুজ্জামান নূর ও খাট মির্জা মির্জা আব্বাসের প্রতি ইংগিত করে ফখা ইবনে চখা বলেন, মির্জা বাড়ির সম্মানের প্রতি এই বাড়ির কতিপয় পুলার কুন খেয়াল নাই। এভাবে চলতে পারে না।

5 Comments to “পলাশী দিবস নিয়া হইচই কেন: ফখা”

  1. হাহাহাহা ! চরম !!

  2. আবেগঘন কণ্ঠে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাগের মির্জা বাড়ির বৈঠকখানায় সাতান্নর রেম্ব জেনারেল মিরজাফর আর একাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়ার দুটি ছবি পাশাপাশি টাংগান আছে। দুইজনের মধ্যে অদ্ভুত সব মিল। আমি তাই একাত্তরের রেম্বকেও নিজের পুর্বপুরুষ ভাবি।

  3. মতি

  4. একাত্তরের রেম্ব এবং ১৭৫৭ এর রেম্বর ভিতর আমি ও মিল খুজে পাই রে।

  5. কেউ আমারে মাইরালা

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: