Archive for September, 2014

September 29, 2014

ঢাবি, আই এম ইউর ফাদার: নাহিদ

নিজস্ব মতিবেদক

লক্ষ লক্ষ এ প্লাস পাওয়া ছেলেমেয়েকে ভর্তি পরীক্ষা নামক প্রহসনের নামে ফেল করিয়ে দেওয়ার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে তীব্র ভর্তসনা করে দেশের প্রভাবশালী এলাকা কারওয়ানবাজারের স্নেহধন্য সাবেক সিপিবি নেতা ও বর্তমান আওয়ামী লীগের উজিরে তালিম আল্লামা নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, এ প্লাস পাওয়া পুলাপানরে লই ছুদুরবুদুর ছইলত ন। সাবধান ঢাবি, নাহিদের সংগে পাংগা লইও না। মনে রেখ, আই এম ইউর ফাদার।

নিজেকে শিক্ষা জগতের ডার্থ ভেডার ঘোষনা করে নাহিদ মন্ত্রী বলেন, আজ হতে মোর নাম আবু ঢাবি।

কিছুদিন পুর্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ও ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল বের হলে দেখা যায়, লক্ষ লক্ষ এ প্লাস পাওয়া ছেলেমেয়ে ঢাবিতে ভর্তির যোগ্যতা অনুযায়ী পাশ মার্কও পায়নি।

ইংরাজী বিভাগে পাশ মার্ক পেয়েছে মাত্র ২ জন।


আবু ঢাবি নাহিদ

এ বেপারে ঢাবির উপাচার্য আ আ ম স আরেফিনকে দায়ী করে আবু ঢাবি নাহিদ বলেন, একটি প্রানী আছে, আমি নাম বলতে চাই না, দাত গজাইলে আগে বাপের পুটুতে কামড় দিয়া দাতের ধার পরীক্ষা করে। আমি আবু ঢাবি যাদের এ প্লাস দিলাম, ঢাবি তাদের কুন সাহসে ফেল করায়?

এ ধরনের ‘ছুদুরবুদুর’ ঠেকাতে আইন করার হুমকি দিয়ে শিক্ষা জগতের ডার্থ ভেডার বলেন, এত পরীক্ষা কিসের? কুন পরীক্ষা লাগত না। আমার দেওয়া এ প্লাস দেখাইবে, আর বিশ্ববিদ্যালয় চাহিবা মাত্র এ প্লাসের বাহককে ভর্তি করিতে বাধ্য থাকিবে। ইহার বেতিক্রম করিলেই ফাসি।

ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ করে আবেগঘন কণ্ঠে নাহিদ মন্ত্রী বলেন, এত শিক্ষা দিয়া কি হবে? বেশি লিখাপড়া না করিয়া সিপিবিতে ঢুকিয়া পড়। তারপর এক সময় সিপিবির বড় নেতা হওয়ার চেস্টা কর। তারপর ক্লাব ফুটবলের খেলয়াড়দের নেয় সিপিবি হতে বাকশালে ট্রেন্সফার লও। তারপর শিক্ষামন্ত্রী হও। শিক্ষক বদলী ও অন্যান্য খাতে টেকাটুকা যা পাইবা, লিখাপড়া করিয়া সারা জীবনেও তত টেকা কামাইতে পারবা না।

ঢাবিকে কুলাংগার সন্তানের সংগে তুলনা করে শিক্ষা জগতের ডার্থ ভেডার বলেন, উখানে শুদু গন্ডগুল হয়।

নাহিদ মন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে ঢাবির উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন বলেন, বাম যখন আমে আসে, গু পচা গন্দ বাইর হয়।

September 27, 2014

জয়লালেদা জেলে

বেংগালর মতিনিধি

দুর্নীতীর মাধ্যমে কুটি কুটি রুপি কামাই করার অপরাধে সাবেক হট চিত্রতারকা ও তামিলনাড়ুর বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী জয়লালেদার চার বতসরের কারাদণ্ড ও একশত কুটি রুপি জরিমানা হয়েছে।

১৮ বতসর পুর্বে জয়লালেদার বিরুদ্ধে মাদ্রাজ আদালতে মামলা করেন বিজেপি নেতা সুব্রামানিয়াম স্বামী।

আদালতের রায় ঘোষনার পর তামিলনাড়ু জুড়ে তীব্র উত্তেজনার সৃস্টি হয়। জয়লালেদার দল ক্ষমতাসীন এডিএমকে এর সদস্যরা প্রতিপক্ষ ডিএমকের উপর তামিলনাড়ু জুড়ে হামলা করে।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জয়লালেদা বলেন, এ বিচার প্রহসনের বিচার। এ বিচার স্বচ্ছ, নিরপক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানের হয় নাই। এ রায় সুব্রামানিয়াম স্বামীর দল বিজেপির ষড়যন্ত্রে হয়েছে। এই রায় মানি না।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, জয়লালেদা মুখ্যমন্ত্রী হয়ে ৬৬ কুটি রুপি, ২ হাজার একর জমি, ৩০ কেজি সোনা ও ১২ হাজার শাড়ী উপার্জন করেছেন।

মাদ্রাজ আদালতে মামলা দায়ের করা হলেও জয়লালেদা মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর নিরপক্ষতার খাতির মামলাটি বেংগালরে নিয়ে যাওয়া হয়।


জয়লালেদার খবরে ক্ষুব্ধ ক্ষয়খালেদা

এদিকে জামালপুরে বক্তৃতা দেওয়ার সময় জয়লালেদার কারাদণ্ডের খবর বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসির নিকট পৌছান হলে এক আবেগঘন পরিস্থিতির সৃস্টি হয়।

জামালপুরের জনসভায় মাদারে গনতন্ত্র হুংকার দিয়ে বলেন, বিজেপি বিএনপি ভাই ভাই। মদী ভাই আমরার বন্দু। জয়লালেদার জেল হইছে ভাল হইছে, কিন্তু ক্ষয়খালেদার কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে।

এতিমের টাকা মেরে খাওয়া প্রসংগে মেডাম বলেন, আরে এতিমখানার এতিম এত টেকা দিয়া কি করব? তাছাড়া এতিমের টেকা এতিমের হস্তেই গিয়া পড়ছে। বড় গনতন্ত্র কি এতিম নহে? ছুট গনতন্ত্রের পিতাও এন্তেকাল করিয়াছেন। এতিমের টেকা এতিমের ভুগেই লাগছে। এই নিয়া কুন জেল জরিমানা হইলে এরপর ১৫ আগষ্টে ডাবুল জন্মদিন পালন হবে। হুশিয়ার সাবধান।

September 20, 2014

সারদা গ্রুপের টেকাটুকার বখরা না পাওয়ার প্রতিবাদে সোমবার বিএনপি শাখার হরতাল

নিজস্ব মতিবেদক

বাংলাদেশে পাচার করা ভারতের বাটপার বেবসায়ী চক্র সারদা গ্রুপের বারশ কুটি রুপির বখরা না পাওয়ার প্রতিবাদে সোমবার হরতালের ডাক দিয়েছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’, লনডনে পলাতক চিকিতসাধীন আওলাদে আমীর বড় গুণ্ডে কতৃক ‘হাইড এন্ড সিক’ গালিতে ভুষিত ও ঈদুল কতলের টেলেন্ট হান্ট প্রতিযোগীতায় ‘ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি’ খেতাবে সমাদৃত মির্জা বাড়ির বড় গৌরব আল্লামা মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখা।

আজ নয়া পল্টনে বিএনপি শাখার কার্যালয়ে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ হরতালের ডাক দেন ফখা ইবনে চখা।

সংবাদ সম্মেলনে হাইড এন্ড সিক বলেন, পচ্চিম বংগের সারদা গ্রুপ পচ্চিম বংগের জনগনের নিকট হতে ডেসটিনি ষ্টাইলে আমানত হিসাবে শত সহস্র কুটি টেকাটুকা তুলছিল। তারপর যখন এই বিষয়ে থানা পুলিশ কুট কাচারী হইল, তখন তারা এই ধান্দার টেকাটুকা বাংলাদেশে বৃহত্তর জামায়াতের হস্তে পাচার করিয়া দিল। অতছ আমরা বৃহত্তর জামায়াতের অন্যতম শাখা হইয়াও কুন টেকাটুকা ভাগে পাইলাম না।


কেউ পাবে কেউ পাবে না, তা হবে না, তা হবে না: ফখা

আবেগঘন কণ্ঠে মির্জা বাড়ির বড় গৌরব বলেন, এক কুটি নহে দুই কুটি নহে, বারশ কুটি রুপি সালা সারদা ঘোচুরা বৃহত্তর জামায়াতরে বস্তা ভর্তি করিয়া দিছে। এই টেকা দিয়া গত বতসর সাতক্ষীরা রাজশাহী বগুড়া চাপাইনবাবগঞ্জ সাতকানিয়া ফটিকছড়ি পলাশবাড়ী ইত্যাদি স্থানে বৃহত্তর জামায়াত দাংগা আন্দুলন করিয়াছে। আমরা যখন বৃহত্তর জামায়াতের ভাঁড়প্রাপ্ত খানকির পুলায়ে আমীর মকবুল ছাহেবকে জিজ্ঞাসা করিলাম, মকবুল ভাই, টেকাটুকা কনে পাইলে? তখন সে হাসতে হাসতে আমাদিগকে বলিল, দাংগার টেকা পুংগা দিয়া আসে। আমরাও কিছু না বুঝিয়া হাসাহাসি করলাম। কিন্তু এখন আমরা জানতে পারছি, সারদা গ্রুপের টেকা সব বৃহত্তর জামায়াতের খানকির পুলা নায়েবের দল খাইয়ালাইছে।

হুহু করে কেদে উঠে ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি বলেন, সাত আট বতসর ধরিয়া কুন আয় রুজগার নাই। মাঝেমধ্যে লনডন হতে বড় গনতন্ত্র বড় গুণ্ডে তারেক জিয়া কিছু খরচাপাতি দেয়। মাদারে গনতন্ত্র ফেতরার মৌসুমে সৌদী গিয়া বাংলাদেশের মুসলিম উম্মার জন্য বরাদ্দ ফেতরার টেকা ভেনিটি বেগে করিয়া লইয়া আসেন, সেখান হতেও কিছু পাই। আর সিংগাপুর বেড়াইতে গেলে আইএসআই এর সিংগাপুর শাখার আমীর মেজর জেনারেল আকরাম খান লাহরী জুর করিয়া পকেটে কিছু ডলার গুঞ্জিয়া দিয়া বলে, ইয়ে লে ফখা ভাই মিস্টি উস্টি খা লে না। এইসব জুড়াতালি দিয়া কুনমতে দুটু খাই পরি। সাত আট বতসর আগে বানান থৃ পিস সুট দিয়া মিটিং মিছিলের কাম চালাইতেছি। আল্লাহ পাকের অশেষ রহমতে নেপথলীন নামক একটি বস্তু বিজ্ঞানীরা আবিস্কার করছিল, উহা না থাকিলে আমায় নাংগা চলিতে হইত। এত অভাব অনটনের মধ্যে যখন শুনলাম বৃহত্তর জামায়াত বারশত কুটি রুপি হাতাইয়ালাইছে, আর আমরা কিছু পাই নাই, তখন কি মাথা ঠিক থাকে?

রন হুংকার দিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, সোমবার হরতাল। এক দফা এক দাবী, সারদার বখরা আমায় দিবি। বৃহত্তর জামায়াতরে নাহি ডরাই, আমাদিগের লড়াই বখরার লড়াই।

এ বেপারে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর ভাঁড়প্রাপ্ত খানকির পুলায়ে আমীর মকবুল আহমদের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি হাসতে হাসতে বলেন, ফখা ইবনে চখার দিলে কুন ডরভয় নাই। ইহাই স্বাভাবিক। নাংগার নাই বাটপারের ভয়।

কেন এত অর্থনৈতিক দুরাবস্থার মধ্যেও বিএনপি শাখাকে সারদা গ্রুপের টেকাটুকার বখরা দেওয়া হচ্ছে না, এ প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে মকবুল বলেন, নাংগার টেকা পুংগা দিয়া আসে।

September 17, 2014

রিভিউয়ের পর ভি দেখাব: দেইল্যা

নিজস্ব মতিবেদক

আপিল বিভাগের রায়ে ফাসির পরিবর্তে আমরন আরামদণ্ডের রায় পেয়ে আনন্দে উচ্ছসিত বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব, বিশিষ্ঠ ইসলামী চিন্তাবীদ, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের নির্মম বলি, ইসলামের বাগানে ফুটন্ত গোলাপ ও এক হাতে মুবাইল অন্য হাতে মেশিন হাতে বেস্ত আল্লামা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদী বলেছেন, আলহামদুলিল্লাহ বাচিয়া গেলুম। তবে এখনই আংগুল দেখাব না। রিভিউ বাকি আছে। রিভিউয়ের পর সবকিছু ঠিক থাকিলে ভি দেখাব ইনশা আল্লাহ।

আজ কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের কনডম সেলে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ উচ্ছাস প্রকাশ করেন খুন ও ধর্ষনের অপরাধী দেইল্যা রাজাকার।

সংবাদ সম্মেলনে সাঈদী বলেন, ইলেকশনের আগ পযন্ত অনেক টেনশনে আছিলাম। কিন্তু এখন ইলেকশন হইয়া গেছে। তাই আমি বেশী টেনশন করি নাই। সকল রাজাকারের ওস্তাদ বড় রাজাকার গোলাম আজম যেখানে নব্বই বতসরের আরামদণ্ড পাইয়া বংগবন্ধু মেডিকেলের তথাকথিত পৃজন সেলে সারাদিন টেলিভিশনে বেবী ডল নৃত্য অবলোকন করিয়া, সুস্বাদু খানাখাদ্য চাবাইয়া আর অলিভ অয়েল প্রয়গে হাগিয়া সুখে হায়াত গুজরান করিতেছে, সেইখানে আমি ছুট মানুষ ডরাব কেন?


কাশিমপুর জেলে মুবাইল সুবিধা আছে আলহামদুলিল্লাহ

আবেগঘন কণ্ঠে সাঈদী বলেন, কসাই কাদের পুলাটা কেলেন্ডারের কেলেংকারীতে অকালে ফাসি খাইয়া মরিল। কুনভাবে যদি সে তার মামলাটিকে কেলেন্ডারের এই পারে পাঠাইয়া দিতে পারত, সেও আজ আমার মত তিন বেলা ভালমন্দ খাইয়া মুবাইলে কলিজুদের সহিত দুদণ্ড রসের আলাপ করিতে পারত।

হাসতে হাসতে সাঈদী বলেন, আমি কসাই কাদেরকে দেখিয়া শিক্ষা লইছি। রিভিউয়ের আগ পযন্ত আমি আমার আংগুলের হেফাযত করব। আংগুল যথাস্থানে রাখলে কুন ডরভয় নাই। কসাই কাদেরের আংগুল অসময়ে বেজায়গায় উঠিয়া গিয়া তার গর্দানটিকে ডুবাইল। আমার আংগুল সর্বদাই আমার মেশিনের চারপাশে থাকে।

বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার প্রতি কঠর ভর্তসনা করে দেইল্যা রাজাকার বলেন, আরে তুরা সালা ঘোচুরা খালি ইলেকশন ইলেকশন করিস কেনে? ইলেকশন মানেই ত কুন না কুন খানকির পুলায়ে নায়েবের ফাসি। ২০১৯ সালের আগে কুন ইলেকশন মানি না।

পরবর্তী নির্বাচনে জয়লাভ করে দেশের নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়, টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয় ও বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফেক্টরীর দায়িত্ব গ্রহনের আগ্রহ প্রকাশ করে ইসলামের বাগানে ফুটন্ত গোলাপ বলেন, এই যুগান্তকারী রায়ের মাধ্যমে বাকশাল টেবিলে পাও ঝুলাইয়া শুইয়া পড়ছে।

কাশিমপুর কারাগারে মুবাইল যোগাযোগের সুবিধার প্রসংশা করে সাঈদী বলেন, দিন রাত ২৪ ঘণ্টা এইখানে নেটওয়াক থাকে। ইসলামী ছাত্রী সংস্থার নাতনীগুলিরে ধন্যবাদ। তুমরা না থাকলে বাদ এশা এত মিস্টি হত না।

ফেসিবাদী বাকশালের মহিলা আমীর জননেত্রী ভাষা কন্যা গনতন্ত্রের মানস কন্যা ড. শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে হাসতে হাসতে দেইল্যা রাজাকার বলেন, এক চতুর নার করকে সিংগার।

%d bloggers like this: