রাজনীতীতে নামবেন মুসা ইব্রাহীম

নিজস্ব মতিবেদক

এভারেষ্ট বেবসা ও বাংলা চেনেল বেবসায় লছ খেয়ে রাজনীতীর বেবসায় নামার অভিলাষ বেক্ত করেছেন বাংলাদেশের বিতর্কিত এভারেষ্ট সাটিফিকেট বিজয়ী পর্বত কারবারী ও বাংলার কলম্বাস মুসা ইব্রাহীম।

এভারেষ্টের অদুরে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর প্রেসক্লাবে শনিবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিলাষ বেক্ত করেন নর্থ আলপাইন মাউন্টেন ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা নায়েবে আমীর মুসা।

সংবাদ সম্মেলনে মুসা বলেন, দেশের প্রভাবশালী এলাকা কারওয়ানবাজারের দুয়ায় আমি এভারেষ্ট জয়ের সনদপত্র সংগ্রহ করছিলাম। কিন্তু বাংগালী মানী লুককে কখনও তাহার পাওনা সম্মান দেয় না। দেশে ফিরিয়া আসিবার পর আমি ভাবলাম, তখনই হয়ত কুন গ্রামের সংসদ সদস্যকে বহিষ্কার করিয়া আমায় সম্মানসুচক এমপি বানান হইবে। যুব ও কৃড়া মন্ত্রনালয়ে মন্ত্রী বানাইলেও আপত্তি করতাম না। কিন্তু ফেসিবাদী বাকশাল আমায় কুন পাত্তাই দিল না। পাচ বতসর ধরিয়া তাদের পিছনে ঘুরিয়া শুদু কখনও এক লক্ষ কখনও দুই লক্ষ টেকা বখশিশ আদায় করতে পারিয়াছি। বাকশালের মহিলা আমীরের কার্যালয়ে গিয়া অনেক চেস্টা করলাম যাতে এভারেষ্টের সনদপত্রের মুল্য বাবদ এক কুটি টেকা আমায় জনগনের তহবিল হইতে পরিশুধ করা হয়। কিন্তু উহারা আমায় বলল, টেকা কি বলদের পুটু দিয়া বাইর হয়?


মুসা ইব্রাহীম কোন দলে যোগ দিবেন তাহা এখনও পরিষ্কার নয়

হুহু করে কেদে উঠে মুসা ইব্রাহীম বলেন, এরপর ইনজিন চালিত নৌকায় চড়িয়া বাংলা চেনেল সাতরাইয়া পাড়ি দিলাম। নর্থ আলপিন ক্লাবের আমীর ও কারওয়ানবাজারের উপসর্দার আল্লামা আমিষুল হক পুটুনদা আমায় বললেন, তুমায় যখন বাংলার তেনজিং বানাইতে পারলুম না, এইবার তুমায় বাংলার ব্রজেন দাশ বানাইয়া ছাড়ব। আমি তার চক্ষে চক্ষু রাখিয়া বললাম, আখিয়ো সে গুল্লি মারে লাড়কা কামাল রে। সে গুল্লি খাইয়া পুটুনদা কাবু হইলেও বাংলার ফেসিবাদী জনগন পটিল না। কতিপয় নৃসংশ সাংবাদিক ভিডু সংগ্রহ করিয়া টেলিভিশনে প্রচার করিয়া দিল। বাংলা চেনেল নৌকা দিয়া পাড়ি দিতে পারলাম ঠিকই, কিন্তু একাত্তর চেনেলরে মেনেজ করতে পারলাম না। সালা ঘোচু।

অশ্রু মুছে মুসা ইব্রাহীম বলেন, হতে চেয়েছিনু বাংলার ব্রজেন দাশ, হয়ে গেনু বাংলার কলম্বাশ।

বাংলার জনগনের উপর রাগারাগি করে বাংলার কলম্বাস বলেন, বাংলার জনগন একটি অভিশাপ। কি ক্ষতি হইত যদি আমায় বছর বছর এক দুই কুটি টেকা স্পনসরশীপ দেওয়া হইত? পৃথীবিতে কত চেনেল এখনও নৌকায় চড়িয়া পাড়ি দেওয়া বাকি।

বাংলার জনগনকে উচিত শিক্ষা দেওয়ার প্রত্যয় বেক্ত করে মুসা বলেন, সবাই শুদু শিক্ষা শিক্ষা করে। আমি বলি, আমি দিব উচিত শিক্ষা। তাই ত পলিটিকশে নামতেছি। জনগনকে গঠনমুলক রাজনীতীর বাড়ি দিয়া লাইনে লইয়া আসব। আমার ঘনিষ্ঠ বন্দু ও কারওয়ানবাজারের উপসর্দার পুটুনদা ঠিকই বলছেন, বানিজ্যের রাজা পলিটিকশ। এইসব এভারেষ্ট বাংলা চেনেল বেচিয়া আর কতদিন?

পাঠ্যপুস্তকের বাইরের জ্ঞান আহরনের উপর জোর দিয়ে ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশে মুসা ইব্রাহীম বলেন, পাঠ্যপুস্তকে ইদানীং কুন কাজের কথা লিখা থাকে না। কিরুপে কারওয়ানবাজারের বন্দুদের সংগে নিয়া স্পনসরশীপ যোগাড় করিতে হয়, পাঠ্যপুস্তক পড়িলে জীবনেও শিখতে পারতাম না। নটবই গাইটবই ইত্যাদি দিয়া অবশ্য কুনমতে কাম চালান যায়। আর যেখানেই আটকাইয়া যাইবা, পাশের জনের খাতা লইয়া উহার উপরে নিজের নাম লিখিয়া জমা দিবা। আমার সাংবাদিক জীবন ত এই নিয়মেই কাটাইলাম।

Tags:

6 Comments to “রাজনীতীতে নামবেন মুসা ইব্রাহীম”

  1. এভারেষ্টের অদুরে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর প্রেসক্লাবে … Epic

  2. কিন্তু উহারা আমায় বলল, টেকা কি বলদের পুটু দিয়া বাইর হয়?

  3. মুসার জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। ন্যান্সির তবু দেহ আছে, মুসা একটা বলদ।

  4. ঐ মিছা ই ব্রাহীন আমাদের দেশের কলংক। আপনাদের মতিবেদকের মতিবেদন অতি চমতকার। তবে সর্দারের নাম মতিচুর বহমান এবং উপসর্দারের নাম বদল করে আমিশূল হুককা রাখার প্রস্তাব করছি।

  5. মুসার জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। ন্যান্সির তবু দেহ আছে, মুসা একটা বলদ।

    চ্রম

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: