নুর হোসেনের জন্যি এরশাদের কান্না ও কবিতা

নিজস্ব মতিবেদক

নারায়নগঞ্জের চাঞ্চল্যকর সাত খুন মামলার পলাতক আসামী ও বর্তমানে পশ্চিম বংগের কারাগারে বন্দী নুর হোসেনের জন্য কান্নাকাটি করেছেন সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু ফাদার অফ কৃকেট শায়েরে আজম আলহাজ্জ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

সোমবার মধ্য রাত্রে নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কান্নাকাটি করেন পল্লীবন্ধু।

সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ বলেন, কত লোকে কত কথা বলে, কিন্তু নুর হোসেনের নামে কুন মনুমেন্ট তৈরি হল না।

আবেগঘন কণ্ঠে ফাদার অফ কৃকেট বলেন, তুমরা সবাই খালি নুর হোসেন নুর হোসেন বলিয়া কাউকাউ কর, কেউ কি তার পরিবারের কুন খবর নিছ? অতছ এই সাবেক স্বৈরাচারই নুর হোসেনের বাড়ি গিয়া তার বান্দুভীকে বুকে টানিয়া লইয়া সান্তনা দিছিল। তুমাদের কাউকে সেখানে দেখা যায় নাই। ইহাই তুমরার গনতন্ত্র?


কান্নায় ভেংগে পড়লেন পল্লীবন্ধু

হুহু করে কেদে উঠে শায়েরে আজম বলেন, নুর হোসেন এখন পচ্চিম বংগের কারাগারে বন্দী। আমিও কারাগারে বন্দী আছিলাম, কারাগারের কস্ট আমি বুঝি। আমার আশংকা হইতেছে পচ্চিম বংগের কারাগারের বাকি আসামীরা উহার পুটু মারিয়া বর্ধমান বানাইয়া দিতেছে।

অশ্রু মুছে পল্লীবন্ধু বলেন, মাত্র সাতটি খুন করিয়া পুলাটা ফেরার হইল। পলানির আগে টেকাটুকা কার হাতে দিয়া গেছে কে জানে। আমি যখন কারাগারে ঢুকি, সকল টেকা আমার বিশ্বস্ত চামচা নাজিউর রহমান মঞ্জুর হাতে দিয়া গেছিলুম। খানকির পুলা আমার হাজার হাজার কুটি টেকা মারিয়া দিয়া নতুন পাটি খুলিল। কয়েক দিনের বেবধানে আমীর হতে ফকিরে পরিনত হইলাম। ইহাই তুমরার গনতন্ত্র?

আবারও কান্নায় ভেংগে পড়ে সাবেক স্বৈরাচার বলেন, কেউ আমায় ভালবাসে না। আমি কুন কাজ করলেই উহাতে দুষ খুজিয়া বাইর করে। আমি দুটু ভাল জামা কাপড় পিন্দিলে তারা দুষ পায়, কবিতা লিখলে দুষ পায়। আরে সালা ঘোচুর দল, আমি ত মিলিটারীতে ঢুকছিলাম কবিতা রচনার জন্যি। পাকিস্তান মিলিটারীতে কুন কাজ কাম করতে হইত না, যত ক্ষন খুশি কবিতা রচনা করা যাইত।

পলাতক নুর হোসেনকে উদ্দেশ করে শায়েরে আজম বলেন, যে সাতজনকে খুন করিয়াছ, দেশে ফিরিয়া উহাদের পরিবারের সংগে যুগাযুগ করিও। আমি যাদের যাদের পুলিশ লেলাইয়া খুন করছিলাম, সকলের পরিবারের সংগে দেখা করছি। শহীদ দেলয়ারের মাকে গিয়া বলছি, মা তুমার এক পুলারে খুন করাইছি, এখন আমিই তুমার পুলা। শহীদ মিলনের স্ত্রীকে গিয়াও কাছাকাছি সংলাপ দেওয়ার ইচ্ছা আছিল, কিন্তু ডর লাগে।

সান্তনা দেওয়ার জন্য শহীদ দীপালী সাহার পরিবারকে খুজে না পাওয়ার কথা জানিয়ে পল্লীবন্ধু বলেন, দীপালী সাহার পরিবারের কাউরে না পাইয়া ক্ষতি পুরন হিসাবে মুন্নী সাহাকে কাছে টানিয়া লইছি। তারপরও তুমরা আমায় স্বৈরাচার বল। ইহাই তুমরার গনতন্ত্র?

সংবাদ সম্মেলন শেষে নুর হোসেনের উদ্দেশে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন পল্লীবন্ধু।

আমি ও নুরু
———-

শুন শুন নুরু
আমি তুমার গুরু
তুমার খেলা যেখানে শেষ, আমার সেখানে শুরু।

ওরে নুরু শুন
পলাইছ করিয়া মাত্র সাতখানি খুন

আমি কত মারিয়াছি শুনবা?
লেখাপড়া জান যে গুনবা?

নুরু তুমার জন্যি জাতীয় পাটিতে খালি সিট
কয়েক কুটি টেকা দিলেই প্রেসিডিয়ামে করিয়া দিব ফিট

সঠিক পাটিতে যদি থাক তবে হে আমার নুর
সাতশ খুনের পরেও কেউ বালটাও ফালাইতে পারবে না তুর।

One Comment to “নুর হোসেনের জন্যি এরশাদের কান্না ও কবিতা”

  1. পচ্চিম বংগের কারাগারের বাকি আসামীরা উহার পুটু মারিয়া বর্ধমান বানাইয়া দিতেছে। :*

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: