ভয়াল কালরাত্রির বর্ননা দিতে গিয়ে কেদে ফেললেন সাবিহউদ্দীন

নিজস্ব মতিবেদক

বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসির গুলশান কার্যালয়ে ক্ষমতাসীন স্বৈরাচার বাকশালের ফেসিবাদী পুলিশের হাতে সারা রাত গৃহবন্দী থাকার বর্ননা দিতে গিয়ে কেদে ফেললেন মাদারে গনতন্ত্রের কূটনৈতিক উপদেস্টা সাবিহউদ্দীন আহমদ।

আজ গুলশান কার্যালয়ের শৌচাগারে বসে ফিসফিস করে এ কালরাত্রির বর্ননা দেন মাদারে গনতন্ত্রের উপদেস্টা সাবিহ।

মতিকণ্ঠকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সাবিহউদ্দীন আহমদ গুলশান কার্যালয়ে কাটান ৪ঠা জানুয়ারীর কালরাত্রির কথা তুলে ধরেন।

আবেগঘন কণ্ঠে সাবিহ বলেন, তখন অনেক রাত। চার কুলে কুয়াশা। মেডাম, আমি, ফেন্টাষ্টিক ফাইভ ও কতিপয় গুড়াগাড়া জাতীয়তাবাদী নেতা মিটিং করতেছি। এমন সময় শফিক রেহমান মেডামের সহকারী শিমুল বিশ্বাসরে মুঠফুন মারিয়া বলল, বাকশালের ফেসিবাদী পুলিশ রুহুল কবীর রিজভীরে বলপুর্বক চিকিতসা দিতে এপলু হাসপাতালে লইয়া গেছে। যাওনের আগে নয়া পল্টন কার্যালয়ে তালা মারিয়া দিয়া গেছে। এই কথা শুনিয়া মেডাম বললেন, আমার গাড়ী বাইর কর। রিজভীরে এপলুতে দেখিয়া আসি। আমি বললাম, মেডাম, এত রাত্রে এপলুতে রুগী দেখতে গেলে আপনার পিছে পিছে পুলিশ যাইবে, সাংবাদিক যাইবে, সিকুরিটি যাইবে, অনেক গণ্ডগুল হবে, রাত্রকালে এপলুর অন্যান্য রুগীদের দিষ্টাপ হবে। তখন মেডাম আমায় ধমক দিয়া বললেন, এপলুর রুগীদিগের দিষ্টাপ হইলে আমার কি?

মন খারাপ করে সাবিহউদ্দীন বলেন, কিন্তু মেডামের গাড়ী ফেসিবাদী পুলিশের বালু ভরা ট্রাক আটকাইয়া দিল। মেডামের সহকারী শিমুল বিশ্বাস যখন পুলিশরে ট্রাক সরাইতে বলল, পুলিশ তাহাকে খেদাইয়া দিল। তখন মেডাম আবার কার্যালয়ে ফিরত আসিয়া বললেন, রিজভী জাহান্নামে যাক। আমি ঘুমাইতে গেলাম। তুমরা এইখানেই লেপ কম্বল লইয়া ফ্লরিং কর।

হুহু করে কেদে উঠে সাবিহ উপদেস্টা বলেন, এরপর আমরা সবাই মেডামের চেয়ার টেবিল ফৃজ ধরাধরি করিয়া সরাইয়া কার্যালয় কক্ষে তাহার মজবুত পালংক ফিট করিয়া দিলাম। তারপর ক্লান্ত শ্রান্ত হইয়া যখন নিজেরা নিচতলার একটি কক্ষে ফ্লরিং করতে গেলাম, তখন দেখি সেখানে বসিয়া ফেন্টাষ্টিক ফাইব অনতাকশরী খেলতেছে।

কাদতে কাদতে সাবিহ বলেন, ৪ঠা জানুয়ারীর কালরাত্রি ফেন্টাষ্টিক ফাইবের সংগে এক কক্ষে ফ্লরিং করিয়া কাটাইতে হইছে। বিস্তারিত বলিতে চাই না, শুদু বলতে চাই, বিএনপি শাখার আর কুন নেতাকে যেন এয়সা বেইজ্জতির ভিতর দিয়া যাইতে না হয়।

পাপিয়া পাণ্ডের প্রতি ইংগীত করে সাবিহ উপদেস্টা বলেন, বাইরে বাকশালের ফেসিবাদী পুলিশ আর ভিতরে নাচে-গানে পারদর্শী পাণ্ডে-ইন-চিফ পাপিয়া পাণ্ডে। কালরাত্রির এক পর্যায়ে মনে হইছিল, ফেনের সংগে পেন্ট বান্ধিয়া ফাসি খাই। কিন্তু গদিতে গিয়া বিএনপি শাখার দীপু মনি হওয়ার লালচে এ ভাবনা কার্যকর করা হতে বিরত থাকি।

কান্নায় ভেংগে পড়ে সাবিহউদ্দীন বলেন, এইবারের বইমেলায় এই কালরাত্রি নিয়া একটি পুস্তক ছাপাইব। ঠিক করছি পুস্তকের নাম দিব দি ডার্ক নাইট রাইজেস।

পাপিয়া পাণ্ডেকে ‘বেবিডল হে সনেদি’ গানটি আর কোন দিন না গাওয়ার আহোভান জানিয়ে সাবিহ উপদেস্টা বলেন, বাবা বলে গেল আর কুনদিন গান কর না।

One Comment to “ভয়াল কালরাত্রির বর্ননা দিতে গিয়ে কেদে ফেললেন সাবিহউদ্দীন”

  1. //এমন সময় শফিক রেহমান মেডামের সহকারী শিমুল বিশ্বাসরে মুঠফুন মারিয়া বলল, বাকশালের ফেসিবাদী পুলিশ রুহুল কবীর রিজভীরে বলপুর্বক চিকিতসা দিতে এপলু হাসপাতালে লইয়া গেছে। //

    হাসতে হাসতে শেষ !!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: