ট্রাকের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বলপ্রয়গের অভিযোগ করেছে এইচআরডব্লিউ

মানবাধিকার মতিবেদক

বাংলাদেশে চলমান রাজনৈতিক সহিংসতার প্রেক্ষাপটে ট্রাকের বিরুদ্ধে ‘অতিরিক্ত বলপ্রয়গের’ অভিযোগ করেছে যুক্তরাস্ট্র ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা হিউমেন রাইটস ওয়াচ ওরফে এইচআরডব্লিউ।

সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের ট্রাক সমুহের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লংঘন ও অতিরিক্ত বলপ্রয়গের অভিযোগ এনে ট্রাকের বিরুদ্ধে সরকারের উদাসীনতাকে দায়ী করেছেন এইচআরডব্লিউ এর দক্ষিন এশিয়ার আমীর আল্লামা ব্রেড এডামস।

প্রতিবেদনে ব্রেড এডামস বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী যে নির্বাচন হয়েছে, সেটি কুনমতেই মানিয়া লওন যায় না। এই বতসর সেই কালরাত্রির এক বতসর পুর্তি উপলক্ষে বৃহত্তর জামায়াত শান্তি পুর্ন ভাবে মনির পুড়ানির মাধ্যমে বাংলাদেশে পন্য সরবরাহে বিঘ্ন ঘটানর কর্মসুচী হাতে লইছিল। কিন্তু তাহাদের শান্তি পুর্ন কর্মসুচী কতিপয় ট্রাকের অতিরিক্ত বলপ্রয়গের কারনে পণ্ড হইতেছে।


ঘাতক ট্রাক মানে না মানবাধিকার

আবেগঘন ফন্টে আল্লামা এডামস বলেন, বৃহত্তর জামায়াতের কর্মসুচী সম্পর্কে বাংলাদেশের ৯৯ শতাংশ আল্লাহভীরু জনগনের কুন আপত্তি নাই। বাংলাদেশে ইসলামের সোল এজেন্ট ও হেফাজতে ইসলামের আমীর উপমহাদেশের সর্বাপেক্ষা হিট আলেম আল্লামা রাজ শাহ আহমদ শফী ১৩ দফায় মমবাত্তি প্রজ্জলনের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষনা করলেও মনির প্রজ্জলনের বিরুদ্ধে কুন টে-ফ করেন নাই। উহা হতেই প্রমানিত হয় যে মনির পুড়াইলে ইসলামের কুন ক্ষতি নাই। অতছ এই শান্তি পুর্ন মনির পুড়ানি কর্মসুচীতে ক্ষমতাসীন স্বৈরাচার বাকশালের মদদপুস্ট কতিপয় ফেসিবাদী ট্রাক অতিরিক্ত বলপ্রয়গের মাধ্যমে এই জেহাদে বিঘ্ন ঘটাইয়া বৃহত্তর জামায়াতের মধ্যে সরকারের এজেন্টরুপী কতিপয় তরুন মুজাহিদের মানবাধিকার চুর্ন করিয়াছে।

হুহু করে কান্নার ইমটিকন ( 😥 ) দিয়ে প্রতিবেদনে এডামস বলেন, এই বতসর শান্তি পুর্ন মনির পুড়ানি কর্মসুচী শুরু হওয়ার পর শান্তি পুর্ন ভাবে ট্রাকে আগুন লাগানির মত মৌলিক মানবাধিকার চর্চা করতে গিয়া চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার চুনতি এলাকায় বৃহত্তর জামায়াতের ছাত্র শাখা ইসলামী ছাত্র শিবিরের সরকারী এজেন্ট জুবায়ের ইসলাম, রাজশাহীর গোদাগাড়ীর নবগ্রামে বিএনপি শাখার যুব শাখার সরকারী এজেন্ট ইসলাম হোসেন ও চাপাইনবাবগঞ্জের লালাপাড়ায় ইসলামী ছাত্র শিবিরের সরকারী এজেন্ট আসাদুল্লাহ তুহিন ট্রাকের নিচে পিস্ট হইয়া ইনতেকাল ফরমাইয়াছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দলনের আমীর ইলিয়াস কাঞ্চনের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে ব্রেড এডামস বলেন, আজ বাংলার মোড়ে মোড়ে বোমার পেট্রল বোমার ভিতরে লইয়াই ট্রাকের নিচে পিস্ট হইতেছে বৃহত্তর জামায়াতের সরকারী এজেন্ট মুজাহিদগন। বাংলার এ দুর্যগের দিনে কাঞ্চইন্যা তুই কই রে?

অবিলম্বে সরকারের প্রতি ট্রাকের ওজন হ্রাসের জন্য প্রয়জনীয় সকল বেবস্থা গ্রহন করার দাবী জানিয়ে প্রতিবেদনে আল্লামা এডামস বলেন, ট্রাকগুলু বেশী ভারী। সরকারকে ট্রাকের ওজন কমাইয়া এমন বেবস্থা করতে হবে যাতে গায়ের উপরে ট্রাক উঠিলেও মুজাহিদদের কুন ক্ষয়ক্ষতি না হয়।

ধাতুর বদলে কাঠ দিয়ে ট্রাকের বডি প্রস্তুত করার আহোভান জানিয়ে ব্রেড এডামস বলেন, ট্রাকগুলু যথেস্ট দাহ্য নহে। অনেক সময় একটি পেট্রল বুমা মারিলে কাজ হয় না, চার পাচটি মারতে হয়। এতে করে বৃহত্তর জামায়াতের তহবিলে টান পড়িয়া মানবাধিকার সংকট সৃস্টি হইতেছে। সকল টেকা পেট্রল বুমায় খরচ হইয়া গেলে মানবাধিকার সংস্থাগুলু ভাগে কিছু পাইবে না। উহাই মানবাধিকার সংকট।

এ বেপারে দেশের শুদ্ধতম মানবাধিকার কর্মী ও বিএনপি শাখার মানবাধিকার উপশাখার আমীর আদিলুর রহমান শুভ্র ওরফে কানাবাবা শুভ্র মতিকণ্ঠকে বলেন, এডামসের হিসাবে কিছু ভুল আছে। ট্রাকের নিচে চাপা পড়িয়া এ পযন্ত বৃহত্তর জামায়াতের ৬১ জন নিহত হইছে।

কিভাবে তিনি এ সংখ্যা সম্পর্কে নিশ্চিত হলেন, এমন প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে কানাবাবা শুভ্র বলেন, ভদ্রলোকের এক জবান

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: