ইমরান খানের বিবাহ ভাঙ্গায় কারওয়ানবাজার ও গুলশানে আনন্দ মিছিল

নিজস্ব মতিবেদক

বিবাহের দশ মাসের মাথায় পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও পাকিস্তানের তেহরিকি ইনসাফ দলের আমীর দুর্ধর্ষ প্লেবয় তালুই-এ-তালেবান আল্লামা ইমরান খান নিয়াজীর সংগে তার ২০১৫ সালের বিবি রেহাম খানের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটায় বাংলাদেশের প্রভাবশালী এলাকা কারওয়ানবাজার ও গুলশানে বয়ে গেছে আনন্দের হিল্লোল।

শুক্রবার এক বাদ জুম্মা টুইটার বার্তায় ইমরান খান নিয়াজী নিজের বিবাহ ভাংগার সংবাদ প্রকাশ করেন।

টুইটারে তালুই-এ-তালেবান বলেন, দুস্ট গরুর চেয়ে শুন্য গোয়াল ভাল। অনেক সহ্য করছি, আর নহে। রেহাম বিবিরে তালাক দিয়া দিলুম। আমি আবার সিংগেল। সম্ভ্রান্ত মুসলমান বংশের দুস্টু দুস্টু মেয়েরা আমার বাসায় আসিও। গল্প করব। একা একা ভাল লাগে না।

বিবাহের আসরে মাফ ও দুয়া চাইছেন ইমরান ও রেহাম

আবেগঘন ফন্টে ইমরান খান টুইটারে বলেন, রেহাম খানের রুপের জৌলুশে জিসমের আগুনে ভুলিয়া আমি তাহাকে বিবাহ করিয়া ফেলাই। আমার আব্বি আম্মি আমায় তখন বলছিলেন, বেটা তুর বয়স বাষট্টি, আর ঐ চুড়েলের বয়স বিয়াল্লিশ। জীবনের এই স্লগ ওভারে তুই কি উহার সাথে বেটিং করিয়া কুলাইতে পারিবি? আমি তখন কয়েছিলুম, আব্বিজান! আম্মিজান! ডর মাত, সংগে আছে বিজয় টেবলেট।

হুহু করে কেদে ফেলার ইমটিকন দিয়ে ইমরান খান নিয়াজী টুইটারে বলেন, কিন্তু গত দশ মাসে রেহাম বিবির কার্যকলাপ দেখিয়া বুঝলাম, তাহার সংগে আমি পারিয়া উঠব না। সে বিবিসিতে চাকরি করার নাম করিয়া টেলিভিশনে শুয়রের গুস্ত রান্না করে। আমার তেহরিকি ইনসাফ পাটির নানা কামেও সে আমীরের বেগম হিসাবে খবরদারী করে। তার পাল্লায় পড়িয়া একটি উপ নির্বাচনে আমার জামানত বাজেয়াপ্ত হইয়াছে।

চতুর্থ টুইটে ইমরান ঘোষনা করেন, রেহাম বিবি শুধু নাস্তিকই নহে, সে একটি কুফা। আমার চাপাতিটি কে যেন হাওলাত লইয়াছে। তাই চাপাতির অভাবে উহাকে তালাক দিয়া দিলুম।

ইমরান খান নিয়াজীর এরুপ ঘোষনার পর কারওয়ানবাজার এলাকায় দেশের সর্বাপেক্ষা বিখ্যেত কৃড়া সাংবাদিক উতপুটুন শুভ্র এবং বাংলার সেরা বিজ্ঞাপন নির্মাতা ও টেলিভিশনে ইসলামী অনুষ্ঠান উপস্থাপকদের প্রভাবশালী সংগঠন ‘এশশিয়েশন অফ ইসলামী মিডিয়া পারসনালিটি’র বর্তমান আমীর বাংলার ডেভিড ধাওয়ান আল্লামা মস্তফা সরয়ার ফারুকীর যৌথ নেতৃত্বে একটি আনন্দ মিছিল বের হয়। এ সময় কারওয়ানবাজারের কৃড়া বিভাগের কামলারা একে অপরকে মিস্টিমুখ করান।

আনন্দ মিছিলটি কারওয়ানবাজার প্রদক্ষিন করে এসে কারওয়ানবাজারের কেন্দৃয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান গ্রহন করে। উতপুটুন শুভ্র সেখানে এক শুভেচ্ছা বক্তৃতায় বলেন, ইমরান খান নিয়াজীর অপয়া বিবি ছিল একটি পথের কাটা। আজ ইমরান উহাকে দুর করেছে। একটি বিরাট শুন্য স্থান সৃস্টি হয়েছে। কিন্তু প্রকৃতি শুন্যতা পছন্দ করে না। শুন্য কিছু পাইলেই প্রকৃতি ঐখানে ভরে দেয়।

আবেগঘন কণ্ঠে উতপুটুন শুভ্র বলেন, আল্লামা ইমরান খান ইতিপুর্বেও শয়তানের ওয়াসওয়াসায় ফাসিয়া জমিমা গল্ডস্মিথ নামক এক ইয়াহুদী নারীকে বিবি বানাইয়া ঘরে তুলিয়াছিলেন। তারপর আবার রেহাম বিবির ছলনায় ভুলিয়া উহাকে নিকাহ করিয়াছেন। এইরুপ যাতে আর না হয়, তাই ইমরান খান নিয়াজীকে আহোভান জানাই। এখনও সময় আছে, আসুন আমরা পরস্পর সুখের সংসার বান্ধিয়া ইসলামের পতাকা তলে শামিল হই।

সলজ্জ হেসে উতপুটুন শুভ্র বলেন, আপনি হাঁ বলিলে আমি ওয়াহাব রিয়াজকে না বলিয়া দিব।

শুভেচ্ছা বক্তৃতায় বাংলার ধাওয়ান মস্তফা ফারুকী বলেন, পাকিস্তানে সম্প্রতি ভুমিকম্প হইয়া শত সহস্র মমিন মুসলমান শাহাদত বরন করেছেন। উহাদের জন্য দিলটা পুড়ে। কিছু একটা করতে মন চায়। তাই ইমরান খানকে বিবাহ করিব ঠিক করলাম। ইহা উতপুটুন শুভ্র ভাইয়ের কেস নহে, ইহা কুন কামনা বাসনা লালসার বেপার নহে। এই বিবাহ দুর্গতদের জন্য ত্রান মাত্র। পাকিস্তানের ভুমি এখনও কাপতেছে। কাপাকাপি থামলেই আমি আবার ইমরান খানকে তালাক দিয়া বাংলার বুকে ফিরে আসব।

এদিকে ইমরান খান নিয়াজীর বিবাহ বিচ্ছেদের সংবাদ বাংলাদেশের প্রভাবশালী এলাকা গুলশানে পৌছানর পর সেখানেও আনন্দ ঘন পরিবেশ সৃস্টি হয়। উপস্থিত জাতীয় পাটির নেতারা এ সময় সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু ফাদারে কৃকেট শায়েরে আজম আলহাজ্জ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে সংগে নিয়ে আনন্দ মিছিল বের করেন ও পরস্পরকে মিস্টিমুখ করান।

আনন্দ মিছিল নিয়ে গুলশান কুটনৈতিক পাড়া প্রদক্ষিন করে নিজ বাসভবনের সামনে এসে এক বক্তৃতায় ফাদারে কৃকেট পল্লীবন্ধু এরশাদ বলেন, ইমরান খান নিয়াজীর বিবাহ বিচ্ছেদেই প্রমান হয়েছে, বাকশাল সরকার সম্পুর্ন বের্থ। বাকশাল সরকারের বের্থতার কারনেই খানের বেটার এই হাল।

রেহাম খানের রুপের জৌলুশ ও জিসমের আগুনের প্রসংশা করে পল্লীবন্ধু বলেন, রেহাম বিবির বয়স মাত্র বিয়াল্লিশ। ছুটকালে কত ভুল ভ্রান্তিই ত হয়। ইহা কুন বেপারই নহে। বয়সের দুষে রেহাম বিবি ভুলিয়া গেছিল যে অল্ড ইজ গল্ড। সেদিনের পুলা ইমরান খানের পিছে না দৌড়াইয়া সে আমার কাছে আসিলে আজ তার এইরুপ দুর্দশা হত না। তেহরিকি ইনসাফ একটি ফালতু রাজনৈতিক পাটি। পাটির মত পাটি একটাই, সেটি আমার জাতীয় পাটি। রাজনীতী করার খায়েশ হইলে গুলশানে আসিয়া জাতীয় পাটির হাল ধর।

রেহাম খানকে বিবাহের প্রস্তাব দিয়ে সাবেক স্বৈরাচার বলেন, রেহাম তুমি আইস আমার হারেমে, দুইজনাতে থাকব সুখে আরেমে।

6 Comments to “ইমরান খানের বিবাহ ভাঙ্গায় কারওয়ানবাজার ও গুলশানে আনন্দ মিছিল”

  1. Another gem by মতিকন্ঠ… মিস করছি এতদিন।

  2. বহুদিন পর পৈশাচিক বিনোদন পেলাম।

  3. রেহাম তুমি আইস আমার হারেমে, দুইজনাতে থাকব সুখে আরেমে।

  4. রেহাম তুমি আইস আমার হারেমে, দুইজনাতে থাকব সুখে আরেমে। .. 😛

  5. মনে হচ্ছে মতিবেদক চেঞ্জ হয়েছে… কোন ঘোষণা ছাড়াই পূর্বেকার উটপাল শুভঢ়ো কিভাবে উতপুটুন হয়ে গেল বুঝলাম না…

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: