জন্মেই দেখি ক্ষুব্ধ স্বদেশ ভুমি: ফখা

নিজস্ব মতিবেদক

সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে গভীর হতাশা বেক্ত করে বিএনপি শাখার ভাঁড়মুক্ত নায়েবে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’, লনডনে পলাতক চিকিতসাধীন আওলাদে আমীর বড় গুণ্ডে কতৃক ‘হাইড এন্ড সিক’ গালিতে ভুষিত ও ঈদুল কতলের টেলেন্ট হান্ট প্রতিযোগীতায় ‘ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি’ খেতাবে সমাদৃত মির্জা বাড়ির বড় গৌরব আল্লামা মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখা বলেছেন, আর ভাল লাগে না।

আজ লনডনে আরাম দায়ক বিলাস বহুল এক হোটেল কক্ষে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে রাগারাগি করে আগুনগীর বলেন, এতদিন আছিলুম ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর। এখন ভাঁড়মুক্ত হইয়া আমার পুনজন্ম হইল। কিন্তু জন্মেই দেখি ক্ষুব্ধ স্বদেশ ভুমি।

কারও নাম প্রকাশ না করে ইংগিতে ফখা ইবনে চখা বলেন, গত মাসে অষ্টেলিয়ায় কন্যার কাছে বেড়াইতে যাব বলিয়া ছুটকেছ গুছাইতেছিলুম, এমন সময় আতকা লনডন হতে একটি মিসকল আসিল। আমি পাল্টা কল দিয়া সালাম দিয়া বললাম, ছার কাইফা হালুকা? বিবিসাবের শইলডা ভালা? জবাবে প্রভাবশালী এক বেক্তি আমায় বলল, হাইড এন্ড সিক মির্জাফখ সাহেব, মারহাবা। আপনি ভাঁড়মুক্ত নায়েবে আমীর হইছেন, এই উছিলায় আপনারে খাওয়াইতে চাই। জুলাই মাসের এক তারিখে আপনি তারাবীর নামাজের পর গুলশানের হলি আটিজান বেকারীতে গিয়া ইচ্ছামত খাদ্য ভক্ষন করেন, বিল যা উঠে আমি বাকী ফালাব। পিজ্জা পাস্তা পেটিস সব আমার তরফ হইতে। আপনি শুদু যাইবেন আর খাইবেন। তবে এই অফার সিমিত সময়ের জন্য।


জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’

হুহু করে কেদে উঠে আগুনগীর বলেন, তখনই মনে খটকা লাগায় আমি আর এই অফার কামে না লাগাইয়া চলিয়া গেলুম অষ্টেলিয়া আমার কন্যার বাড়ি। দুসরা জুলাই দুপুর বেলা রোজা পেটে শুইয়া শুইয়া মকসেদুল মুমেনিনের মলাট লাগাইয়া মাসুদ রানার ‘মুল্য এক কুটি টেকা মাত্র’ বইখানি পড়তেছিলুম, আতকা আমার কন্যা মির্জা তানিয়া ও পুত্র মির্জা সুমন আসিয়া আনন্দে চিক্কুর দিয়া বলল, আব্বা আব্বা ঢাকার রাস্তায় টেংক নামছে।

অশ্রু মুছে ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি বলেন, আনন্দে আমি তখন নাচতে নাচতে রবী ঠাকুরের গানে অষ্টেলিয়ার ফ্লেবার দিয়া গান ধরিলাম, হৃদয় আমার নাচে রে আজিকে কেংগারুর মত নাচে রে। ঢাকার রাস্তায় টেংক নামা মানে শেখের বেটীর দফারফা। অর্থাত আবার আমরা গদিতে। আর এইবার যেহেতু ভাঁড়মুক্ত নায়েবে আমীর পদে প্রমুশন পাইয়াইলাইছি, স্বাস্থ্য বানিজ্য যোগাযোগ ইত্যাদি বড়লুকি মন্ত্রনালয় আমার পাওনা। নাচতে নাচতে বাবুর মারে ডাক দিয়া বললাম, ও গ মকসেদুল মুমেনিনটা দিয়া যাও, নফল নামাজের তরিকাটি দেখি। আর ইফতারের নাস্তায় কেংগারুর দপেয়াজা আর এমু পাখীর কোরমা রান্ধ। আজ ফির জিনে কি তামান্না হায়। জামাতা মির্জা ফরমানরে হাতে একশ ডলার দিয়া বললাম, যাও বাবাজী বাজার সদাই করিয়া আন।

আবেগঘন কণ্ঠে আগুনগীর বলেন, কিন্তু আমার সাজান বাগান শুকাইয়া গেল, যখন দেখলাম, টেংক শেখের বেটীর কুন ক্ষয়ক্ষতি না করিয়া গুলশানের হলি আটিজানে গুতাগুতি করিতেছে। তারপর টিভি রেডিউ ফেসবুক অনলাইন রিবিশন দিয়া জানতে পারলাম, হলি আটিজানে বাদ তারাবী জংগী হামলা হইছে। আমার গদির স্বপন খানখান ত হইলই, বাজার হইতে জামাতা ঘোচুটি কেংগারুর বদলে ওয়ালাবী আর এমু পাখীর বদলে গলাছিলা মুরগী আনিয়া হাজির হইল। ঢাকার খবর শুনিয়া জামাতা সালা আমার সংগে বাজার লইয়া উলটা রাগারাগি করিয়া বলল, সংসদের বাইরে বসিয়া রাজনীতী করলে ওয়ালাবী আর গলাছিলা মুরগী হইতে বেশী কিছু আশা করিয়েন না। কেংগারু খাইতে চান ত আগে মন্ত্রী হইয়া দেখান। আর এই সব রবী ঠাকুরের হিন্দুয়ানী গান হামারা মকান মে নাহি চলেগি। আনন্দে গান গাইতে হইলে নুসরাত ফতে আলীর কাওয়ালী গান।

কোন নাম প্রকাশ না করে ফখা বলেন, বহু আন্দুলন সংগ্রামের পর ভাঁড়মুক্ত নায়েবে আমীর হইলাম। কিন্তু প্রভাবশালীরা এমন আচরন করলে কেমনে চলিব?

হুহু করে কেদে উঠে আগুনগীর বলেন, আমার পাস্তাও গেল নাস্তাও গেল।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: