Archive for ‘শ্রীমতিকণ্ঠ’

August 20, 2015

ঢাকায় আসছেন সানি লিওন, সর্বনিম্ন টিকেট পনের হাজার টাকা

১ ২ ৩ ৪ ৫ ৬ ৭

January 6, 2015

‘লাথি মার ভাঙ্গ রে তালা’ বলায় ফখরুলের প্রতি ক্ষিপ্ত পাপিয়া

নিজস্ব মতিবেদক

প্রেস ক্লাবের আরাম দায়ক বিলাস বহুল পরিবেশে বসে অবিলম্বে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসিকে ফেসিবাদী বাকশালী সরকারের অবরোধ হতে অবিলম্বে মুক্ত করার আহোভান জানিয়ে ‘লাথি মার ভাঙ্গ রে তালা’ বলায় বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’, লনডনে পলাতক চিকিতসাধীন আওলাদে আমীর বড় গুণ্ডে কতৃক ‘হাইড এন্ড সিক’ গালিতে ভুষিত ও ঈদুল কতলের টেলেন্ট হান্ট প্রতিযোগীতায় ‘ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি’ খেতাবে সমাদৃত মির্জা বাড়ির বড় গৌরব আল্লামা মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়েছেন বিএনপি শাখার বিশেষ নৃশংস স্কোয়াড ফেন্টাষ্টিক ফাইভের সদস্য ও সাবেক মহিলা সংসদ সদস্য একশন লেডী এডভকেট পাপিয়া পাণ্ডে।

আজ মাদারে গনতন্ত্রর গুলশান কার্যালয়ে অবরুদ্ধ অবস্থায় আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে ফখরুলের প্রতি এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন পাপিয়া পাণ্ডে।

সংবাদ সম্মেলনে এডভকেট পাপিয়া বলেন, ইয়াতীমের হক্কের কয়েক কুটি টেকাটুকা মারিয়া দেওনের মামলায় ফেসিবাদী আদালতের জজ আবু আহমেদ জমাদর আগামী ৭ জানুয়ারী তারিখে মেডামকে হাজিরা দিতে হুকুম দিয়াছে। এইসব ফালতু মামলায় হাজিরা দিয়া অপমান হওয়ার ইচ্ছা আমাদিগের মেডামের নাই। তাই একটা গণ্ডগুল লাগাইয়া কুনমতে ৭ তারিখ পযন্ত গুলশান কার্যালয়ে আটক থাকাই মেডামের খায়েশ। কিন্তু ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর এই ফখা ঘোচুটি সংঘাত পুর্ন গুলশান হতে বহু দুরে প্রেস ক্লাবের আরাম দায়ক বিলাস বহুল এসি রুমে বসিয়া বলে, লাথি মার ভাঙ্গ রে তালা, যত সব বন্দী সালা ঘোচুর দলে মুক্তি দে দে দেতেই হবে।

আবেগঘন কণ্ঠে পাপিয়া পাণ্ডে বলেন, কত আলাপ আলচনা আন্দুলন সংগ্রামের পরে এই ইয়াতীমের টেকা মারার মামলা হতে গা বাচাইয়া থাকার একটি উপায় আবিস্কার হইছে। যখন খোদ বাকশাল সরকারই পুলিশ আর বালুর ট্রাক পাঠাইয়া মেডামরে আটকাইয়া রাখল, তখন এই ঘোচু আগুনগীর আসিয়া বলে, লাথি মার ভাঙ্গ রে তালা। আরে বেটা কমপ্লান বয়, এখন তালা ভাঙ্গিলে ৭ তারিখে আবু আহমেদ জমাদরের সামনে গিয়া হাজিরা দিতে হবে, উহা কি তুমি জান না? নাকি জানিয়া শুনিয়াই বাকশালের টেকা খাইয়া এই আবদার করতেছ?


লাথি মেরে তালা ভাঙ্গার আহোভান জানালেন ফখা ইবনে চখা

হুহু করে কেদে উঠে একশন লেডী বলেন, এমন হইবে তাহা আগে জানলে এই অভিশাপ বিএনপি শাখায় যোগ দিতাম না। মেডামের মুরুক্ষু আওলাদ লনডনে বসিয়া মদের টানে উলটা পালটা কথা কহে। মেডামের ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর মির্জা বাড়ির বড় গৌরব এই মধুর অবরধ ভাংগিয়া মেডামকে আদালতে ঠেলিয়া পাঠাইতে চায়। মেডামের মহানগর শাখার আমীর মির্জা বাড়ির খাট গৌরব মির্জা আব্বাসরে গত এক সপ্তা ধরিয়া খুজিয়া পাওয়া যাইতেছে না। মেডামকে রুটি-কলা-খিরাই-বিস্কুট খাইয়া এক কাপড়ে বড় হরলিকস বেতিত দিন কাটাইতে হইতেছে। আর মেডামের কার্যালয়ে এই শীতকালে ফেন্টাষ্টিক ফাইবের সহিত ফ্লরিং করতেছি আমি একাকী বেচারী পাপিয়া। এর মধ্যে ফখা ঘোচু আসিয়া কয় লাথি মার ভাঙ্গ রে তালা। সকল খাটনীর কাম সে আমায় করতে বলে। আরে বেটা তালা ভাঙ্গতে চাহ ত তুমি গুলশান আসিয়া লাথি মারিয়া দেখাও তুমি কত বড় ফখরুল কোবরা। অবলা নারীরে দিয়া ভাঙ্গাভাঙ্গির খাটনি খাটাও কেনে?

৭ জানুয়ারী যে কোন মুল্যে অবরুদ্ধ থাকার অংগীকার বেক্ত করে পাপিয়া পাণ্ডে বলেন, আবু আহমেদ জমাদর, করে না মেডামের সমাদর। ঐসব ইয়াতীমের টেকা মারার মামলা, তুলিয়া না লইলে চালাব শুদু হামলা। ৭ তারিখে সরাইয়া লও যদি বালু ভর্তি ট্রাক, ফুয়াদকে দিয়া করাইব তুমাদিগেরে …. ।

পাপিয়া পাণ্ডে বাক্য সম্পুর্ন না করায় উপস্থিত সাংবাদিকরা বক্তব্যের বাকি অংশ জানার জন্য চাপাচাপি করলে হাসতে হাসতে একশন লেডী বলেন, কিছু কথা থাক না গুপন।

November 26, 2014

ভিনা মালিকের ২৬ বতসরের কারাদণ্ড, আত্মহত্যার চেস্টা করলেন মতিচুর

পাকিস্তান মতিনিধি

পাকিস্তানের জিও টিভির বিখ্যেত প্রভাতী অনুষ্ঠান ‘উঠ জাগ পাকিস্তান’-এ কাওয়ালী সংগীতের পাশাপাশি নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে পাকিস্তানের আহলে সুন্নত ওয়াল জামাতের গিলগিট-বালতিস্তান শাখার ভাইস প্রেসিডেন্ট হেমায়েতুল্লাহ খানের ধর্মানুভুতিতে তিব্র আঘাত হানার অপরাধে পাকিস্তানের বিখ্যেত অভিনেত্রী ও কারওয়ানবাজারের হট ফেবারিট ভিনা মালিককে ২৬ বতসরের কারাদণ্ড দিয়েছেন গিলগিটের সন্ত্রাসবিরোধী আদালতের বিচারক রাজা শাহবাজ।

একই সাথে ভিনা মালিকের নেয় একটি পিশাচীনীকে শাদী করার অপরাধে ভিনা মালিকের স্বামী আসাদ মালিক, ভিনা মালিকের কাওয়ালী ও নৃত্য সঞ্চালনা করার অপরাধে উঠ জাগ পাকিস্তানের উপস্থাপিকা শায়েস্তা লদী ও এই অনুষ্ঠান প্রচারের অপরাধে জিও টিভির আমীর মির্জা শাকিলুর রহমান আলমগীরকেও ভিনা মালিকের সংগে কারাগারে একই কক্ষে ২৬ বতসর কারাভোগের দণ্ড দেন গিলগিটের হাকিম রাজা শাহবাজ।

এ রায় ঘোষনার পর ভিনা মালিক ও শায়েস্তা লদী অজ্ঞান হয়ে পড়েন। রায় শোনার পর ভিনা মালিকের মালিক আসাদ মালিক ও জিও টিভির মালিক মির্জা শাকিলুর রহমান আলমগীর পরস্পরের সংগে কোলাকুলি করেন ও নিজেদের মধ্যে এক রুপির একটি কয়েন নিয়ে টস করেন।


ধর্মানুভুতির শত্রু ভিনা মালিক

রায় ঘোষনার পর মামলার বাদী হেমায়েতুল্লাহ খান অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, আদালত মেরি জখম ধর্মানুভুতির প্রতি কুন সুবিচার নেহি কিয়া। ভিনা মালিকের নেয় একটি গনগনা গরম যুবতীকে ২৬ বতসরের জন্যি কারাগারে ঢুকাই দিলে মির্জা শাকিলুর রহমান আলমগীর বেতীত আর কারও কুন উপকার নেহি হগা।

আবেগঘন কণ্ঠে হেমায়েতুল্লাহ খান বলেন, দিনের পর দিন আমি ফজরের নামাজ আদায় করিয়া টিভি খুলিয়া জিও টিভিতে উঠ জাগ পাকিস্তান অবলোকন কিয়া। সাত সকালে ভিনা মালিকের কার্যকলাপ দেখলে যে কুন পুরুষের পাকিস্তান উঠতে ও জাগতে বাধ্য। আমার পাকিস্তানটিও তার বেতিক্রম নেহি। কিন্তু কাওয়ালীর সংগে এই পিশাচীনীর পাকিস্তান জাগান নৃত্য দেখার পর সেইদিন আমি আমার ধর্মানুভুতিতে চরম আঘাত পাই। এর ক্ষতি পুরন হিসাবে আদালত এই ভিনা মালিককে গনিমতের মাল ঘোষনা করে আমার বাড়িতে পাঠাইতে পারত। কিন্তু ইনসাফ এই দুনিয়া হতে উঠিয়া গেছে।


ধর্মানুভুতির শত্রু শায়েস্তা লদী

এদিকে কারওয়ানবাজারে ভিনা মালিকের কারাদণ্ডের খবর এসে পৌছালে সেখানে এক হৃদয় বিদারক পরিস্থিতির সৃস্টি হয়। কারওয়ানবাজারের সর্দার ও ১১০% অরাজনৈতিক সংগঠন ‘হেফাজতে মাহমুদুর’-এর প্রতিষ্ঠাতা আমীর আল্লামা মতিচুর রহমান আজমী এ সংবাদ শুনে কান্নায় ভেংগে পড়েন। এক পর্যায়ে তিনি ফৃজে সংরক্ষিত শফী হুগুরের পানিপড়ার বোতল এক ঢোকে সম্পুর্ন পান করে আত্মহত্যার চেস্টা করেন। এ সময় কারওয়ানবাজারের ছুটা কর্মীরা তাকে ধরাধরি করে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যায়।

স্কয়ার হাসপাতালের গেস্ট্র এন্টেরলজি বিভাগের প্রধান ডাঃ রফিকুল ইসলাম জোয়ারদার মতিকণ্ঠকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বর্তমানে মতিচুরকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। ৭২ ঘণ্টা পার না হলে কিছুই নিশ্চিত ভাবে বলা যাচ্ছে না।

মতিচুরের অনুপস্থিতিতে কারওয়ানবাজারের উপসর্দার ও আইভরী কোষ্ট ফিরত উপন্যাসিক মা’র্কেজে কারওয়ানবাজার কুফামাষ্টার আমিষুল হক পুটুনদা জানিয়েছেন, ধর্মানুভুতিতে আঘাতের বানিজ্যে লতিফ সিদ্দিকীর পরিবর্তে প্রান প্রিয় ভিনা মালিক কারাদণ্ড হওয়ায় কারওয়ানবাজার সর্দার একটি বিশেষ অনুভুতিতে আঘাত পেয়েছেন। আগামী ২৬ বতসর ভিনা মালিকের নতুন কোন ছবি ও ভিডিও দেখতে না পাওয়ার বেদনায় তিনি উচ্চ শক্তির পানিপড়া পান করে আত্মহত্যার চেস্টা করেন।

হুহু করে কেদে উঠে আমিষুল বলেন, মাসের পর মাস সংগ্রামের পর লতিফ সিদ্দিকীরে জেলে ঢুকাইলাম। অতছ চিপা দিয়া আমরার ভিনা মালিকরে কারাদণ্ড দিয়া দিল। এখন আমি সকাল বেলা আমার পাকিস্তানকে উঠাব কেমন করিয়া, জাগাবই বা কেমন করিয়া? সারাদিন ঝুলন্ত পাকিস্তান নিয়া কি উপসর্দারের জীবন যাপন করা সম্ভব?

এদিকে ধর্মানুভুতিতে আঘাতের দায়ে চাচাত ভাই মির্জা শাকিলুর রহমান আলমগীরের কারাদণ্ড হওয়ায় বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ‘কমপ্লান বয়’, লনডনে পলাতক চিকিতসাধীন আওলাদে আমীর বড় গুণ্ডে কতৃক ‘হাইড এন্ড সিক’ গালিতে ভুষিত ও ঈদুল কতলের টেলেন্ট হান্ট প্রতিযোগীতায় ‘ফ্লেয়ার এন্ড লাবলি’ খেতাবে সমাদৃত মির্জা বাড়ির বড় গৌরব আল্লামা মির্জা ফখরুল ইসলাম আগুনগীর ওরফে ফখা ইবনে চখা বিব্রত পরিস্থিতিতে পড়েছেন বলে দলীয় সুত্রে জানা যায়। এ বেপারে তার মুঠফুনে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

September 27, 2014

জয়লালেদা জেলে

বেংগালর মতিনিধি

দুর্নীতীর মাধ্যমে কুটি কুটি রুপি কামাই করার অপরাধে সাবেক হট চিত্রতারকা ও তামিলনাড়ুর বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী জয়লালেদার চার বতসরের কারাদণ্ড ও একশত কুটি রুপি জরিমানা হয়েছে।

১৮ বতসর পুর্বে জয়লালেদার বিরুদ্ধে মাদ্রাজ আদালতে মামলা করেন বিজেপি নেতা সুব্রামানিয়াম স্বামী।

আদালতের রায় ঘোষনার পর তামিলনাড়ু জুড়ে তীব্র উত্তেজনার সৃস্টি হয়। জয়লালেদার দল ক্ষমতাসীন এডিএমকে এর সদস্যরা প্রতিপক্ষ ডিএমকের উপর তামিলনাড়ু জুড়ে হামলা করে।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জয়লালেদা বলেন, এ বিচার প্রহসনের বিচার। এ বিচার স্বচ্ছ, নিরপক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানের হয় নাই। এ রায় সুব্রামানিয়াম স্বামীর দল বিজেপির ষড়যন্ত্রে হয়েছে। এই রায় মানি না।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, জয়লালেদা মুখ্যমন্ত্রী হয়ে ৬৬ কুটি রুপি, ২ হাজার একর জমি, ৩০ কেজি সোনা ও ১২ হাজার শাড়ী উপার্জন করেছেন।

মাদ্রাজ আদালতে মামলা দায়ের করা হলেও জয়লালেদা মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর নিরপক্ষতার খাতির মামলাটি বেংগালরে নিয়ে যাওয়া হয়।


জয়লালেদার খবরে ক্ষুব্ধ ক্ষয়খালেদা

এদিকে জামালপুরে বক্তৃতা দেওয়ার সময় জয়লালেদার কারাদণ্ডের খবর বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসির নিকট পৌছান হলে এক আবেগঘন পরিস্থিতির সৃস্টি হয়।

জামালপুরের জনসভায় মাদারে গনতন্ত্র হুংকার দিয়ে বলেন, বিজেপি বিএনপি ভাই ভাই। মদী ভাই আমরার বন্দু। জয়লালেদার জেল হইছে ভাল হইছে, কিন্তু ক্ষয়খালেদার কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে।

এতিমের টাকা মেরে খাওয়া প্রসংগে মেডাম বলেন, আরে এতিমখানার এতিম এত টেকা দিয়া কি করব? তাছাড়া এতিমের টেকা এতিমের হস্তেই গিয়া পড়ছে। বড় গনতন্ত্র কি এতিম নহে? ছুট গনতন্ত্রের পিতাও এন্তেকাল করিয়াছেন। এতিমের টেকা এতিমের ভুগেই লাগছে। এই নিয়া কুন জেল জরিমানা হইলে এরপর ১৫ আগষ্টে ডাবুল জন্মদিন পালন হবে। হুশিয়ার সাবধান।

%d bloggers like this: