Posts tagged ‘কারওয়ানবাজার’

July 25, 2013

আইএসআই কার্যালয়ে হামলা, কারওয়ানবাজারে কাল পতাকা

নিজস্ব মতিবেদক

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের শুক্কুর শহরে আইএসআই কার্যালয়ে জংগী হামলার প্রতিবাদে কারওয়ানবাজার কার্যালয়ে কাল পতাকা উত্তলন করেছেন ‘হেফাজতে মাহমুদুর’ এর প্রতিষ্ঠাতা আমীর ও কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান আজমী।

বৃহস্পতিবার বিকালে ইফতারির পুর্বে এ কাল পতাকা উত্তলন করেন মতিচুর।

কাল পতাকা উত্তলন কালে মতিচুর রহমান বলেন, মানুষে মানুষে নানা মতভেদ থাকে। টেকাটুকার বখরা নিয়াও নানা সমস্যা দেখা দেয়। আমার সংগেও আইএসআই এর সময়ে সময়ে মনমালীন্য হইছে। মাঝে মধ্যে রাত বিরাতে মুঠোফোনে তাদের সংগে মান অভিমান করেছি। এমন অনেক দিন গেছে, যখন রাতে আড়ি দিয়ে আবার সকালে ভাবও করেছি। কিছুদিন পুর্বে তাদের চেক বাউন্স হওয়ায় কত রাগারাগি করলাম

আবেগঘন কণ্ঠে মতিচুর বলেন, কিন্তু তাই বলে জংগি হামলা কুনমতেই মেনে নেওয়া যায় না।

আজ আমার মন ভাল নেই: মতিচুর

জংগিদের প্রতি শান্তির আহোভান জানিয়ে মতিচুর বলেন, টেকা ভাগে কম পড়লে কিংবা একেবারেই না পড়লে অথবা চেক বাউন্স করলে আলচনার টেবিলে আসুন। কথা বলুন। সংলাপ করুন। আইএসআই বিলডিঙ্গে বোমা মেরে, গুলি করে, জ্বালাও পোড়াও করে অশান্তি ডেকে আনবেন না। যে হাত রুটি খাওয়ায় সে হাতকে কামড় দিবেন না।

কান্নাঘন কণ্ঠে মতিচুর বলেন, দিন শেষে হাম সব বেরাদার হায়। জীবন যখন শুকায়ে যায় করুনাধারায় এস।

ধ্বসে পড়া আইএসআই বিলডিঙ্গের নিচে চাপা পড়া গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের পরিবারের জন্য ‘মেরিল-কারওয়ানবাজার রানা প্লাজা ফান্ড’ হতে অর্থ সাহায্য হিসাবে চেক পাঠানর প্রতিশ্রুতি দিয়ে আইএসআই এর উদ্দেশে মতিচুর বলেন, বাউন্স হলে মাইন্ড করিয়েন না।

July 5, 2013

কাল থেকে আলুর দর ১০ টেকা

কারওয়ান বাজারের বিশিষ্ট বেবসায়ি মতিচুর রহমান ঘোষনা দিয়েছেন, আগামি কাল থেকে আলুর দর ১০ টেকা।

তিনি বলেন, এই মুল্যব্রিদ্ধির দায় বর্তমান সরকারের। কারণ এই সরকারের আমলেই আন্তর্জাতিক বাজারে আলুর কাচা মালের দাম বেড়েছে। এ ছাড়া টেক্স-মেক্স তো আছেই, পরিবহন বেয়ও কম নহে। এদিকে মালিক খালি লাভ খুজে। আমারে গুতায়। কয়, এত আলু বিক্রি হয়, টেকাটুকা সেই পরিমানে পাই না কেন?

এ আলু সে আলু নয় বন্ধু

মতিচুর রহমান আরো বলেন, আলুর দাম বাড়ানর আগে আমরা আন্তর্জাতিক বেবসায়ি, সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরীর সঙ্গে আলচনা করি। তিনি পরামর্শ দেন, মুনাফা! মুনাফাই আসল। আপনার আলু বিক্রি করেন সমাজে। অতএব ইহা একটি সামাজিক বেবসা। মনে রাখবেন, সামাজিক বেবসার লখ্যই হইল অসামাজিক উপায়ে টেকাটুকা কামান।

মুনাফাঘন কন্ঠে তিনি বলেন, সকল বেবসায়ি রমযান মাসে জিনিস পত্রের দাম বাড়াবে না বলে কবুল করেছে। তাই মাশাল্লা রমযান আসার আগেই আলুর দাম বাড়ায়ে দিলাম। বহু বৎসর যাবৎ আলু ৮ টেকা দরে বিক্রি হইতেছিল। আলুর বাজার এখন খুবই রমরমা। বিপুল বিক্রি। কিন্তু তাতে কি! এখন বেবসা যার, দাম বাড়ানর তার শ্রেষ্ঠ সময়।

June 29, 2013

পাকিপ্রেমের পতপত পতাকা

প্রথমালু ক্রিড়া ডেস্ক

আমাদের ক্রিড়া পাতায় আজ পাকি প্রেমরস পুর্ন দুটি লেখা আলো ছড়াচ্ছে।

১. বেবসায়ী আফৃদি

আমাদের ক্রিড়া ডেস্কের নয়ন মনি শহিদ আফৃদি ইদিয়ান নামের একটি বুটিক হাউসের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি কুয়েত, কাতার, যুক্তরাস্ট্র, কানাডার পর এবার ঢাকায় ফেশন হাউসটির শো রুম উদভোদন করলেন কাল।

তিনি বলেন, আমি এর আগেও ঢাকায় এসেছি। এবার নতুন পরিচয়ে এলাম। আমার এই বেবসার আসল উদ্দেশ্য অন্য যে কুন বেবসার মতই – টেকাটুকা কামান। আরো অনেক দেশ থাকতে বাংলাদেশে আসার কারন হল, এই দেশে আছে কুটি কুটি পাকচোদ, যারা পাকিস্তান বা আমার নাম শুনলেই মাখায়া ফেলে। এই পাকচোদ গুলার দৌলতে আমার বেবসা রমরমা হবে ইনশাল্লা।

মুনাফাঘন কন্ঠে তিনি বলেন, বিশিষ্ট পাকচোদ নেতা মতিচুর রহমান আফৃদি তার পত্রিকা বেবহার করে আমার বেবসা প্রসারে হেল্প করতে শুরু করেছে। এর জন্যে অবশ্য তাকে কিছু এডভান্স দিতে হয়েছে।

আশরাফুলের ইস্পট ফিকসিং কেলেংকারি বিষয়ে তিনি বলেন, বাঙালি এত দিনে লাইনে এসেছে। পাকিস্তানি ক্রিকেটারগন > যে পথে করে গমন > হয়েছে কারাবরনীয়, আশরাফুল সেই পথেই চলেছে। বাঙালিদের সঠিক উপলব্ধি হয়েছে বলেই বাংলাদেশের রাজনিতিও এখন মাশাল্লা পাকিস্তানকে অনুসরন করছে।

পরবর্তিতে বাংলাদেশে আরো কুন বেবসা প্রতিষ্ঠান খুলবেন কিনা, জানতে চাইলে আফৃদি বলেন, আমি জানি, মেহেরজানের মত অনেক বাঙালি জেনানা পাকিস্তানি তাগড়া জওয়ানদের রুপগুন মুগ্ধ। তাই ‘মেরি মি, আফৃদি’ নামে একটা শাদি এজেন্সি চালু করার পরিকল্পনা আমার আছে। এর মাধ্যমে পাকিধনপেয়ারু বাঙালি জেনানারা পাকি জওয়ানদের শাদি করতে না পারলেও স্বাদ নিতে পারবে অন্তত।

তিনি আরো জানান, একাত্তর সালের নয় মাস পাকি সেনাদের নিবির সান্যিধ্যে কাটিয়ে সেটার সুখ স্রিতি আজ পর্যন্ত বহন করে চলা এক রাজনৈতিক নেত্রি এই শাদি এজেন্সি উদভোদন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তবে তাকে কুন কারনে না পাওয়া গেলে আবুল বা মখাকে দিয়েও কাজ চলবে।

২. হাসি মুখে ক্ষমা চাইলেন বাট

বেবাকেই জানে, বিশ্ব জুড়ে দুই নম্বরি কাজে পাকিস্তানিরা এক নম্বর। ক্রিকেটেও এর বেতিক্রম নহে। ইস্পট ফিকসিং করে ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়া ও ইংলেন্ডের জেলে সাত মাস বাটমারা খাওয়া পাকিস্তানি বেটসমেন সালমান বাট অবশেষে বাটে পড়ে নিজের বাট বাচাতে প্রকাশ্যে অপরাধ স্বিকার করে বলেছেন, আমি দুষ করেছি, বাট আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চাই। ইস্পট ফিকসিং পাকিস্তানের জাতীয় ক্রিড়া। এই খেলা হতে নিজেকে দুরে রাখা সম্ভব নহে।

হাসি মুখে ক্ষমা চাইছেন বাট, তার চেহারায় পষ্ট অনুশোচনার ছাপ

দুই নম্বরি আবেগঘন কন্ঠে তিনি বলেন, আইসিসির দুর্নীতিবিরোধী ও নিরাপত্তা ইউনিটকে (আকসু) একটা অভিশাপ। আরাম করে টেকাটুকা কামাইতে দেয় না। আরে, দরকার হইলে তোরা পার্সেন্টেজ নে। বেটারা বুজে না: ষোল আনা থেকে যদি চার আনা যায়, হিশেব দাড়ায় এসে বার আনায়, কিন্তু বার আনাতে আমরা খুশি…

এর আগ পর্যন্ত বাট অবশ্য বরাবরই নিজেকে নির্দুষ দাবি করে এসেছেন। তাকে প্রশ্ন করা হয়, এত দিন অপরাধের কথা স্বিকার করেননি কেন নিজের মুখে? উত্তরে তিনি বলেন, বাট থাকতে মুখ কেন?

 

April 29, 2013

টেকা শাকিব মামার, নাম ফাটিল আমার: মতিচুর

নিজস্ব মতিবেদক

সাভারে বিধ্বস্ত ভবন রানা প্লাজার নিচে চাপা পড়া হতাহত মানুষদের জন্য উত্তোলিত ৫৪ লক্ষ টাকার জন্য যাবতীয় বাহাদুরী দাবী করে কারওয়ানবাজারের সর্দার ও প্রভাবশালী সংগঠন মতিসংঘের সভামতি মতিচুর রহমান আফৃদী বলেছেন, টেকা শাকিব মামার, নাম ফাটিল আমার।

সকালে নিজ বাসভবনে আপন শয়ন কক্ষে আড়ং হতে খরিদ করা খেতার নিচে শয়নরত অবস্থায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন মতিচুর।

মতিচুর রহমান হাসতে হাসতে বলেন, ১ বচ্ছর ধরিয়া কারওয়ানবাজারের মেরিল পদক বিতরন অনুষ্ঠানের প্লেন প্রগ্রাম করেছি। এই অনুষ্ঠানের পিছনে বিভিন্ন বড় বড় কর্পরেট মতিষ্ঠান কুটি কুটি টেকা আমায় দিয়াছে। সাভারে বিলডিং ভাংগিয়া পড়লে আমার কেন অনুষ্ঠান বন্দ রাখতে হবে? টেকা কি বলদের পুটু দিয়া বাইর হয়?

আবেগঘন কণ্ঠে মতিচুর বলেন, বিলডিং ভাঙ্গল যুব লীগের সোহেল রানার, বিলডিং ভাঙ্গিলেন বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার উকিলে আমীর মওদুদ, সেই বিলডিঙ্গে মারিয়া পিটাইয়া লেবার ঢুকাইল গার্মেন্টস মালিক, আর কুটি কুটি টেকা গচ্চা দেওয়ার ঠেকা পড়ে আমার উপর। আমার মেরিলের অনুষ্ঠান বন্দ রাখলে কি বিলডিঙ্গ আবার খাড়া হইত? উহা পল্লীবন্ধুর রানা প্লাজার নেয়, একবার যখন পড়ছে শত বিজয় প্লাসেও তারে আর খাড়া করা যাবে না। অতএব এই ক্ষতি লইয়াই আমাদের সম্মুখে আগাইতে হবে।

মতিচুর বলেন, আমি জানতাম পাবলিক আমায় গালি দিবে। তাই আমি অনুষ্ঠানের আগে নিউ মার্কেট হতে কিছু কাল বেজ সিলাইয়া আনিয়াছি। সকল অতিথি কাল বেজ পরিধান করে নাচ গান উপভোগ করেছেন। অথচ তাকাইয়া দেখেন সাভারে এত এত লোক হাজির, কার গায়ে কাল বেজ নাই। খানকির পুলাদের বেজ নাই, কিন্তু ষুল আনা তেজ আছে। আমি মেরিল পদক অনুষ্ঠান করায় তারা আমায় গালাগালি করিল। আরে ভুদাই ৫৪ লক্ষ টেকা জীবনে চক্ষু দিয়া দেখছ?

হাসতে হাসতে মতিচুর বলেন, এই ৫৪ লক্ষ টেকার মধ্যে আমার পকেট হতে একটি টেকাও বাইর হয় নাই। টেকা দিয়াছে শিল্পী আর কর্পরেট। আমি শুধু মাইক হাতে লইয়া বলছি, টেকা না দিলে কারওয়ানবাজারে নাম ছাপাইয়া বলব তুমরা টেকা দেও নাই। তারপর দেখিও তামাশা কাকে বলে। এই কথা বলার পর সকল শিল্পী ঘটীবাটী বেচিয়া লক্ষ লক্ষ টেকা তহবিলে দান করেছে।

নিজের বুদ্ধির প্রসংশা করে মতিচুর বলেন, টেকা শাকিব মামার, নাম ফাটিল আমার।

কারওয়ানবাজারের উপসর্দার আল্লামা আমিষুল হক বলেন, এই অনুষ্ঠান কনসাট ফর বাংলাদেশকেও হালকা বানাইয়া দিছে। কনসাট ফর বাংলাদেশে শাকিব খান ছিল না, এম এ জলিল অনন্ত ও বর্ষা ছিল না। শুধু রবি শংকর না কে যেন সেতার লইয়া পিড়িং পিড়িং করিয়াছিল।

%d bloggers like this: