Posts tagged ‘তসলিমা’

December 3, 2013

মতিচুরকে ‘তেজপাল চেলেঞ্জ’ দিলেন তসলিমা

নিজস্ব মতিবেদক

দেশের প্রভাবশালী এলাকা কারওয়ানবাজারের সর্দার ও ১১০% অরাজনৈতিক সংগঠন ‘হেফাজতে মাহমুদুরের’ প্রতিষ্ঠাতা আমীর মতিচুর রহমান আজমীকে ‘তেজপাল চেলেঞ্জ’ দিয়ে তার যৌন সক্ষমতা পরীক্ষা করানর দাবী জানিয়েছেন সুইডেনে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরীন।

এক নারী সহকর্মীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে ভারতের তেহেলকা মেগাজিনের প্রতিষ্ঠাতা সর্দার তরুন তেজপালকে হাসপাতালে নিয়ে যৌন সক্ষমতার পরীক্ষা করায় গোয়ার পুলিশ। সোমবার গোয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার যৌন সক্ষমতার পরীক্ষা নেওয়া হয়।

যৌন সক্ষমতার পরিমান দেখাচ্ছেন তরুন তেজপাল

গোয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. টনি ডা সুজার সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিকণ্ঠকে বলেন, এ পরীক্ষায় সানি লিওনি, পুনম পান্ডে, ভিনা মালিক ও পাপিয়া পান্ডের ছবি প্রদর্শন করে পরীক্ষার্থীর প্রতিক্রিয়া যাচাই করা হয়।

তরুন তেজপাল যৌন সক্ষমতার পরীক্ষায় পাশ করেছেন কিনা, এ প্রশ্নের সরাসরি জবাব না দিয়ে ডা. সুজা হাসতে হাসতে বলেন, বুঝেনই ত।

তসলিমা নাসরীন এক টুইটার বার্তায় বলেন, মতিচুর রহমান বাংলাদেশের তরুন তেজপাল। তাকেও যৌন সক্ষমতার পরীক্ষায় বসান হোক।

এ বেপারে মতিচুর সর্দারের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি হাসতে হাসতে বলেন, তসলিমা নাসরীন আগুন নিয়া খেলা করতে চায়। আমি প্রত্যহ সুবেহ সাদিকের সময় উঠিয়া বেয়াম করি। বুট খাই ডিম খাই কমপ্লান খাই। ঘন্টায় ঘন্টায় সানি লিওনি ও পুনম পান্ডের স্থিরচিত্র অবলোকন করি। বাংলাদেশের দুই গর্ব বিজয় টেবলেট ও শক্তি দই, উভয়ই আমি ফৃ পাই। আমার সংগে তরুনরাও পাল্লা দিয়া পারে না, আর তসলিমা কিনা আমার সংগে বুড়া তরুন তেজপালের জোড়া দেয়। তেজপাল আমার নিকট তেজপাতা।

তসলিমা নাসরীনকে পাল্টা চেলেঞ্জ দিয়ে মতিচুর বলেন, আমিও তরুন তেজপালের নেয় গোয়ায় যৌন সক্ষমতার পরীক্ষা ‘তেজপাল টেষ্ট’ দিতে প্রস্তুত। কে আছ জুয়ান হও আগুয়ান।

তসলিমা নাসরীনের এই চেলেঞ্জকে স্বাগত জানিয়ে বসুন্ধরার সর্দার ইমদুদুল হক মেলন মতিকণ্ঠকে বলেন, তসলিমা সঠিক বেক্তিকে সঠিক চেলেঞ্জটি দিয়াছে। তবে বৃহত্তর জামায়াতের অবরোধ চলার সময় পরীক্ষা নেওয়া ঠিক হবে না।

কারওয়ানবাজারের উপসর্দার ও আইভরী কোষ্ট ফিরত উপন্যাসিক আমিষুল হক নিজের ফেসবুকে ষ্টেটাসে লিখেন, আমিষ তেজপাল নামটি তুমাদের কেমন লাগে?

November 5, 2012

নইপালকে আক্রমন করলেন তসলিমা

সাহিত্য মতিবেদক

তসলিমা এবারে সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার জয়ী লেখক ভিএস নইপালকে আক্রমন করেছেন। তাকে তিনি অভিহিত করেছেন অপদার্থ ও নির্বোধ বলে।

তিনি বলেন, নইপাল একটা অভিশাপ। কত গরু গাধা টাইপ লেখক আমাকে যৌন হয়রানী করে বিখ্যেত হয়ে গেল। আর এই বেটা আমাকে যৌন হয়রানী না করেই সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার পায় কেমনে? বেটা অবশ্য বুইড়া। আসল কাম করতে বের্থ হতো মনে হয়। কিন্তু সে তো আমাকে টেলিফোনেও যৌনভাবে উত্যেক্ত করতে পারত, পারত না?

সম্প্রতি মুম্বাই সাহিত্য উৎসব কর্তৃপক্ষ নইপালকে সারা জীবনের কাজের জন্য বিশেষ স্বিকৃতি জানিয়েছে। ক্রোধ বিজড়িত কন্ঠে তসলিমা বলেন, ভারত আমাকে মুল্য দেয় নাই। নিজের নাম মিডিয়ায় রাখার জন্যে আমার নিজেকেই একের পর এক স্কেন্ডাল তৈরি করতে হয়েছে। অথচ এরা এখন কোথাকার কোন নইপালকে স্বিকৃতি দেয়। মুম্বাই সাহিত্য উৎসব কর্তৃপক্ষ একটা অভিশাপমন্ডলি। এরা সকলেই ইম্পোটেন্ট।

যৌন হয়রানী রানী

আবেগঘন কন্ঠে তসলিমা তার হতাশার কথা বেক্ত করে বলেন, অর্ধ সেঞ্চুরি করলাম, কেউ নোবেল তো দিলই না, বেইলও দিল না, তাই অন্যদের চরিত্রে কালিমা লেপন করাটাকেই করিয়াছি জীবনের ধ্রুবতারা। এতে সকলের নজরে আসা যায়। আমার লেখার মাধ্যমে আমি উভয় বাংলার জিবীত-মৃত সকল খেতিমান লেখকের পুটু মেরে দিলেও আমি পায়ুকামী বা ধর্ষকামী না, আমি খেতিকামী। খেতিটা সু বা কু যেটাই হোক, আমি তাতেই কবুল। আমি খেতির প্রেমে হব সবার কলঙ্কভাগী।

September 20, 2012

মনিকা লিউনস্কির বিরুদ্ধে মামলার হুমকি দিলেন তসলিমা

সাহিত্য মতিবেদক

সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিনটনের অফিস সহকারী ও বিল ক্লিনটনের যৌন খেলাধুলার সংগীনী মনিকা লিউনস্কির বিরুদ্ধে মামলার হুমকি দিয়েছেন নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরীন।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে তসলিমা এ হুমকি দেন।

মনিকা লিউনস্কি বিল ক্লিনটনের সাথে নিজের যৌন খেলাধুলা নিয়ে একটি স্মৃতি মুলক গ্রন্থ রচনায় হাত দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিনটন কিভাবে ২২ বছর বয়সী মনিকা লিউনস্কির সাথে মধুর সব যৌন কার্যকলাপে লিপ্ত হতেন, তার রগরগে বর্ননা থাকবে এ বইয়ে।

এ প্রসংগে মনিকা বলেন, হিলারি রডহাম ক্লিনটন একটি অভিশাপ। তার পাল্লায় যে পড়েছে, সেই গদি হারিয়েছে। আপনারা বিল ক্লিনটনকে দেখুন, আপনারা মুহম্মদ ইউনূসকে দেখুন। হিলারির সাথে খাতিরের কারনে তারা দুইজনেই তাদের হক্কের গদি ত্যেগ করতে বাধ্য হয়েছে। রাষ্ট্রপতি ওবামা বুদ্ধিমান, তাই তিনি হিলারিকে পাত্তা দেন না। আশা করি তার গদি বহাল থাকবে।

মনিকা আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, আমি ছিলাম মার্কিন রাষ্ট্রপতির মহিলা ফালু। বিল ক্লিনটন হিলারির তুলনায় আমাকেই বেশি ভাল বাসতেন। তিনি বলতেন, হিলারি ক্লিনটন এডমন্ড হিলারির নেয় ঠান্ডা ও শক্ত। সে যদি মনিকা লিউনস্কির নেয় মোটা সোটা ও নরম গরম হত, আমিও গোলাম আজমের নেয় সাত পুত্র ও এক কন্যার জন্ম দিতাম। কিন্তু আমার সন্তান কেবল একটি। সবাই ভাবে আমি পরিবার পরিকল্পনা করেছি, কিন্তু তা মোটেও সত্য নহে। আমি একটি সন্তানের জন্ম দিয়েই হিলারির কাছে মাফ ও দুয়া চেয়েছি। মনিকা লিউনস্কিই আমার ভরসা।

মনিকা ক্লিনটনের আবেগভরা সংলাপ স্মরন করে বলেন, রাষ্ট্রপতি বিল আমায় বলেছিলেন, মনিকার মুখ, সহশ্র বর্ষের সখা সাধনার সুখ।

কবি মনিকা লিউনস্কি

এমনই আরও অনেক স্মৃতি, ছবি, চিঠি, বিভিন্ন প্লাষ্টিকের ‘খেলনা’ খরিদের রসিদ ঠাই পাবে এই বইয়ে। মনিকা লিউনস্কি আশা প্রকাশ করে বলেন, কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর আমার বইটির চুম্বক অংশ অনুবাদ করে ছাপানর ওয়াদা করেছেন।

তসলিমা নাসরীন মনিকা ক্লিনটনকে সতর্ক করে দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘ক’ নামে আমার একটি বই রয়েছে। মনিকা লিউনস্কি যদি ক্লিনটনের কথা লিখতে গিয়ে বইয়ের নাম ‘ক’ রাখেন, আমি ক্ষতি পুরনের মামলা করব।

তসলিমা নাসরীন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হয় সুঠাম সবল পুরুষ রোনাল্ড রিগান, বিল ক্লিনটন, বারাক ওবামা। আর আমাদের দেশে রাষ্ট্রপতি হয় বৃদ্ধ সাহাবুদ্দিন, বৃদ্ধ বদরুদ্দুজ্জা, বৃদ্ধ ইয়াজউদ্দিন, বৃদ্ধ জিল্লুর রহমান। এই কি ইনসাফ?

তসলিমা নাসরীন রুমালে অশ্রু মুছে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, মনিকা লিউনস্কি যৌন বই লিখে ১২০ কুটি ডলার পাবে। মনিকা আমার চোখে জল এনেছে হায় বিনা কারনে।

September 4, 2012

আত্ম সমর্পন করবেন আসাঞ্জ

লন্ডন মতিনিধি

উইকিলিকসের আলোচিত সাধারন সম্পাদক জুলিয়ান আসাঞ্জ আত্ম সমর্পনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

গতকাল রাতে ইকুয়েডরের দুতাবাসের বারান্দায় বেরিয়ে এসে তিনি এই সিদ্ধান্তের ঘোষনা দেন।

সুইডেন প্রবাসী বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরীন আসাঞ্জের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর অভিযোগ করার এক ঘন্টার মাথায় এই সিদ্ধান্ত নেন অষ্ট্রেলিয়ার নাগরীক জুলিয়ান আসাঞ্জ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নানা গোপন নথি নিজের ওয়েবসাইট উইকিলিকসের মাধ্যমে প্রকাশ করে দিয়ে সারা বিশ্বে আলোচনার ঝড় তুলেন জুলিয়ান আসাঞ্জ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা করলে তিনি দেশ থেকে দেশে পালিয়ে বেড়ান। এক পর্যায়ে সুইডেনে গিয়ে তিনি কতিপয় নারীর সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুললে তার নামে যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠলে তিনি লন্ডনে আশ্রয় নেন। কিন্তু লন্ডনের পুলিশ তাকে সুইডেন সরকারের হাতে ও সুইডেনের পুলিশ তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়ার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হলে তিনি ইকুয়েডরের দুতাবাসে গিয়ে আশ্রয় গ্রহন করেন।

তসলিমা নাসরীন বলেন, জুলিয়ান আসাঞ্জ একটি অভিশাপ। উইকিলিকসের কথা শুনে তাকে আমি ঘরে ঢুকতে দিয়েছিলাম। কিন্তু সে আমার সংগে যা করেছে তাকে কুইকিলিকস ছাড়া আর কিছু বলা যায় না। হারামজাদা আমায় যৌন হয়রানী করেছে। এখানে যৌন ছোট ফন্টে ইটালিক হরফে ও হয়রানী বড় ফন্টে বোল্ড হরফে লিখতে হবে।

মাফও চাই দুয়াও চাই

জুলিয়ান আসাঞ্জ ইকুয়েডর দুতাবাসের বারান্দা থেকে চিৎকার করে কেদে উঠে বলেন, তরা আমারে মাইরালা। ফাসি দে, বিষ দে, গুলি দে। যা খুশি তাই দে। আমি আর বাচতে চাই না।

এটিএন বাংলার চেয়ারমেন মাহফুজুর রহমান আসাঞ্জের আত্ম সমর্পনের সিদ্ধান্তের কথা শুনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বলেন, আসাঞ্জই সাগর-রুনী হত্যাকান্ডের মুল হোতা। তার শরীরে ডিএনএ আছে।

%d bloggers like this: