Posts tagged ‘তারেক’

November 8, 2014

একাত্তরের রেম্বই প্রথম পাসপুট ধারী বাংলাদেশী: বড় গুণ্ডে

লনডন মতিনিধি

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার আওলাদে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ভবিষ্যত মালিক ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী পলাতক চিকিতসাধীন তরুন নেতৃত্ব মিষ্টার ফিপটিন পারসেন্ট বড় গনতন্ত্র বড় গুন্ডে তারেক জিয়া বলেছেন, একাত্তর ও পচাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়াই প্রথম পাসপুট ধারী বাংলাদেশী।

৭ নভেম্বর মনির পুড়াও দিবস উপলক্ষে লনডনে আয়জিত এক ইতিহাস মহাফিলে বড় গুণ্ডে এ ঘোষনা দেন।

ইতিহাস মহাফিলে বাংলাদেশের ইতিহাসকে গনিমতের মাল উল্লেখ করে বড় গনতন্ত্র বলেন, ১৯৭১ সালের মার্চ মাসের ২৫ তারিখে যখন পৃয় দেশ পাকিস্তানের সেনা বাহীনী চট্টগ্রামে নিরস্ত্র বাংগালী সৈনিকদের উপর এটাক করে, তখন একাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়া কুথায় ছিলেন আর বাকশালের আমীর শেখ মুজিব কুথায় ছিলেন, তাহা ভাল করিয়া লক্ষ করিলেই বুঝা যাবে ঘটনা কি ছিল। বাকশালের আমীর শেখ মুজিব তখন পাকিস্তানীদের হাতে পাকিস্তানী পাসপুটসহ বন্দী। আর আমার ওয়ালিদ একাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়া তখন বাংলাদেশী পাসপুট সংগ্রহ করিতে সোয়াত জাহাজের উদ্দেশে রওনা করিয়াছেন।

একাত্তর সালে ২৫শে মার্চ চট্টগ্রামের নিহত সৈনিকদের কথা স্মরন করে বড় গনতন্ত্র বলেন, উহাদের পাকিস্তানী পাসপুট আছিল, তাই উহাদের জন্য আমি বেশি মহব্বত প্রদর্শন করব না। মুক্তিযুদ্ধে নিহত ৩০ লক্ষ শহীদের কথাও চিন্তা করিয়া লাভ নাই, উহাদেরও পাকিস্তানী পাসপুট আছিল। একমাত্র বাংলাদেশী পাসপুট আছিল জেনারেল জিয়ার।

মুক্তিযুদ্ধের নয় মাস ভারতের ভুমিতে তাবু খাটিয়ে জেনারেল জিয়ার অবস্থান ধর্মঘটের কথা স্মরন করে আওলাদে আমীর বলেন, একাত্তরের রেম্ব জেনারেল জিয়ার পাসপুট অনুভুতি ছিল অত্যান্ত টনটনা। তিনি নয় মাস ভারতের মেঘালয়ে তাবু খাটাইয়া অবস্থান ধর্মঘট করলেও বাংলাদেশী পাসপুট সংগে রাখতে ভুলেন নাই। যখনই কুন ভারতীয় অফিসার আসিয়া মেজর জিয়া তুম কাহা হ বলিয়া ডাকাডাকি করত, তখনই তিনি এক হাতে বাংলাদেশী পাসপুট ও অপর হাতে আর্জেস গ্রেনেড লইয়া তাবু হইতে বাইর হইয়া বলতেন, হাম ইধার সো রাহা হে।

পাকিস্তানের দালাল ও একাত্তরের যুদ্ধাপরাধে ৯০ বতসরের আরামদণ্ড প্রাপ্ত বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর সাবেক খানকির পোলায়ে আমীর অধ্যাপক গোলাম আজমের জানাজায় অংশ গ্রহনের অপরাধে গয়েশ্বর চন্দ্র আজমীর প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে তারেক জিয়া বলেন, আমি নিজে সকলকে এসএমএস করিয়া মানা করছিলাম যে গোলাম নানার জানাজায় কেহ যাবা না। সালারা সারদা গ্রুপের টেকা সব নিজেরা নিজেরা খাইছে, আমাদিগেরে কিচ্ছু দেয় নাই। সকলে কথা শুনল, কিন্তু বিএনপি শাখার মালাউন উপশাখার আমীর এই সালা গয়েশ্বর আজমী জানাজায় গিয়া হাজির। শুনিয়াছি সে গুপনে গুপনে কয়েকটি গায়েবানা জানাজায় নকল দাড়ি লাগাইয়া ইমামতিও করছে। ক্ষমতায় গিয়া লই, সাঈদী আংকেলকে দিয়া এই গয়েশ্বরকে খতনা করাইয়া নও মুসলমান বানাইয়া বাইতুল মকাররমের খতিব বানাব।

গোলাম আজমের পুত্র ও সেনা বাহীনী হতে বহিস্কৃত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহিল আমান আজমীর ওপেন চেলেঞ্জ গ্রহন করে বড় গুণ্ডে বলেন, তুমাদের ছাড়াই ক্ষমতায় যাব সালা ঘোচু। সারদার টেকার ১৫% তখন দশ টেকার নটের বান্ডিল বান্ধিয়া তুমায় নিজের হাতে আলগাইয়া আনিয়া হাওয়া ভবনে দিয়া যাইতে হবে। খালি দিয়া গেলেই হবে না, আমার সামনে বসিয়া গনিতেও হইবে। এখনই টেকা গনা অভ্যাস কর সালা আওলাদে গাদ্দার।

November 1, 2014

বড় গুণ্ডের নিষেধ অমান্য করে গোলাম আজমের জানাজায় হাজির হইছি: গয়েশ্বর আজমী

নিজস্ব মতিবেদক

বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার আওলাদে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ভবিষ্যত মালিক ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী পলাতক চিকিতসাধীন তরুন নেতৃত্ব মিষ্টার ফিপটিন পারসেন্ট বড় গনতন্ত্র বড় গুন্ডে তারেক জিয়ার প্রতি রাগারাগি করায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল কতৃক ৯০ বতসরের আরামদন্ড প্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী ও বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর সাবেক খানকির পোলায়ে আমীর ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আজমের পুত্র ও বাংলাদেশ সেনাবাহীনী হতে বহিস্কৃত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আওলাদে গাদ্দার আবদুল্লাহিল আমান আজমীর প্রতি সমর্থন বেক্ত করে বিএনপি শাখার হিন্দু উপশাখার আমীর গয়েশ্বর চন্দ্র আজমী বলেছেন, বড় গুণ্ডে লনডন বসিয়া খালি ফতুয়া দেয়।

শনিবার লটশেডিঙ্গে আক্রান্ত নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর আজমী এ কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে গয়েশ্বর বলেন, আমীরুল গাদ্দারান মরার পরে বড় গুণ্ডে আমাদিগের সবার মুঠফুনে এসএমএস পাঠাইয়া বলিল, খবরদার গোলাম আজমের জানাজায় যাবা না। আমরা তখন নিজেদের মধ্যে পরামিশ করিয়া ঠিক করলাম, আচ্ছা আমরা যাব না। তখন গত শনিবার আমান আজমী আমায় মুঠফুনে কল দিয়া বলিল, দাদা আব্বিজানের জানাজায় ত যথেস্ট পরিমানে মফিজ হইতেছে না। তুমি পাছ হাজার মালাউনকে পাঞ্জাবী পাইজামা পিন্দাইয়া এক ঘন্টার মধ্যে চলিয়া আস দেখি। আমি তখন তাকে তারেক জিয়ার নিষেধাজ্ঞার কথা বেক্ত করিয়া বললাম, দেখ আমাইন্যা, বড় গুণ্ডের আইছে হুকুম উপায় ত নাই না মাইন্যা। আর এক ঘন্টায় এত মালাউন কুথায় পাব? তুমরা ত বেকটিরে মারিয়া ধরিয়া ইনডিয়া খেদাইয়া দিছ। জানাজার ভাড়া বাবদ মফিজ পিছু এক হাজার টেকা ধরলে পঞ্চাশ লক্ষ টেকা লাগবে। টেকা পাঠাইয়া দেও, আমি দেখতেছি কি করা যায়। তুমার জন্যি পাইজামা পাঞ্জাবীর ভাড়া মাফ। তখন আমান আজমী আমায় বলল, আরে সালা ঘোচু টেকার অভাবেই ত জানাজায় এইরুপ মফিজ সংকট। বৃহত্তর জামায়াতের খানকির পুলায়ে নায়েবের দল বাইতুল মালের সকল টেকা লনডনী ইহুদী মক্তার টবি কেডমেনরে দিয়া দিছে। আমি তখন বললাম, কেন, সারদার টেকা কি করলা? তখন আমান আজমী রাগারাগি করিয়া বলল, আরে সারদার টেকার হিসাব তুমায় দিব কেন?


বড় গুণ্ডেকে সিটিএন: গয়েশ্বর আজমী

আবেগঘন কণ্ঠে গয়েশ্বর আজমী বলেন, মাগনা মাগনা মফিজ সংগ্রহের দিন ফুরাইছে। এখন ফেল কড়ি মাখ তেলের যুগ। তাই বাইতুল মকাররমে আমীরুল গাদ্দারানের জানাজায় আমি একাই গিয়া হাজিরা দিয়া চলিয়া আসছি। বড় গুণ্ডের নিষেধাজ্ঞারে আমরা আর ডরাই না। ও সালা লনডনে বসিয়া বসিয়া খালি ফতুয়া দেয়। আমান আজমীর সংগে খাতির থাকলে বিপদে আপদে কাজে লাগবে।

October 29, 2014

ছোট গাদ্দারের পোলাকে বড় গাদ্দারের পোলার ওপেন চেলেঞ্জ

নিজস্ব মতিবেদক

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল কতৃক ৯০ বতসরের আরামদন্ড প্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী ও বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর সাবেক খানকির পোলায়ে আমীর ভাষা সৈনিক অধ্যাপক গোলাম আজমের জানাজায় অংশ নেওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করায় বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার আওলাদে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ভবিষ্যত মালিক ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী পলাতক চিকিতসাধীন তরুন নেতৃত্ব মিষ্টার ফিপটিন পারসেন্ট বড় গনতন্ত্র বড় গুন্ডে তারেক জিয়ার প্রতি রাগারাগি করেছেন গোলাম আজমের পুত্র ও বাংলাদেশ সেনাবাহীনী হতে বহিস্কৃত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আওলাদে গাদ্দার আবদুল্লাহিল আমান আজমী।

আজ ফেসবুকে একটি ষ্টেটাসের মাধ্যমে তারেক জিয়ার প্রতি রাগারাগি করেন আওলাদে গাদ্দার আমান আজমী।

ষ্টেটাসে আওলাদে গাদ্দার বলেন, বৃহত্তর জামায়াতের প্রতিষ্ঠাতা খানকির পুলায়ে আমীর, আমীরুল গাদ্দারান গোলাম আজম ছাহেবের এন্তেকালের পর তার নামাজে জানাজায় বিএনপি শাখার পক্ষ হতে একমাত্র বিএনপির মালাউন উপশাখার আমীর ও আল্লামা গয়েশ্বর চন্দ্র আজমী ছাড়া কেহই অংশ গ্রহন করে নাই। খবর লইয়া আমরা জানতে পারছি, ইহা লনডন প্রবাসী পলাতক মিষ্টার ফিপটিন পারসেন্টের হুকুমে ঘটিয়াছে। বড় গনতন্ত্র নিষেধ করায় আমীরুল গাদ্দারানের জানাজায় আর কুন বিএনপি আসে নাই।


বড় গুণ্ডেকে আওলাদে গাদ্দারের ওপেন চেলেঞ্জ

বিএনপি শাখার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বহিস্কৃত বিগ্রেডিয়ার আজমী বলেন, সারদা গ্রুপ তাহাদের কাল টেকা পাচারের জন্য বৃহত্তর জামায়াতের সহায়তা লইছে। তাহাদের হইয়া হাজার হাজার কুটি টেকা আমরা মধ্য প্রাচ্যে পাচার করিয়া দিছি। বিনিময়ে গত বতসর ট্রাইবুনালের রায়ের পর দাংগা ফেসাদ বাবদ কয়েক শত কুটি টেকা কমিশন আমরা খাইছি। সারদা গ্রুপ এই বিজনেশ আমাদিগের সংগে করছে। বিএনপি শাখারে তারা ভরসা করে নাই বলিয়া বড় গনতন্ত্র এই বিজনেশে কুন পারসেন্টিজ খাইতে পারে নাই। এই লইয়া আমাদিগের সংগে তাদের মন কালাকালি। এই খবর তাহাদিগের কানেও উঠছে এক বতসর পরে। তখন এই হারামজাদা বড় গুণ্ডে লনডনে বসিয়া ফতুয়া দিছে, ধর্ম ভিত্তিক কুন দল নাকি হইতে পারে না। আরে সালা ঘোচু, ধর্ম নিয়া দল যদি না হইবে, আমরা তাহলে কি বেচিয়া খাইতেছি?

তারেক জিয়াকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে আওলাদে গাদ্দার বলেন, বিজনেশে কভু লাভ কভু লশ হয়। তাই বলিয়া আমীরুল গাদ্দারানের জানাজায় মফিজ সরবরাহে বাধা দিবি? হুয়াটস দি পবলেম?

বড় গনতন্ত্রকে ওপেন চেলেঞ্জ দিয়ে বহিস্কৃত বিগ্রেডিয়ার আজমী বলেন, তুমার পিতা গাদ্দারি করছে চিপায় বসিয়া। আর আমার পিতা গাদ্দারি করছে খোদ আল্লামা জেনারেল টিক্কা খান (রঃ)র বাসায় গিয়া। তুমার পিতা গাদ্দারি করিয়া বাচিয়া আছিল মাত্র ছয় বতসর। আমার পিতা গাদ্দারি করিয়া বাচিয়া আছিল তেতাল্লিশ বতসর। তুমার পিতার পুত্র একা তুমি। আর আমার পিতার পুত্র সাতজন। তুমার পিতা মরার আগে পন্ত সকালে রুটি আর আলুর ভাজি খাইছে। আমার পিতা মরার আগে ডেলি ডেলি ২১ পদের খানা ভক্ষন করছে। তুমার পিতার আছিল ছিড়া গেঞ্জি আর ভাংগা ছুটকেছ। আমার পিতার নয় তলা বাড়ি আছে, গাড়ি আছে, আইপেড আছে। গাদ্দারির আন্তর্জাতিক SI এককে যদি আমার পিতা হয় ১ গোয়াজম, তুমার পিতা কুনমতে ১০ মিলিগোয়াজম। অতএব শুন, তুমি ছুট গাদ্দারের পুলা, আমি বড় গাদ্দারের পুলা। ছুট গাদ্দারের পুলা হইয়া বড় গাদ্দারের পুলার পুটুতে আংগুল দিতে আসিও না। ওপেন চেলেঞ্জ দিয়া বলতেছি, বৃহত্তর জামায়াতের লিল্লাহ বেতীত বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখা কুনদিন ক্ষমতায় আসিতে পারিবে না।

রাগারাগি করে আওলাদে গাদ্দার বলেন, প্রেমদণ্ডের জুরেই কনডম খাড়াইতে পারে। প্রেমদণ্ড ছাড়া কনডমের দৌড় টয়লেট পযন্ত। ফিপটিন পারসেন্ট খাইতে খাইতে কে প্রেমদণ্ড আর কে কনডম, উহাই ভুলিয়া গেছ সালা ঘোচু।

September 3, 2014

টেলিভিশনে ইসলামী অনুষ্ঠান করবেন ফারুকী

নিজস্ব মতিবেদক

বৃহত্তর জামায়াতের কেডারদের হাতে চেনেল আইয়ের ইসলামী অনুষ্ঠান উপস্থাপক ও ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের আন্তর্জাতিক সম্পাদক মাওলানা নুরুল ইসলাম ফারুকী নিহত হওয়ার পর চেনেল আইয়ে ইসলামী অনুষ্ঠানের হাল ধরতে যাচ্ছেন নিহত ফারুকীর যমজ ভাই বাংলার সেরা বিজ্ঞাপন নির্মাতা ও বাংলার ডেভিড ধাওয়ান আল্লামা মস্তফা সরয়ার ফারুকী।

আজ নিজ বাসভবনে আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষনা দেন মস্তফা সরয়ার ফারুকী।

সংবাদ সম্মেলনে ফারুকী বলেন, নুরুল ইসলাম ফারুকী আমার যমজ ভাই। ছুটকালে আমরা মেলায় ঘুরতে গিয়া হারাইয়া গিয়াছিলাম।

আবেগঘন কণ্ঠে বাংলার ডেভিড ধাওয়ান বলেন, আমাদের পিতামাতার ইচ্ছা ছিল, আমরা যমজ দুই ভাই বড় হয়ে অনেক নাম কামাই করব। উনাদের ইচ্ছা ছিল, আমাদের মধ্যে একজন হইবে সেকুলার, আরেকজন হইবে দ্বীনের পথে আলেম। ছুটকালে মেলায় হারাইয়া গেলেও পিতামাতার স্বপ্ন আমরা বাস্তবায়ন করিয়াছি। বৃহত্তর জামায়াতের কেডারদের হাতে নিহত নুরুল ইসলাম ফারুকী আছিলেন একজন সেকুলার পণ্ডিত, আর আমি হইছি দ্বীনের পথের একজন আলেম। তাই চেনেল আইয়ে ইসলাম বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘কাফেলা’ ও ‘শান্তির পথে’ এখন আমিই উপস্থাপনা করব।


শহরে এসেছে এক নতুন আলেম

বৃহত্তর জামায়াতের কেডারদের হাতে নিহত ফারুকীর প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে জীবীত ফারুকী বলেন, নুরুল ইসলাম ফারুকী আমার যমজ ভাই হইলে কি হইবে, সে সেকুলার হইয়াই সব পণ্ড করল। আমি তাকে বহু বার বলিয়াছি, আল্লামা মওদুদীর পথে আস। সে আমায় হাসতে হাসতে বলছিল, মওদুদী একটি মোনাফেক।

হুহু করে কেদে উঠে মস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, শুদু মওদুদীর অপমান করিয়াই সে থামে নাই। সে আমাদিগের সকলের নয়নের মনি পিস টিভির আমীর আল্লামা জোকাই লামার পিছনেও লাগছিল। তৌহিদী জনতা কখনও তা মেনে নিতে পারে না। তাই আজ সে আর আমাদের মাঝে নাই।

টেলিভিশনে ইসলামী অনুষ্ঠান উপস্থাপকদের প্রভাবশালী সংগঠন ‘এশশিয়েশন অফ ইসলামী মিডিয়া পারসনালিটি’র বর্তমান আমীরের পদ গ্রহনের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে মস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, শহরে এসেছে এক নতুন আলেম, ধর তাকে ধরে ফেল এখনই সময়। নাহইলে আলেম রাগ করে চলে যাবে, ফিরেও আসবে না, আলেম কস্ট চেপে চলে যাবে, খুজেও পাবে না, মেয়ে আমাকে ফিরাও।

টেলিভিশনের অন্যান্য ইসলামী উপস্থাপকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বাংলার ডেভিড ধাওয়ান বলেন, সেকুলারদের রাতের ঘুম হারাম করিতে আমি চলিয়া আসছি, আর কুন চিন্তা নাই। নুরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার পিছনে যে সকল আলেম উপস্থাপক ইন্ধন যুগাইছেন, তাহাদিগকে ধন্যবাদ।

নুরুল ইসলাম ফারুকী বিরধী ইসলামী মিডিয়া বেক্তিত্ব তারেক মনয়ারের সংগে নিবিড় বন্ধুত্ব গড়ে তুলার উপর জোর দিয়ে মস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, তারেক মাসুদ দিয়া আমাদিগের কুন প্রয়জন নাই, তারেক মনয়ার হইলেই আমাদিগের কাম চলিয়া যাইবে। যুগে যুগে তারেকরাই দেশকে দাজ্জালের হাত হতে উদ্ধার করে। বন্দু তুমার পথের সাথীরে চিনে নিও। আমরা এক লগে মিলিয়া সেকুলারদিগের বিরুদ্ধে জেহাদ লড়াইব।

মস্তফা সরয়ার ফারুকীকে ইসলামের টেলিভিশন জগতে সাগত জানিয়ে নিখিল বাংলাদেশ তারেক সমিতির নায়েবে আমীর ও নুরুল ইসলাম ফারুকী বিরধী মাওলানা তারেক মনয়ার বলেন, এক ফারুকী লকান্তরে, আরেক ফারুকী ফ্রেনশিপ করে। এ ফারুকীই সঠিক ফারুকী।

%d bloggers like this: