Posts tagged ‘পাকিস্তান’

February 22, 2015

মেডামের দুয়ায় সমস্যা আছে: মিছবাউল

ক্রীড়া মতিবেদক

চলমান বিশ্বকাপ কৃকেটে পাকিস্তানের উপর্যুপরি শোচনীয় পরাজয়ের পিছনে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসির দুয়া কালামে সমস্যাকে দায়ী করে পাকিস্তান কৃকেট দলের আমীর মিছবাউল হক বলেছেন, মেডামের দুয়ায় সমস্যা আছে।

আজ বৃসবেনের একটি স্থানীয় কৃকেট মাঠে জিম্বাবুয়ের সংগে পরবর্তী মেচের পুর্বে বেটিং, বলিং, ফিলডিং ও মেচ ফিকসিং অনুশীলনের পর আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে মাদারে গনতন্ত্রের দুয়ায় সমস্যার কথা তুলে ধরেন মিছবাউল।

সংবাদ সম্মেলনে মিছবাউল হক বলেন, আমরা ইতি পুর্বে পত্র পতৃকা পাঠ করিয়া জানতে পারছিলাম যে মাদারে গনতন্ত্র পাকিস্তান কৃকেট দলের জন্যি রোজা রাখিয়া ছিলেন। কিন্তু আমরা মালাউন ইনডিয়ার নিকট নির্মম ভাবে পরাজিত হওয়ার পর তিনি রোজা ভংগ করেন।

আবেগঘন কণ্ঠে মিছবাউল কৃকেটার বলেন, ওয়েষ্ট ইন্ডিজের সংগে খেলতে নামিয়া আমরা মেডামের নায়েবে সাহাফা মারুফ কামাল খানের এছেমেছ পাইলাম যে তিনি এছেছছি পরীক্ষার পড়ালিখা বাদ দিয়া আমরার জন্যি একুশে ফেব্রুয়ারী মধ্য রাত্রে দুয়া মহাফিলের আয়জন করছেন। মেডামের দুয়ার উপর ভরসা করিয়া আমরা খেলতে নামলাম। কিন্তু সে দুয়ার প্রতিক্রিয়ায় আমাদিগের জয় লাভ ত দুরের কথা, পাইজামা পুটুতে রাখাই কঠিন হইয়া গেল। ১ রানে ৪ উইকেট হারানির বিশ্ব রেকড লইয়া ওয়েষ্ট ইন্ডিজের মত একটি মালাউন দলের হাতে নির্মম পুটুমারা খাইয়া আমরা পেভিলনে ফিরত আইলাম।


ইনডিয়া জিতে গেছে

হুহু করে কেদে উঠে মিছবাউল বলেন, মেডামের দুয়ায় যদি কুন কাম হইত, তাহলে আজ সাউথ আফৃকার সংগে ইনডিয়া শত শত রানের বেবধানে জয় লাভ করতে পারত? পারত না। এতে কি প্রমান হয়? প্রমান হয় যে মেডামের দুয়ায় সমস্যা আছে।

অবিলম্বে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে স্বাধীন রাস্ট্র হাটহাজারিস্তানের খলিফা ও হেফাজতে ইসলামের আমীর উপমহাদেশের সর্বাপেক্ষা হিট আলেম আল্লামা রাজ শাহ আহমদ শফীর তত্তাবধানে মাদারে গনতন্ত্রকে দুয়া কালাম প্রশিক্ষনের বেবস্থা করার জন্য বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন বাকশাল সরকারের প্রতি আহোভান জানিয়ে মিছবাউল হক বলেন, মেডামের ভুল দুয়ার কারনে আমাদের মেচ ফিকসিং বেবসায় চরম অবক্ষয় দেখা দিছে। মাদারে গনতন্ত্র অবিলম্বে সঠিক ও কার্যকরী দুয়া শিখিয়া দুয়া মহাফিলে না বসলে আমরা বৃসবেন প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করতে বাধ্য হইব।


দুয়ার টেবিলে নারী পুরুষের অবাধ মিলামিশা

পতৃকায় প্রকাশিত মেডামের দুয়া মহাফিলের ছবি দেখিয়ে মিছবাউল উপস্থিত সাংবাদিকগনের কাছে ক্ষুব্ধ কণ্ঠে প্রশ্ন করেন, দুয়ার টেবিলে নারী পুরুষের অবাধ মিলামিশা হলে সে দুয়ায় কি কখনও কাম হবে? এ কেমন মহাফিল? আল্লামা রাজের ১৩ দফার ইতনা অবমাননা কিউ হতা হায়?

এদিকে মিছবাউলের অভিযোগের জবাবে পাল্টা বিবৃতীতে মাদারে গনতন্ত্রের নায়েবে সাহাফা মারুফ কামাল খান বলেন, আমি পাকিস্তানের কৃকেট দলের আমীর শ্রীযুক্ত মিছবাউল হককে মেডামের পক্ষ হতে পরিস্কার জানাইয়া দিতে চাই যে একুশে ফেব্রুয়ারী আমরা পাকিস্তান কৃকেট দল নহে, বরং ভাষা শহীদ গোলাম আজম, ভাষা শহীদ ইউছুপ, ভাষা শহীদ আবদুল আলীম ও ভাষা শহীদ আবদুল কাদের মোল্লা ও হবু ভাষা শহীদ কামারুজ্জামানের জন্যি দুয়া মহাফিল বসাইয়াছিলাম। জিম্বাবুয়ের সংগে পাকিস্তানের মেচের পুর্বে মেডাম খাস দিলে ইস্পিশাল দুয়ায় বসবেন ইনশা আল্লাহ। আপুনি টেকাটুকা খাইয়া জিম্বাবুয়ের সংগে পরাজয়ের রাহে পা না বাড়াইলে পাকিস্তানের ইজ্জত বাচবে, মেডামের দুয়ার বদনামও কমবে। লাইনে আসুন।

হাসতে হাসতে মারুফ নায়েব বলেন, এ দুয়া সে দুয়া নহে।

 

February 19, 2015

আফৃদী আমায় উতপল শুভ্র বলেছে: লুডেন

ক্রীড়া মতিবেদক

পাকিস্তান কৃকেট দলের অল রাউন্ডার বুম বুম শহীদ আফৃদীর বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনে পাকিস্তান কৃকেট দলের ফিলডিং কুচ গ্রেন্ট লুডেন বলেছেন, আমি আর পাকিস্তান কৃকেট দলে চাকরী করব না। উহারা শুদু মারতে চায়।

আজ টুইটারে এক বার্তায় এ অভিযোগ করে পদতেগের হুমকি দেন দক্ষিন আফৃকার লোক লুডেন।

এ বেপারে লুডেনের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিকণ্ঠকে বলেন, দুটু পয়সার জন্যি পাকিস্তানের নেয় একটি মাদারচুদ দেশে গিয়াছিলুম। কৃকেটারগুলুকে ফিলডিং শিখানই আমার চাকরী। কিন্তু বললে বিশ্বাস করবেন না ভাইছাব, উহারা একেকটি পুরস্কার প্রাপ্ত মাদারচুদ। যদি মাদারচুদামির উপর কুন বিশ্বকাপ থাকত, পাকিস্তান একাই চেম্পিয়ন ও রানাসাপ হইত।


আফৃদীর হাতে যৌন নির্যাতিত লুডেন

আবেগঘন কণ্ঠে গ্রেন্ট লুডেন বলে, বিশ্বকাপে ভারতের নিকট উপর্যুপরি পুটুমারা খাওয়ার পর আমি কৃকেটারগুলুকে মাঠে ডাকিয়া বললুম, আইস বেরাদারগন, এখন আমরা কিছু ফিলডিং পেকটিস করি, যাতে অন্য দলগুলু আমাদের মারা খাওয়া পুটুতে লবন রাখিয়া বরই ভক্ষন করতে না পারে। তখন কুথা হতে এই বুম বুমের বাচ্চা শহীদ আফৃদী তার দুই বেয়াদব বন্দু শাহজাদ ও উমর আকমলকে সংগে লইয়া আমার নিকট আসিয়া চক্ষু রাংগাইয়া বলল, আরে কৌন হামারা পুটু মে লবন রাখিয়া বরই খায়েংগে? বিশ্বকাপ মে সব টিম ক ইনডিয়া সমঝতে হে তু? সালা উতপল শুভ্র।

হুহু করে মুঠফুনে কেদে উঠে লুডেন বলেন, আমি এই তিন বেয়াদবকে বুঝাইয়া বলতে গেলাম যে দেখ, ইনডিয়ার কাছে পুটুমারা খাইছ, খাইছ। তাই বলিয়া এখন রিলেক্স করার কুন কারন নাই। যে কুন সময় যে কুন দল তুমাদিগকে পুনরায় পুটু মারিয়া দিতে পারে। কে জানে হয়ত এই উমর আকমল আর শাহজাদই মেচ ফিকসিং করিয়া বরইয়ের জন্য লবনের বেবস্থা করিয়া দিবে। তখন খানকির পুলা বুম বুম আমায় বলে কি, আরে তু ফিলডিং কুচ হে, বেটিং কে বেপার মে ইতনা মাথাবেথা কিউ করতে হে সালা উতপল শুভ্র?

কাদতে কাদতে লুডেন বলেন, পর পর দুইবার তারা আমায় উতপল শুভ্র বলিয়া গালি দিল। ইহা পরিষ্কার যৌন নির্যাতন। আমি পিসিবি ও আইসিসি উভয়ের কাছে বিচার দিব। ফর্সা হওয়ার কারনে উহারা আমায় কি যেন করতে চায়।

February 15, 2015

পাকিস্তান হেরে যাওয়ায় রোজা ভংগ করলেন মেডাম

ক্রীড়া মতিবেদক

বিশ্বকাপ কৃকেটে প্রথম রাউন্ডে ইনডিয়ার কাছে পাকিস্তানের পরাজয়ের পর নফল রোজা ভংগ করেছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির মালিক আপোষহীন দেশনেত্রী মাদারে গনতন্ত্র বেগম খালেদা জিয়া জেএসসি।

বিশ্বকাপ খেলা শুরু হওয়ার কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের বিজয় কামনা করে নফল রোজা রাখা শুরু করেন মাদারে গনতন্ত্র।

বেগম জিয়া জেএসসির প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান নাম প্রকাশ না করার শর্তে মতিকণ্ঠকে বলেন, কার্যালয়ে আস্তানা গাড়িবার পর মেডামের জীবন যাত্রা কঠিন হইয়া গেছে। বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার আওলাদে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ভবিষ্যত মালিক ও বর্তমান আমীর এট লার্জ ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী পলাতক চিকিতসাধীন তরুন নেতৃত্ব মিষ্টার ফিপটিন পারসেন্ট বড় গনতন্ত্র বড় গুন্ডে লাদেন-এ-লনডন তারেক জিয়ার শশুড় বাড়ি মেডামের কার্যালয় হইতে বেশী দুরে নহে। প্রতি দিন বড় গুণ্ডের শাশুড়ী ইকবাল মন্দ বানু দশ বার পদের খানা খাদ্য রন্ধন করিয়া তিন বেলা মেডামের নিকট পেশ করেন। বড় গুণ্ডের বড় শালী শাহীনা খান জামান বিন্দু গাড়ী বহর চালাইয়া সেই সব খানা খাদ্য পৌছাইয়া দিয়া যায়। আর এই বেহেস্তী খানার গন্ধে গন্ধে বিএনপি শাখার অসংখ্য দুধের মাছি নেতা নেত্রী আসিয়া মেডামের কার্যালয়ে ফ্লরিং করা শুরু করে।

আবেগঘন কণ্ঠে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মারুফ কামাল খান বলেন, মেডামের কার্যালয়ে জায়গার কত অভাব। অতছ ফেন্টাষ্টিক ফাইব হতে শুরু করে গ্রাম গঞ্জের অসংখ্য বিএনপি শাখা পাতিশাখার নেতারা আসিয়া এইখানে রাতৃ যাপন করতে চায়। ছুট গুণ্ডে কোকোর দাফনের আগেও তবারক ভাগাভাগি লইয়া অনেক গণ্ডগুল হইছে। ইহাদের উতপাতে মেডামের তিন বেলা বেহেস্তী ভোজনে অনেক সমস্যা হইতেছে।


পাকিস্তান হেরে গেছে

অশ্রু মুছে মারুফ কামাল খান বলেন, ইত্যাদি নানা কারনে মেডাম কয়েক দিন পুর্বে পাকিস্তানের জন্য রোজা রাখা শুরু করেন। রোজা রাখিয়াই তিনি এসএসসি পরীক্ষা দিয়াছেন। পাকিস্তানের পক্ষে থাকায় আল্লাহর বরকতে পরীক্ষা ভাল হয়েছে।

আবার হুহু করে কেদে উঠে প্রেস সচিব মারুফ বলেন, মেডাম রোজা রাখেন, তাই স্বৈরাচার বাকশালের ফেসিবাদী পুলিশ এই কয়দিন কার্যালয়ে কুন খাওন দাওন প্রবেশ করতে দেয় নাই। টিফিন কেরিয়ারে করিয়া মেডামের সেহরীর জন্যি যে বড় হরলিকস পাঠান হইত, উহাও বিশেষ শাখার পুলিশ অপিসারগুলু নিজেরা ভাগাভাগি করিয়া খাইয়ালাইছে। এই কয়দিন আমরা বাকিরা শুদু বিস্কুট ও ছোলা বুট খাইয়া বাচিয়া রইছি।

পাকিস্তান হেরে যাওয়ায় মাদারে গনতন্ত্র রোজা ভেংগে ফেলেছেন উল্লেখ করে মারুফ কামাল খান বলেন, আশা করতেছি আবার ইকবাল মন্দ বানু মেডামের বাড়ীর বেহেস্তী খানা সেবনের সুযুগ পাব।

ইকবাল মন্দ বানুকে ফুলকপির কোন তরকারী না পাঠানর জন্য পতৃকায় লিখার আবেদন জানিয়ে মারুফ কামাল খান বলেন, ফুলকপি খাইলে গেস হয়। কার্যালয়ে রাত্র কালে সবাই গাদাগাদি করিয়া ঘুমাই। ওয়াল্লাহে ফুলকপির তরকারী পাঠান বন্দ করুন।

February 7, 2015

এখন লভ্যাংশের ১০০% আদায়ের দাবী পিসিবির

ক্রীড়া মতিবেদক

আগামী এপ্রিল ও মে মাসে একটি টিটুয়েন্টি, দুটি টেষ্ট ও তিনটি ওয়ানডে মেচ খেলতে বাংলাদেশে আসার জন্য এবার শর্ত আরও কঠিন করেছে পাকিস্তান কৃকেট বুড ওরফে পিসিবি।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে নতুন কঠর দাবীর কথা তুলে ধরেছেন পিসিবির আমীর শাহরিয়ার খান।

সংবাদ সম্মেলনে শাহরিয়ার খান বলেন, ২০১১ সালে আমরা বাংলাদেশে খেলতে গেছিলাম। বদলে বাংলাদেশের কৃকেট বুডের আমীর ও আমার গদির প্রাক্তন গদ্দিনশীন জাকা আশরাফের অবৈধ পুত্র মোস্তফা কামাল ইকরার করিয়াছিল যে পাকিস্তানে খেলার জন্য সেও বাংলাদেশ দলের কৃকেটারদিগকে পাঠাইবে। কিন্তু পরবর্তীতে পাকিস্তানে গোলাগুলি ও বোমা হামলার উছিলা তুলিয়া মোস্তফা কামাল তার ওয়াদা খিলাপ করে। তাই আমরার হিসাব মতে এখন যদি আমরা বাংলাদেশে খেলতে যাই, উহা হইবে আমাদিগের হম সিরিজ।

আবেগঘন কণ্ঠে পিসিবি আমীর বলেন, একাত্তর সালে আমরা যে আল বদরগুলুকে বাংলাদেশে ছাড়িয়া দিয়া আসছিলাম, উহারা বড় হইয়া বাচ্চা ও নাতি পয়দা করিয়া এখন বাংলাদেশরে হাপ পাকিস্তান বানাইয়ালাইছে। সেদিন টেলিভিশনে দেখি বাসে আগুন দিয়া জিন্দা আদমীরে উহারা পুড়াইয়া মাইরালাইছে। পরথমে ভাবছিলাম উহা করাচীর দৃশ্য। পরে শুনলাম উহা কুমিল্লার ঘটনা।

আনন্দে হুহু করে কেদে উঠে শাহরিয়ার খান বলেন, এখন সকল বিচারেই এই খেলা হম সিরিজ। পাকিস্তানের নেয় বাংলাদেশেও এখন পদে পদে বোমার শিহরন। তাই ৫০% লভ্যাংশের দাবী বাড়াইয়া আমরা এখন ১০০% চাই।

বৃহত্তর জামায়াতকে ধন্যবাদ জানিয়ে শাহরিয়ার খান বলেন, তুমরা যারা আমাদের বাচ্চা, তারাই পাকিস্তানী সাচ্চা।

%d bloggers like this: