Posts tagged ‘ফারুক’

May 4, 2014

জর্জ ক্লুনির প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন পাপিয়া

নিজস্ব মতিবেদক

সম্প্রতি যুক্ত রাজ্য নিবাসী এক আইনজীবির সংগে প্রনয় সম্পর্কে আবদ্ধ হওয়ায় বিখ্যেত হলিউডি অভিনেতা ও পৃথীবির সাবেক সেক্সিতম জীবীত পুরুষ জর্জ ক্লুনির প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিএনপি শাখার বিশেষ নৃশংস স্কোয়াড ফেন্টাষ্টিক ফাইভের সদস্য ও সাবেক মহিলা সংসদ সদস্য এডভকেট পাপিয়া পাণ্ডে।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন পাপিয়া পাণ্ডে।

পাপিয়া পাণ্ডে বলেন, জর্জ ক্লুনির সংগে আমার ছুটকাল হতেই পরিচয়। তার সব কয়টি চলচিত্র আমি দেখিয়া ফেলছি। আমার ঘরে তার শত শত পোষ্টার আছে।

আবেগঘন কণ্ঠে পাপিয়া বলেন, সম্প্রতি জর্জ লনডন নিবাসী এক লেবাননী এডভকেটের সংগে লটর পটর শুরু করছে। সেই পিশাচীনী এডভকেটের নাম আমল আলমুদ্দি। উহারা একে অপরকে বাগদান করিয়াছে।


আমল আলমুদ্দির সংগে জর্জ ক্লুনি

হুহু করে কেদে উঠে পাপিয়া পাণ্ডে বলেন, সারাটি জীবন অপেক্ষা করলুম জর্জের জন্য। আমি জানি তার এডভকেট পছন্দ। মহিলা আইনজীবি দেখলে সে আর লালচ দমন করতে পারে না। কিন্তু এইভাবে যে সে দাগা দিয়া লনডন গিয়া ঐ পিশাচীনী এডভকেটের গলায় মালা দিবে, তা আমি কুনদিন চিন্তা করি নাই। হাতের কাছে চাপাইনবাবগঞ্জ ফেলিয়া সালা ঘোচু লনডন কেন গেল?

বুক চাপড়ে হাহাকার করে ফেন্টাষ্টিক ফাইভের দুর্ধর্ষ একশন লেডি বলেন, এই লনডনের কারনে আমার সব গেল। লনডন নিবাসী বড় গনতন্ত্র খাইল আমার কেরিয়ার, আর লনডন নিবাসী পিশাচীনী এডভকেট আলমুদ্দি খাইল আমার প্রেম।

অবিলম্বে সরকারকে লেবাননের সংগে সকল প্রকার কুটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার আলটিমেটাম দিয়ে পাপিয়া পাণ্ডে বলেন, লেবানন কর যদি, বাকশাল ছাড় গদি। পাণ্ডেতে জুলুম পাপ, ক্ষমা চেয়ে নাহি মাফ। যারা আলমুদ্দির ধামাধারী, তাদের তুলিয়া আছাড় মারি। নাই কুন পরিত্রান, লটকে আযা ও জর্জ মেরে জান।

এক তাতক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় আরেকটি সংবাদ সম্মেলনে বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার সাবেক হুইপে আমীর ও বাবুমেন জয়নাল আবদীন ফারুক পাপিয়া পাণ্ডেকে সান্তনা দিয়ে বলেন, জর্জ গেছে, কিন্তু জয়নাল আছে।

July 3, 2013

মন্ত্রনালয়ের নাম পরিবর্তনের জন্য খালেদার নিকট ফারুকের আবদার

নিজস্ব মতিবেদক

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরংকুশ বিজয়ের পর একটি মন্ত্রনালয়ের নাম পরিবর্তনের জন্য বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা আমীর ও জাতীয়তাবাদী শক্তির বর্তমান মালিক বেগম খালেদা জিয়ার নিকট আবদার জ্ঞাপন করেছেন বিএনপি শাখার সাবেক হুইপে আমীর, ফেন্টাষ্টিক ফাইভের সাবেক আমীর প্রেমিক পুরুষ আল্লামা জয়নাল আবদিন ফারুক।

সিংগাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় আয়জিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ আবদার করেন ফারুক।

জয়নাল আবদিন ফারুক বলেন, সিংগাপুর বাংলাদেশের রাজনীতীবীদদের বেকায়দা তীর্থ। যখনই কুন বেক্তি পলিটিকশ করতে গিয়া বেকায়দায় পড়ে, সে সিংগাপুর চলিয়া আসে। কেহ ভর্তি হয় হাসপাতালে, কেহ যায় জুরং পার্কে পাখি দর্শনে। কেহ সাথে করিয়া পত্নী উপপত্নী লইয়া আসে, কেহ এইখানে আসিয়া উপপত্নী সন্ধান করে। কেহ আসে টেকা বেংকে রাখতে, কেহ আসে বেংক হতে টেকা তুলতে। সিংগাপুর অদ্ভুদ।

আবেগঘন কণ্ঠে ফারুক বলেন, প্রেম করতে গিয়া হইলাম অপমান। আমায় আপদ জ্ঞান করিয়া হুইপে আমীর পদ হতে সরান হল। তাই বিপদে আমি আইলাম সিংগাপুর। কিন্তু একদিন দেশে ফিরব। গদিতেও উঠব। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়টি আমায় দিতে হবে।

বিএনপি শাখার মহিলা আমীর বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করিয়া ফারুক বলেন, এ মন্ত্রনালয়টির নাম পাল্টাইয়া মহিলা ও বাবু বিষয়ক মন্ত্রনালয় করতে হবে। আমি এর দায়িত্ব নিলে দুনিয়ায় সকল মহিলাকেই বাবু দিব। মহিলা ও বাবু, উভয়ের দায় দায়িত্ব আমি লব। প্রবাসী বিএনপি নেতা কর্মী সমর্থকদের পত্নীরা একাকীনী জীবন কাটান। তাদের সংগে সময়ে অসময়ে মুঠোফোনে দুদন্ড মধুর কথপকথন ও মাঝে মাঝে বাবু প্রদান আমার জন্য কুন বেপারই নহে।

June 20, 2013

নিজেকে গ্রামের ‘পোলা’ বলে শিকারুক্তি দিলেন শাম্মী পাণ্ডে

সংসদ মতিবেদক

জাতীয় সংসদ ভবনে ভরা মজলিসে জাতির সামনে নিজেকে গ্রামের ‘পোলা’ বলে শিকারুক্তি দিয়েছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার মহিলা সংসদ সদস্য ও বিশেষ নৃশংস ইস্কোয়াডের অন্যতম সদস্য শাম্মী পাণ্ডে।

বুধবার জাতীয় সংসদের অধিবেশন চলাকালে এ শিকারুক্তি করেন শাম্মী।

শাম্মী পাণ্ডে বাকশালী সংসদ সদস্যদের উদ্দেশ করে বলেন, এই মহান সংসদে দাড়িয়ে আমি কাউকে ডরাই না। আমি তাই জাতির উদ্দেশে বলতে চাই, আমিও গেরামের ‘পোলা’, চোতমারানী গাইল দিতে জানি।

শাম্মী পাণ্ডের এই বীরত্বপুর্ন শিকারুক্তির পর সংসদে প্রচণ্ড শোরগোলের সৃস্টি হয়। বিএনপি শাখার নারী সংসদ সদস্যরা টেবিলে বিপুল চাপড় দিয়ে শাম্মী পাণ্ডেকে অভিনন্দন জানালেও পুরুষ সংসদ সদস্যদের মধ্যে অস্বস্তির সৃস্টি হয়। তাদের কারও কারও মাঝে হতাশা, কারও কারও মাঝে ক্ষোভের সৃস্টি হতে দেখা গেছে।

বিরুধী দলের জেষ্ঠ সদস্য মওদুদ আহমদকে এই সময় দাত দিয়ে নখ কাটতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাকশালী সংসদ সদস্য স্পিকারের দৃস্টি আকর্ষন করে বলেন, একজন গেরামের পুলা কি করে সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্যের আসন পাইল তা তদন্ত করে দেখতে হবে মাননীয় ইস্পিকার।

আরেক বাকশালী সদস্য বলেন, সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য পদে শপথ গ্রহনের পুর্বে ২ কপি সত্যায়িত মেডিকেল সার্টিফিকেট ও এক্সরে ফিল্ম স্পিকারের কাছে জমা দেওয়ার বিধান চালু করা প্রয়জন। নাহলে মহিলা সংসদ সদস্যদের পদে গ্রামের পুলারা আসিয়া ভিড় করবে।

শাম্মী পাণ্ডে নিজেকে গ্রামের পোলা বলে শিকারুক্তি দেওয়ার পর সারা দেশে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

বিশিষ্ঠ ইতিহাসবীদ, কলামিষ্ট ও গান্ধীবাদী আন্দলনের অগ্র সেনানী সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, শাম্মী পাণ্ডে একজন বীরপুলা। তিনি যেভাবে মহিলার ছদ্মবেশে সংসদ ও ফেন্টাষ্টিক ফাইভে যোগ দিয়েছেন, তা ইতিহাসে সোনার অক্ষরে লেখা থাকবে।

শাম্মী পাণ্ডের সহকর্মী ও ফেন্টাষ্টিক ফাইভের নায়েবে আমীর পাপিয়া পাণ্ডের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি মতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন, শাম্মী যে একজন পুলা তা আমরা কখনও বুঝতে পারিনি। একশনে নেমে কে পুলা কে মাইয়া এতসব খেয়ালও থাকে না। আর দশটি নারী কেডারের মত শাম্মীও মহিলা কনষ্টেবলদের মাটিতে ফেলিয়া তাদের উপর চড়াও হইছে, গাড়ি তুলিয়া আছাড় দিছে। আবার অবসরে আমরা বিএনপি শাখার নয়া পল্টনস্থ কার্যালয়ের সামনে বসে অন্তাকশরী খেলিয়াছি, বাদাম বুট ভাগাভাগি করিয়া নিজে খাইছি, ফারুককে খাওয়াইছি। সে পুলা হলেও আমার সংগে তার মিস্টি বন্ধুত্বে ছেদ পড়বে না।

জয়নাল আবদিন ফারুকের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি সিংগাপুর হতে মুঠোফোনে বলেন, আমি প্রতারিত হয়েছি। বিএনপি শাখার রাজনীতী করে আমি পদে পদে শুধু লাঞ্ছনা বঞ্ছনা গঞ্জনার স্বিকার। এসি হারুনের মাইর খাইলাম, পাপিয়া পাণ্ডের বাদাম খাইলাম, আর শাম্মীর সংগে যখন নিবিড় বন্ধুত্ব সবে মাত্র গড়ে উঠছে তখন কিনা সে শিকারুক্তি দিল সে গ্রামের পুলা। হোয়াট ইশ দিশ?

কারওয়ানবাজারের সর্দার, হেফাজতে মাহমুদুরের প্রতিষ্ঠাতা আমীর ও প্রভাবশালী সংগঠন মতিসংঘের সভামতি মতিচুর রহমান আফৃদী হাসতে হাসতে মতিকণ্ঠকে বলেন, সংসদে সেদিন চুদুরবুদুর ঢুকিয়াছে, আজ চোতমারানীও ঢুকল। আশা করি এই অধিবেশনেই খানকির পুলা ও বিলাইপুটু ঢুকবে।

মতিকণ্ঠের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে মতিচুর বলেন, মতিকণ্ঠের ভাত সংসদে খাইয়ালাইল।

June 8, 2013

পেয়ার কিয়া কোই চুরি নাহি কি: ফারুক

নিজস্ব মতিবেদক

প্রেমের অপরাধে বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার হুইপে আমীর পদ হতে বরখাস্ত জয়নাল আবদিন ফারুক বলেছেন, প্রেমের দুষে শাস্তি পাইলাম। আমি ত কুন অপরাধ করি নাই। পেয়ার কিয়া কোই চুরি নাহি কি। পেয়ার কিয়া।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ফারুক।

জয়নাল আবদিন ফারুক বলেন, আমি বিএনপি শাখার হুইপে আমীর। কিন্তু আল্লাহ পাক আমার নছিবে শুধু লাঞ্ছনা বঞ্ছনা গঞ্জনা লিখিয়া দিয়াছেন। বাকশাল সরকার ক্ষমতায় আসতে না আসতেই গদিতে বসতে না বসতেই আমার বিরুদ্ধে এসি হারুনকে লেলাইয়া দিল। সে একটি অভিশাপ। মারিয়া পিটিয়া সে আমায় রক্তাক্ত করিল। তারপর গৃহবন্দী রুহুল কবীর রিজভী গ্রেফতার হওয়ার পর আমার ঘাড়ে আসিয়া পড়িল বিএনপি শাখার নৃশংস ইস্কোয়াড ফেন্টাষ্টিক ফাইভ পরিচালনার ভার। ফেন্টাষ্টিক ফাইভ আমায় খাটাইয়া ঘর্মাক্ত করিল। এ ছাড়া প্রতিদিনের পলিটিকস ত আছেই।

আবেগঘন কণ্ঠে ফারুক বলেন, এত সব কঠিন কাজের পর এই মন চায় একটু প্রেম, একটু শান্তি, দুদন্ড মধুর আলাপন। ইচ্ছা করে কুন প্রবাসী বিএনপি কর্মীর স্ত্রীকে বাবু দেই।

নিজের স্ত্রীকে বাবু না দিয়ে অন্যের স্ত্রীকে কেন বাবু দিতে ইচ্ছা করে, এ প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে ফারুক বলেন, বাবু দিতে চাওয়ার সম্পুর্ন হালাল বাসনা প্রকাশের অপরাধে মহিলা আমীর আমায় বরখাস্ত করিয়া শহীদ উদ্দীন এনিকে হুইপে আমীর বানাইলেন। এই যে আমি মাথার ঘাম পায়ে ফেলিয়া এসি হারুনের মাইর খাইলাম, পাপিয়া পাণ্ডের বাদাম খাইলাম, এ সকলই তিনি ভুলিয়া গেলেন। বিএনপি শাখা না করল আমার আদরের বেবস্থা, না করল আমার কদরের বেবস্থা।

শহীদ উদ্দীন এনির প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বললেন, এই দিন দিন না আরও দিন আছে। একদিন এনির অডিও বাজারে ফাটবে। সেদিন দেখব মহিলা আমীর কাকে হুইপে আমীর নিয়গ করেন।

লনডন মতিনিধি জানান, মহিলা আমীরের সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বৃহত্তর জামায়াতের বিএনপি শাখার আওলাদে আমীর, জাতীয়তাবাদী শক্তির ভবিষ্যত মালিক ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী আল্লামা তারেক জিয়া।

গোপন সুত্রে জানা গেছে, এনির হুইপে আমীর পদে নিয়গের খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করে তারেক জিয়া বলেন, বিএনপি শাখায় কি পুং নামধারী কুন বেক্তি নাই? এনি বুলু টুকু ফালু হোয়াট ইশ দিশ?

%d bloggers like this: