Posts tagged ‘মমতা’

February 21, 2015

মমতার ভয়ে পলাতক আনু মুহাম্মদ

নিজস্ব মতিবেদক

ইনডিয়ার তৃনমুল কংগ্রেসের মহিলা আমীর ও বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর পশ্চিম বংগ শাখার আমীর আল্লামা মমতা বেনার্জি ঢাকায় আসার পর থেকে পলাতক আছেন জাহাংগীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতীর অধ্যাপক, তেল গেস খনিজ বন্দর বিদ্যুত রাজাকার বাচাও আন্দুলনের আমীর ‘আওলাদে মাওসেতুং’ আনু মুহাম্মদ।

মাওবাদীগনের প্রতি মমতা বেনার্জির আক্রোশকে হিসাবে নিয়েই আওলাদে মাও গা ঢাকা দিয়েছেন বলে বিশ্বস্ত সুত্রে জানা গেছে।

আনু অধ্যাপকের বিশ্বস্ত সুত্রের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি নাম প্রকাশ না করার শর্তে মতিকণ্ঠকে বলেন, ইনডিয়ায় মাওবাদীগনের উপর মমতা বেনার্জি অত্যান্ত বিলা। মাওবাদী হাতের নাগালে পাইলে তিনি কি করেন কুন ঠিক নাই। তাই মমতা বেনার্জি যত ক্ষন ঢাকায় অবস্থান করতেছে, তত ক্ষন আওলাদে মাও ঢাকার বাইরে কুথাও পলাইয়া থাকলে বেপারটা ভাল হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেকটি সুত্র জানায়, আনু অধ্যাপক ঢাকার অদুরে তার বন্ধু বিশিষ্ঠ দার্শনিক, কবি, হেকিমী চিকিতসক ও সাংবাদিকদের উপর বোমা মারার দার্শনিক প্রবক্তা ফরহাদ মজহারের জংগি আস্তানা রিদয়পুরে চার দিন বেপী এক পেটরল বোমা প্রশিক্ষন কর্মশালায় অংশ নিতে গেছেন। মমতা বেনার্জির আগমনের সংগে তার পলায়নের কোন সম্পর্ক নাই।


মাওবাদী আনু

এ বেপারে আরও খোজ নিতে আনু মুহাম্মদের মুঠফুনে কল দিলে নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এক অধ্যাপক মতিকণ্ঠকে বলেন, মমতার ঢাকায় আগমন বাংলার মাওবাদীদের জন্যি এক অশনী সংকেত। সারদা গ্রুপের কেলেংকারীর পর মমতা বেনার্জির মন্ত্রীসভার লোকজন সকল টেকাটুকা বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর লোকজনের হাতে আমানত হিসাবে তুলিয়া দিছে। এপার বাংলার মাওবাদীরা কুন টেকাই ভাগে পায় নাই। শাহবাগ আন্দুলনের সময় আনু মুহাম্মদ অনেক পরিশ্রম করিয়া সারদার ফান্ড হতে নিজের জন্য মাত্র কয়েক লক্ষ টেকার বখরা আদায় করতে পারলেও তার অন্যান্য মাওবাদী বন্দুরা ভাগে কিছুই পায় নাই। কিন্তু ইনডিয়ায় বিজেপি ভুটে জিতিয়া ক্ষমতায় আসার পর মমতার এখন খারাপ দিন যাইতেছে। সারদার টেকা তিনি ফিরত চাইতে পারেন, এমন আশংকাতেই আওলাদে মাও গা ঢাকা দিয়াছে।

আনু মুহাম্মদের সংগী মাওবাদী মুজাহিদদের সংগে যোগাযোগ করলে তারা কোন সরাসরি উত্তর দিতে অস্বীকৃতী জানান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক মুজাহিদে মাও বলেন, মমতা বেনার্জি চলিয়া গেলে আওলাদে মাও আবার আসিয়া সুন্দরবনের নদীতে তেল ও মাটিতে বিদ্যুত লইয়া জিহাদে ঝাপাইয়া পড়বেন। আপাতত উনি একটু রেষ্টে আছে।

August 15, 2012

আমিষুল মাওবাদী: মমতা

কলকাতা মতিনিধি

বাংলাদেশের প্রভাবশালী এলাকা কারওয়ানবাজারের উপসর্দার আমিষুল লা “মা” ওরফে আমিষুল হককে ‘মাওবাদী’ বলেছেন ভারতের পশ্চিম বঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বেনারজি।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে মমতা বেনারজি এই অভিযোগ আনেন।

‘দিদি’ মমতা বলেন, আমিষুল একটি মাওবাদী। সে সর্বদা ‘মাও’ ‘মাও’ করে। সে মাওবাদী নাশকতার পরিকল্পনা করতে ঢাকা থেকে প্রায়ই দিল্লী যায়। সম্ভবত সে কুতুব মিনার বোমা মেরে উড়িয়ে দিবে। মমতা বেনারজি আমিষুলকে গ্রেফতারের জন্য কলকাতা মেট্রপলিটান পুলিশ ও রাজ্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি বিএসএফকে আমিষুলের বিরুদ্ধে তিন নং সতর্ক সংকেত দেখানর জন্য কেন্দ্রে চিঠি লিখবেন বলে জানিয়েছেন।

মমতা বেনারজি বলেন, এই অঞ্চল থেকে মাওবাদী সাফ করা হবে।

এদিকে ঢাকায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে আমিষুল হক বলেন, মমতা ‘দিদি’র অভিযোগ সত্য নয়। আমি ‘মাওবাদী’ নই, আমি ‘মাবাদী’। আমি কখনও ‘মাও’ ‘মাও’ করি না। আমি কি বিড়াল নাকি? আমি বলি ‘মা ‘মা’। ‘মা’ আর ‘মাও’ এর মধ্যে অনেক তফাত।

এদিকে মমতা বেনারজির বক্তব্য প্রত্যাহারের জন্য ৪৮ ঘন্টা সময় বেধে দিয়েছেন কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান।

মতিচুর বলেন, মমতা বেনারজি আমিষুলের নামে মিথ্যা হুলিয়া তুলে না নিলে আমরা কারওয়ানবাজারে মমতা বিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলব।

মতিচুর রহমান আবেগঘন কন্ঠে বলেন, আমি এককালে মাওবাদী রাজনীতি করেছি। অস্ত্র জমা দিয়েছি কিন্তু ট্রেনিং জমা দেই নাই। সাবধান মমতা, আমিষুলের পুটুতে আংগুল দিও না। তুমি লুটপাট হয়ে যাবে।

February 23, 2012

মমতার জল সামলাতে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিশন গঠন করল দিল্লি

কূটনৈতিক মতিবেদক

পশ্চিম বংগের মুখ্য মন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ভারতের প্রধান মন্ত্রী মনমোহন সিংহের কাছে অভিযোগ করেছেন, কেন্দ্র রাজ্যের বেপারে উদাসীন। ফারাক্কা বাধ ভেঙ্গে সব জল খসে যাচ্ছে, কিন্তু কেন্দ্র চেয়ে চেয়ে দেখে। খসে যাওয়া বিপুল পরিমান জল চলে যাচ্ছে বাংলাদেশে। এমন চলতে থাকলে তিনি ভারত থেকে আলাদা হয়ে পাকিস্তানে যোগ দেয়ার হুমকি দেন।

এমতাবস্থায় মমতার খসে যাওয়া জল আটকাতে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিশন গঠন করেছে কেন্দ্রের মনমোহন সরকার।

এ সদস্যরা হলেন বিখ্যাত চিত্রাভিনেতা রজনীকান্ত, বিখ্যাত ক্রিকেট খেলোয়াড় নভজোত সিং সিধু ও বিখ্যাত হকি খেলোয়াড় ধনরাজ পিল্লাই।

এ কমিশনকে ফেনটাসটিক ফোর নামে অভিহিত করেছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

কেন তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিশনকে ফেনটাসটিক ফোর ডাকা হচ্ছে, এ প্রশ্নের সরাসরি উত্তর না দিয়ে মৃদু হেসে ধনরাজ পিল্লাই মতিবেদককে বলেন, বুঝেনইতো।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মমতা এই কমিশনকে স্বাগত জানিয়েছেন।

রজনীকান্ত বলেছেন, আগামীকাল তারা কলিকাতায় পৌছাবেন। দুপুরে ভাত খেয়ে তারা ফারাক্কা অভিমুখে হেলিকপ্টারে যাত্রা করবেন।

February 19, 2012

আমার ছিল জল: মমতা

কলিকাতা মতিবেদক

পশ্চিম বংগের মুখ্য মন্ত্রী মমতা বেনারজি বলেছেন, তার জল ছিল। কিন্তু আজ আর নেই।

“ফারাক্কা বাধের একটি কলাপসিবল গেট ভেঙ্গে গেছে। আমার সব জল খসে গেছে। সেই জল চলে যাচ্ছে বাংলাদেশে।” এভাবেই দিল্লির বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মমতা।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বাংলাদেশের পাওয়ার কথা ৪০ হাজার কিউসেক পানি। গেট ভেঙ্গে জল খসে যাওয়ায় তারা এখন পাচ্ছে ৪৬ হাজার কিউসেক। ৬ হাজার কিউসেক অবৈধ জল তারা পাচ্ছে। এই জল দিয়ে তারা স্নান করবে। এই জল দিয়ে তারা কাপড় কাচবে। এই জল দিয়ে তারা বাসন ধৌত করবে। এই জল দিয়ে তারা চাদনি রাতে একে অন্যের গায়ে জল ছিটাছিটি খেলবে। এ মেনে নেয়া যায় না।

তিনি মনমোহন সিংহের প্রতি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মনমোহন একটি অভিশাপ। অবিলম্বে ফারাক্কা বাধের কলাপসিবল গেট মেরামত করে জল খসে যাওয়া ঠেকাতে তিনি দিল্লির প্রতি আহ্বান জানান। মমতা বলেন, বাধ দে হারামজাদা নইলে মানচিত্র খাব।

পশ্চিম বংগের সবাইকে ফারাক্কা বাধের ভাঙ্গা কলাপসিবল গেটের সামনে ঘটি বাটি বালতি জগ মগ নিয়ে হাজির হয়ে অবৈধ ৬ হাজার কিউসেক অতিরিক্ত পানি তুলে ভারতের মাটিতে ঢেলে দেয়ার আহ্বান জানান মমতা বেনারজি।

Tags:
%d bloggers like this: