Posts tagged ‘মুজাহিদ’

November 18, 2015

রায় শুনে পাইজামায় হেগে দিলেন মুজাহিদ ও সাকা

কারাগার মতিবেদক

সর্বচ্চ আদালতে রিভিউ এর রায়ে ফাঁসি বহাল রাখার খবর শুনে নিজ নিজ পাইজামায় হেগে দিয়েছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার নায়েবে আমীর রাউজানের রসপুটিন ব্রাদারফাকার সাকা ও বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব ও আলবদর কমান্ডার আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ।

আজ রায়ের খবর শুনে ঢাকা কেন্দৃয় কারাগারের কনডম সেলে মুজাহিদ ও কাশিমপুর কারাগারের কনডম সেলে ব্রাদারফাকার সাকা পাইজামায় হেগে দেন।

ফেসিবাদী বাকশাল সরকারের কাছে বিকল্প পাইজামা চেয়ে মুজাহিদ চিতকার করে কেদে উঠে বলেন, এ হাগা আমার নয়। ইহা অন্য কুন মুজাহিদের পাইখানা।

এ সময় কারা রক্ষীরা তাকে শাহাদতের তামান্নার কথা স্মরন করিয়ে দিলে মুজাহিদ কাদতে কাদতে বলেন, আরে ধুত্তেরি শাহাদতের তামান্না


খন্দকার মাহবুবের পুটুতে মুষ্ঠি ঢুকানর অংগীকার করছেন ব্রাদারফাকার সাকা

এদিকে পাইজামা না খুলার অংগীকার বেক্ত করে ব্রাদারফাকার সাকা বলেন, আমি এই পাইজামা পিন্দিয়াই ফাসি যাব। যাওয়ার আগে খন্দকার মাহবুব নামের ঐ মক্তারটিকেও আমার সংগে একই পাইজামায় ঢুকাব। খানকির পুলা কুন কেসেই জিততে পারে না, শুদু শুদু টেকা খায়।

খন্দকার মাহবুবের পুটুতে মুষ্ঠি ঢুকানর অংগীকার করে ব্রাদারফাকার সাকা হাসতে হাসতে বলেন, ফাসির আগে উহাকে একবার ব্রাদার বানাইয়া ছাড়ব। মক্তারটা সুইট আছে।

এ বেপারে খন্দকার মাহবুবের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি হাসতে হাসতে বলেন, জাশ্টিশ ফর চৌধুরী।

December 18, 2013

আরে ধুত্তেরি শাহাদতের তামান্না: মুজাহিদ, কামারুজ্জামান

নিজস্ব মতিবেদক

আলবদর কমান্ডার মুজাহিদ

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের নির্মম বলি ও মৃত্যু দন্ডের রায় মাথায় নিয়ে অপেক্ষমান বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব ও আলবদর কমান্ডার আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও কামারুজ্জামান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, আরে ধুত্তেরি শাহাদতের তামান্না।

কাশিমপুর কারাগারে কনডেম সেলে এক অন্তরংগ সাক্ষাতকারে মতিকণ্ঠের কাছে এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুজাহিদ ও কামারুজ্জামান।

মুজাহিদ বলেন, শুরুতে চিন্তা করছিলাম, মাদারে গনতন্ত্র খালেদা জিয়া মেডাম আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা করছিলাম, সৌদী আরব ও পাকিস্তান আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা করছিলাম, বেরিষ্টার রাজ্জাক আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা করছিলাম, মজিনা ফায়ারফক্স আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা করছিলাম, অধ্যাপক ইউনূস বাবুনগরী ও হিলারি রডহাম ক্লিনটন আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা করছিলাম, জাতিসংঘ আছে এমনেষ্টি আছে হিউমেন রাইট ওয়াচ আছে, কুন চিন্তা নাই। কিন্তু পরিস্থিতি আস্তে আস্তে কঠিন হল। তারপর চিন্তা ভাবনা করার সময় খবর পাইলাম, আমাগের কসার কাদের ভাই ক ফাসি মে ঝুলা দিয়া।

আবেগঘন কণ্ঠে মুজাহিদ বলেন, গোলাম আজমের কথায় ভুলিয়া এই লাইনে আসছিলাম। আজ সে সালা ঘোচু ৯০ বতসরের আরামদন্ড লইয়া নিরাপদে ঘুমাইতেছে, আর আমরা দুইটা কচি কচি নায়েব ফাসির কাষ্ঠে ঝুলব।


ফাসির রায় শুনে পেন্টে মল তেগ করেছিলেন আলবদর কমান্ডার কামারুজ্জামান

হুহু করে কেদে উঠে কামারুজ্জামান বলেন, এত এত রেললাইন উপড়াইলাম, এত মানুষরে জ্বালাইয়া পুড়াইয়া মারলাম, খালেদা মেডামরে শয়ে শয়ে কুটি টেকা দিলাম, লেকিন কাদেরা ক ফাসি রুখনা না মুমকিন নিকলা। আব মেরা কেয়া হগা রে কালিয়া?

এ সময় মুজাহিদ কামারুজ্জামানকে আলিংগন করে সান্তনা দেওয়ার চেস্টা করলে কামারুজ্জামান উশখুশ করে উঠেন।

বৃহত্তর জামায়াতের খানকির পুলা নেতা কর্মীদের রটান শাহাদতের তামান্নার গল্প সম্পর্কে জানতে চাইলে মুজাহিদ ও কামারুজ্জামান চিতকার করে কেদে উঠে বলেন, আরে ধুত্তেরি শাহাদতের তামান্না। মরিতে চাহিনা আমি সুন্দর ভুবনে। এই হারামজাদা রাজ্জাক একটি বালের বেরিষ্টার। উহারে উকিল ধরিয়াই আমরা ডুবলাম। আগে জানলে তুরীন আফরুজকে উকিল ধরিতাম।

July 17, 2013

নেয়বিচার হয় নাই: মুজাহিদ

নিজস্ব মতিবেদক

১৯৭১ সালে হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাটের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল-২ কর্তৃক মৃত্যু দন্ড ঘোষনার পর প্রতিক্রিয়ায় আল বদর প্রধান, বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর খানকির পোলায়ে নায়েব আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ বলেছেন, নেয়বিচার হয় নাই।

কাঠগড়ায় দাড়িয়ে মুজাহিদ ডুকরে কেদে উঠে এ অভিযোগ করেন।

মুজাহিদ বিচারপতিদের উদ্দেশ করে বলেন, বড় বস গুলাম আজমকে দিলেন আরামদন্ড। আর আমায় দিলেন মৃত্যু দন্ড। এইখানে বিষয়টা কি?

এ সময় মুজাহিদের বৈধ পুত্র আলী আহমেদ তাজজীদ, আলী আহমেদ তাহকীক ও আলী আহমেদ মাবরুর তাকে শান্তনা দিতে গেলে তিনি চিতকার করে বলেন, তুরা সবাই খানকির পুলা। কি উকিল লাগাইলি যে ফাসি খাইলাম?

এ সময় মুজাহিদের আইনজীবীদের হাসতে দেখা যায়।

কাঠগড়া থেকে নামিয়ে ট্রাইবুনালের হাজতে নেওয়ার সময় মুজাহিদ কাদতে কাদতে বলেন, ৩০ লক্ষ খুন আর ৩ লক্ষ ধর্ষনের ফন্দি করিয়া গুলাম আজম শুধু বুড়া হওয়ার কারনে ডেলি ডেলি মধু খায়, শুপ খায়, ফল খায় আর অলিভ অয়েল দিয়া হাগে। আর আমি মুজাহিদ একটা বাচ্চা পুলা দুই তিন হাজার মাডার করায় আমায় দিল ফাসি। নেয়বিচার হয় নাই।

হাজতে ব্রাদারফাকার সাকার সংগে দেখা হলে মুজাহিদ দুই হাতে নিজের পুটু আড়াল করে বলেন, আসসালামু আলাইকুম সাকা ভাই। ভাল আছেন?

April 16, 2011

নিজামী-মুজাহিদের জীবনহানির আশঙ্কা করছে জামায়াত

নিজস্ব মতিবেদক | তারিখ: ১৬-০৪-২০১১

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির খানকির ছেলে মতিউর রহমান নিজামী ও সেক্রেটারি জেনারেল খানকির ছেলে আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের জীবনহানির আশঙ্কা করছে দলটি। আজ শনিবার দুপুরে দলের বড় মগবাজার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল খানকির পোলা এ টি এম আজহারুল ইসলাম এ আশঙ্কার কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে খানকির পোলা আজহারুল ইসলাম বলেন, ৫ এপ্রিল এক আদেশে নিজামী ও মুজাহিদকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রেখে পুটু মারার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু  এক সপ্তাহের ব্যবধানে সরকার তাঁদেরকে ধানমন্ডির একটি বাড়িতে নিয়ে পুটু মারার আয়োজন করে। সরকার স্রেফ পুটু মারার কথা বললেও আসলে মনে হচ্ছে তারা সিদ্ধ ডিম ও ঢোকাবে। এ দুই নেতাকে ধানমন্ডির একটি বাড়িতে নিয়ে পুটু মারার খবরে তাঁদের পরিবার সদস্যরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।

খানকির পোলা আজহারুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ‘সরকার জনগণকে ধোঁকা দেওয়ার জন্য পুটু মারার কথা বললেও জামায়াত নেতাদের পুটুতে সিদ্ধ ডিম ঢোকানোই তাদের আসল উদ্দেশ্য। এ ছাড়া বাড়িটি নিউমার্কেট এলাকার সন্নিকটে অবস্থিত হওয়ায় ডিমের চালান দ্রুততম সময়ে পৌঁছানো সম্ভব। এ অবস্থায় আমরা দুই নেতার নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। আমরা তাঁদের জীবনহানির আশঙ্কা করছি।’

খানকির পোলা এ টি এম আজহার আবারও দাবি করেন, দেশে কোনো যুদ্ধাপরাধী নেই। একাত্তরে জামায়াতের কেউ যুদ্ধাপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। যুদ্ধাপরাধী হিসাবে অভিযুক্ত জামায়াতের শীর্ষ নেতারা মুক্তিযুদ্ধের সময় ইয়াহিয়া খানের নুনু চোষার কাজে ব্যস্ত ছিলেন। ভারতকে খুশি করার জন্য সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের উদ্যোগ নিয়েছে।

নিজামী ও মুজাহিদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে দলটি ১৮ এপ্রিল সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। কর্মসূচীর পর জামায়াতের নেতাকর্মীরা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একযোগে উলঙ্গ হয়ে পুটু প্রদর্শন করে প্রতিবাদ জানাবেন বলে জানা গেছে।

%d bloggers like this: