Posts tagged ‘সানি লিওনে’

August 20, 2015

ঢাকায় আসছেন সানি লিওন, সর্বনিম্ন টিকেট পনের হাজার টাকা

১ ২ ৩ ৪ ৫ ৬ ৭

September 7, 2014

সেক্স কমেডিতে সানি লিওনিকে সংগ দিবেন না তুষার

বিনোদন মতিবেদক

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সেক্স কমেডিতে সানি লিওনিকে সংগ না দেওয়ার অংগীকার বেক্ত করেছেন খেতনামা ড্রন বিশেষজ্ঞ, মস্তফা অনুরাগী, কাপড় বেবসায়ী ও ইসলামী বেংকের সমঝদার হরলিকস পাগলা বিতর্ক রাজ ও আত্মস্বিকৃত ‘ফেসবুক গু-বাবা’ আল্লামা আবদুন নুর তুষার।

আজ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ অংগীকার বেক্ত করেন বিতর্ক রাজ তুষার।

কতিপয় হলুদ মিডিয়ার প্রতি ইংগিত করে হরলিকস পাগলা বলেন, কিছু পত্র পতৃকায় খবর আইছে যে আমি আসন্ন বলিউড সেক্স কমেডি ‘আকেলে খায়েংগে ডুবাকে নুলু’তে তুষার সানি লিওনিরে সংগ দিতেছে। কিন্তু আমি আমার ভক্তদের আশস্ত করতে চাই, ইহা সম্পুর্ন ভুয়া খবর। আমি কুন সেক্স কমেডিতে সানি লিওনিরে সংগ দিব না।

আবেগঘন ফন্টে ফেসবুক গু-বাবা বলেন, সানি লিওনি একটি পিশাচীনী। পৃথীবির অনেক বড় বড় আলেম ওলামাকে সে তার রুপের মহিনী ফান্দে ভুলাইয়া গুনাহের রাস্তায় টানিয়া লইয়া গেছে। আমি তার ছলনায় ভুলব না, কাজ নেই আর আমার ভালবেসে।


আজও মেলেনি যে প্রশ্নের উত্তর

ভক্তদের আশস্ত করে মস্তফা অনুরাগী তুষার বলেন, পর্দায় আমায় অপরুপ দেখা যায়, সে আমি জানি। এক কালে আমি নিয়মিত রুপালি পর্দায় হাজির হইছি। আমার জীবনটাই সেক্স কমেডি, সে কথাও আমি জানি। কিন্তু এই বৃদ্ধ বয়সে আসিয়া সানি লিওনির নেয় সর্বনাশী সুন্দরীর সংগে কুন কমেডিতে আমি যাব না। আমি একজন রেসপেকটেবিল জেন্টিলমেন, তাই যা করার সিরিয়াস করব।

সানি লিওনির সংগে ভবিষ্যতে সেক্স ট্রেজেডিতে অভিনয়ের আকাংখা বেক্ত করে আল্লামা তুষার বলেন, সেক্স কমেডি নয়, এখন সেক্স ট্রেজেডিতেই আমায় মানাইবে ভাল।

ভগ্নীপতি মস্তফা জব্বারের প্রতি অকুণ্ঠ আস্থা বেক্ত করে মস্তফা অনুরাগী বলেন, বাংলার জবসের কুন বদনাম করতে চাই না। কিন্তু সত্য কথা হইতেছে যে পল্লীবন্ধু এরশাদ যতই সুনাম করুক না কেন, বিজয় টেবলেটের আর সেই দিন নাই। এন্টিবায়টিক টেবলেট ঘন ঘন সেবন করলে যেরুপে উহার কার্যকারীতা হ্রাস পায়, বিজয় টেবলেটের কার্যকারীতাও সেরুপেই হ্রাস পাইয়াছে। তাই কুন রিসকে না গিয়া আপাতত ট্রেজেডিতেই নাম লিখাইতে চাই। কে হায় বিজয় খুড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে?

এ বেপারে বলিউডের সর্বনাশী সুন্দরী সাবেক পর্ন তারকা ‘চলচিত্রের ইউনূস’ সানি লিওনির সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি উত্তেজনা প্রকাশ করে বলেন, ইউ ন নাথিং স্ন।

December 16, 2013

সানি লিওনির মন জয় করতে চান ফারুকী

দুবাই মতিনিধি

হলিউডের দেখাদেখি আগামী চলচিত্রে সানি লিওনিকে রাজী করানর চেস্টা করছেন বাংলাদেশের বিখ্যেত চলচিত্র নির্মাতা মস্তফা সরয়ার ফারুকী।

দুবাইয়ে এক আরাম দায়ক বিলাস বহুল হোটেল কক্ষে মতিকণ্ঠকে দেওয়া এক অন্তরংগ সাক্ষাতকারে সানি লিওনির বেপারে নিজের অবস্থান তুলে ধরেন ফারুকী।

মস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, বাংলাদেশে এখন চলচিত্র নির্মাতা মানেই ফারুকী। আমি যা বানাব, পাবলিক তাই দেখতে বাধ্য থাকবে। আমি যদি দুটি ঘন্টা পাবলিক টয়লেটের বাইরে কেমেরা খুলিয়া দৃশ্য ধারন করিয়া উহাকে সিনেমা বলিয়া বাজারে ছাড়ি, তবে উহাই হবে বাংলাদেশের সর্বাপেক্ষা হিট চলচিত্র। তাই হিট নায়ক, হিট নায়িকা নিয়া আমার কুন মাথাবেথা নাই।

তারপরও বাংলাদেশের জনগনের কথা চিন্তা করে চলচিত্রে সানি লিওনিকে আনার চেস্টার কথা জানিয়ে ফারুকী বলেন, পাবলিক সানি লিওনি জিনিসটা খায়। আর পাবলিক যা খায়, তা খাওয়ানর বেবস্থা করা চলচিত্র পরিচালকের দায়িত্ব। আমি দায়িত্ব পালনের জন্যই সানি লিওনিকে নিয়া আমার পরবর্তী চলচিত্র ‘খাড়া’ নির্মান করব।

সানি লিওনির অভিনয়ের প্রসংশা করে ফারুকী নিজের অবস্থান তুলে ধরে বলেন, তার অভিনয় দেখলে আমার অবস্থান দৃড় হয়ে যায়।


সানি লিওনির মন জয়ের চেস্টায় ফারুকী

সানি লিওনির মন জয়ের জন্য ইনডিয়ায় একটি দুই সপ্তাহের প্রশিক্ষন কোর্স সমাপ্ত করার কথা জানিয়ে ফারুকী বলেন, বিশ্ব বিখ্যেত চলচিত্রকার মহেশ ভাট এই কোর্সটি পরিচালনা করেছেন। তার নিকট হতে সানি লিওনি পটানর ১০১টি কায়দা আমি শিখিয়া লইছি। আশা করি বিফল হব না।

এই ১০১টি কায়দার কথা জানতে চাইলে ফারুকী হাসতে হাসতে বলেন, ১৪টি দিন ইনডিয়ায় মশা মাছির কামড় খাইয়া, শাক বুট দিয়া রুটি চাবাইয়া কোর্স শেষ করছি। আর ১০১টি কায়দা আমি আপনাকে বলিয়া দিব? কখনই না। শুধু একটি কায়দার কথা বলতে পারি। মহেশ ভাট আমাদিগকে বলছে, মহেশ নামটি সানি লিওনি বড় পছন্দ করে। যার নাম মহেশ, তার সব কথায় সে রাজি হইয়া যায়। তাই আমি আমার নামটি মস্তফা সরয়ার ফারুকী হতে পরিবর্তন করিয়া মহেশতফা সরয়ার ফারুকী বানাব।


সিনা চহানের সংগে ফারুকীর বিরধ

অভিনেত্রী, মডেল ও উপস্থাপিকা সিনা চহানের সংগে বিরধের কথা তুলে ধরে ফারুকী বলেন, সিনা চহানরে দিয়া আর পুষাইতেছে না। চাহিদা অনুযায়ী সে সরবরাহ করতে পারে না। তাই কিছু টেকাটুকা বেশী খরচ করিয়া হইলেও আমি সানি লিওনিকেই লইয়া আসব। সিনা চহানের স্থান কৃকেটের মাঠে, কদাপি সিনেমার হাটে কিংবা ডিরেকটরের খাটে নহে।

হাসতে হাসতে মহেশতফা ফারুকী বলেন, সিনা নহে, সানি। পু।

November 12, 2013

‘চলচিত্রের ইউনূস’ খেতাবে ভুষিত হলেন সানি লিওনি

বিনদন মতিবেদক

মালয়েশিয়ার প্রধান মন্ত্রী নাজেব রাজ্জাক কতৃক সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির প্রতিষ্ঠাতা আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক কায়েদে নোবেল ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরীর ‘অর্থনীতীর সানি লিওনি’ খেতাব লাভের দুই দিনের মাথায় হলিউড কতৃক ‘চলচিত্রের ইউনূস’ খেতাবে ভুষিত হলেন পৃথীবির সর্বাপেক্ষা বিখ্যেত ও হট অভিনেত্রী সানি লিওনি।

সোমবার হলিউডে এক বর্নাঢ্য অনুষ্ঠানে সানি লিওনিকে এ খেতাবে ভুষিত করে হলিউড কতৃপক্ষ।

‘টিনা এন্ড লল’ চলচিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে অংগ প্রত্যংগে ষ্টান্টমেনের গুতু খেয়ে মৃদু আহত হন সানি লিওনি। কিন্তু হাসপাতালের বেডে শুয়েই তিনি মুঠোফোনে এই সুসংবাদ পান। হলিউডের সাধারন সম্পাদক টম ক্রুজ এক খুদে বার্তায় তাকে জানান, কংগ্রেচুলেশন। তুমি ‘চলচিত্রের ইউনূস’ খেতাবে ভুষিত হয়েছে। জলদি হলিউড আস। চুমা।


পুরস্কার হাতে ‘চলচিত্রের ইউনূস’

হলিউডে অনুষ্ঠানে পুরস্কার হাতে নিয়ে আবেগে কেদে ফেলেন সানি লিওনি।

সানি লিওনির হাতে পুরস্কার তুলে দিয়ে হলিউডের সভাপতি জর্জ ক্লুনি বলেন, সানি লিওনিকে ‘চলচিত্রের ইউনূস’ খেতাবে ভুষিত করতে পেরে আমি গর্ভ অনুভব করছি।

আবেগঘন বক্তিতায় জর্জ ক্লুনি বলেন, কায়েদে নোবেল ড. ইউনূস বাবুনগরী যেমন অর্থনীতী ও রাজনীতীর ময়দানে ড্রামা, উত্তেজনা ও শান্তিকে এক সুতায় গেথেছেন, তেমনি চলচিত্রের ময়দানে সানিও উত্তেজনা ও শান্তিকে এক সুতায় গেথেছে। ইউনূস লক্ষ লক্ষ গরিবের হাতে ধন তুলে দিয়েছেন। একই কাম সানিও করেছেন। ইউনূসের কারনে উত্তেজনা পুর্ন বাংলাদেশে নেমে এসেছে শান্তির ফোটা। সানি লিওনির কারনেও অনুরুপ ঘটেছে। ইউনূসকে নিয়ে কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান আজমী উত্তেজিত না হলে শান্তি পায় না। সানির ক্ষেত্রেও তেমনটি বলা যায়। পৃথীবির ছেলে বুড়ু সকলেই ইউনূসকে চিনে, তার কাছে দুদন্ড শান্তি খুজে। তেমনি তারা সানিকেও চিনে, তবে তার কাছে শান্তি খুজে এক দন্ডে। অসহায় গরিব দুখী ক্ষুদা পেটে আধ ঘুমে সপ্নে দেখে, ইউনূস তাদের অভয় দিয়ে বলতেছেন, আই এম কামিং মাই চাইল্ড। একই ভাবে তারা সানিকেও সপ্নে বলতে দেখে, আই এম কামিং বেবি। তাই সানিকে ‘চলচিত্রের ইউনূস’ খেতাবে ভুষিত না করলেই অন্যায় হবে।

পুরস্কার হাতে কাদতে কাদতে সানি লিওনি বলেন, সালাম নমস্তে।

%d bloggers like this: