Archive for September, 2012

September 30, 2012

অনলাইন নীতিমালাকে স্বাগত জানালেন বিদিশা

নিজস্ব মতিবেদক

অনলাইনের টুটি চেপে ধরার সরকারী পরিকল্পনাকে স্বাগত জানিয়েছেন সাবেক স্বৈরাচার ও পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রাক্তন স্ত্রী ও কলামিষ্ট বিদিশা।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বিদিশা বলেন, সরকার অনলাইন নিয়ন্ত্রনের যে পরিকল্পনা করছে, তাকে আমি স্বাগত জানাই।

বিদিশা বলেন, বিজয় টেবলেট আবিষ্কারের পর থেকে পল্লীবন্ধু এরশাদ সর্বদা অনলাইনে থাকেন। তিনি এখন প্রয়োজনে কঠর হতে পারেন। কিন্তু এখন তিনি যতই দশ ফোঁড় দেন না কেন, সময় মত তিনি এক ফোঁড়ও দিতে পারেন নাই। আমি যখন তার স্ত্রী ছিলাম তখন বিজয় টেবলেট ছিল না। এরশাদ অফলাইনেই সময় কাটাতেন। আর বলতেন গেট আপ বয় গেট আপ।

আবেগঘন কণ্ঠে বিদিশা বলেন, এখন এরশাদ অনলাইনে থাকেন। এতে লাভ হয় শুধু মুন্নী সাহার। তাই অনলাইন নিয়ন্ত্রনে সরকারের পরিকল্পনাকে আমি স্বাগত জানাই।

বিদিশা ইউটিউব বন্ধ করায় সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে এরশাদের প্রতি ইংগিত করে বলেন, একটি বিশেষ ইউটিউব এখনও সক্রিয়। এই অভিশপ্ত ইউটিউবটিকে পাকাপাকি ভাবে নিষ্ক্রিয় করতে হবে।

বিদিশা ইউটিউবের পাশাপাশি বিজয় টেবলেট নিষিদ্ধ করার দাবী জানিয়ে বলেন, বিজয় টেবলেট সমাজে অশান্তি বয়ে আনছে।

বিদিশার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার ভাঁড়প্রাপ্ত নায়েবে আমীর মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, সরকার এখন মানুষের অনলাইনগুনো ধরে টানছে। তারা তলোয়াড়ের এক কোপে মানুষের অনলাইন কেটে ফেলতে চায়। কিন্তু সরকারকে সে সুযোগ দেয়া হবে না। মানুষের অনলাইনের অধিকার নিয়ে ছিনিমিনি সরকারকে খেলতে দেয়া হবে না।

অনলাইনের হেফাজত করার আহ্বান জানিয়ে সারা দেশের পুরুষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, অনলাইনে আসুন।

September 30, 2012

নবীকে বেংগ করার প্রতিবাদে আমিনীর ফ্লেশ মব

নিজস্ব মতিবেদক

ইসলামের নবী হযরত মুহম্মদ (সাঃ)কে বেংগ করে নির্মিত চলচ্চিত্র ও কার্টুনের প্রতিবাদে বাইতুল মকাররম মসজিদের সামনে জোহরের নামাজের পর ফ্লেশ মবের নেতৃত্ব দেন উপমহাদেশের বিখ্যেত ইসলামী চিন্তাবীদ ও ইসলামী ঐক্যজোটের একাংশের নেতা গৃহবন্দী মুফতি ফজলুল হক আমিনী।

লাঠি ও রামদা হাতে মিছিল করার পরিকল্পনা থাকলেও পুলিশের বাধার কারনে আমিনীর মিছিল স্থগিত হয়ে যায়।

এর তাতক্ষনিক প্রতিবাদে আমিনী তার মাদ্রাসার ছাত্রদের পরিবেশিত সংগীত ওপ্পা গাংনাম ষ্টাইলের সাথে নৃত্য পরিবেশন করে অভিনব প্রতিবাদ শুরু করেন।

এ সময় আমিনীর গাংনাম ষ্টাইল দেখার জন্য হাজার হাজার উৎসুক জনতা রাস্তায় ভিড় করে।

নবীকে বেংগ করে নির্মিত চলচ্চিত্রের জন্য হিলারি রডহাম ক্লিনটনকে দায়ী করে আমিনী আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, হেই সেক্সী লেডী।

September 28, 2012

হিনা রব্বানি খারের মায়ের সংগে প্রনয় সম্পর্ক স্থাপনের চিন্তা করছেন জারদারি

ইসলামাবাদ মতিবেদক

পুত্র বিলাওয়াল ভুট্টো ও পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিনা রব্বানি খারের মধ্যে চলমান উদ্দাম প্রেম লীলা নিয়ে বিব্রত পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আসিফ জারদারি, যিনি মিস্টার টেন পারসেন্ট নামে সুপরিচিত।

এক সংবাদ সম্মেলনে আসিফ জারদারি বলেন, আমি একটি নিমক হারাম আওলাদ পয়দা করেছি। বিলাওয়াল ভুট্টো একটি অভিশাপ।

আসিফ জারদারি বলেন, আমার ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টোকে আমি ছুটকাল থেকেই অপছন্দ করি। আমি তার নাম রাখলাম বিলাওয়াল জারদারি, কিন্তু সে এমনই একটি খানকির পুলা যে সে নিজেকে বিলাওয়াল ভুট্টো বলে পরিচয় দেয়।

আবেগঘন কণ্ঠে জারদারি বলেন, আমি তাকে এ নিয়ে শাসন করতে গেলে সে ডিএনএ পরীক্ষার হুমকি দেয়।


ভালবাসা পুড়ায় যে মন, পুড়ে না তো অংগ

জারদারি আরও বলেন, বিলাওয়াল ভুট্টো তার মা বেনজীর ভুট্টোর নেয় লম্পট। সে রাষ্ট্রপতির প্রাসাদে মাগনা থাকে, খায়, পায়খানা করে। ইদানীং সে মাগনা চুদাচুদিও করে। সেদিন আমি তাকে আমার পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিনা রব্বানি খারের সংগে অন্তরংগ অবস্থায় রংগ করার সময় হাতে নাতে ধরেছি।

জারদারি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি তাকে বললাম, একলাই খাইবা, আমারে দিবা না? সে তখন আমার সাথে কাজিয়া ফেসাদ শুরু করল।

কান্নাবিজড়িত কণ্ঠে জারদারি বললেন, সবাই আমাকে মিস্টার টেন পারসেন্ট ডাকে। আমি বিলাওয়াল ভুট্টোর কাছে রাষ্ট্রপতির প্রাসাদের অভ্যন্তরে চুদাচুদির খরচ বাবদ হিনা রব্বানি খারের টেন পারসেন্ট দাবী করলে সে আমাকে পিপিপির প্রেসিডেন্ট পদ থেকে পদত্যেগের ভয় দেখায়।

উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জারদারি বলেন, বিলাওয়াল ভুট্টোর কারনে আজ ইসলামাবাদ ও কারওয়ানবাজারে কারও চোখে ঘুম নাই। সে হিনা রব্বানি খারকে আমার নাকের সামনে ছারখার করছে অথচ আমি কিছুই করতে পারছি না। আমার মান ইজ্জত সব মিট্টি মে লুটা দিয়া বেহেনচুদ।

হিনা রব্বানি খারের মা টিনা রব্বানি খারের সাথে প্রনয় সম্পর্ক স্থাপনের চিন্তা করছেন জানিয়ে জারদারি বলেন, আমিও এখন মাঠে নামব। কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর ও উপসর্দার আমিষুলের সংগে আমার আলাপ হয়েছে, তারা আমাকে কারওয়ানবাজারের বাড়তি কাটতির টেন পারসেন্ট দিতে কবুল বলেছে।

বৃদ্ধ বয়সে এসে পুত্রের প্রেমিকার মায়ের সংগে প্রনয় করা সঠিক হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে জারদারি আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, বিল্লাল চুদলে ভালবাসা, আমি চুদলে পাপ?

September 27, 2012

সানি লিওনেকে ভাড়া দেওয়ার জন্য মুম্বাই শহরে বাড়ি কিনবেন মতিচুর

নিজস্ব মতিবেদক

বিশ্ব বিখ্যেত পর্ন তারকা ও হিন্দী চলচ্চিত্রে নতুন শেনশেশন সানি লিওনে মুম্বাই শহরে কোথাও বাড়ি ভাড়া পাচ্ছেন না। তিনি ও তার স্বামী ডেনিয়েল ওয়েবার বাড়ি ভাড়া করতে দুয়ারে দুয়ারে ফিরছেন। কিন্তু মুম্বাই শহরের কোন বাড়িওয়ালা তাদের বাড়ি ভাড়া দিতে রাজি নয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাড়িওয়ালা বলেন, আমি নিয়মিত সানি লিওনের পর্ন চলচ্চিত্র দেখে ভার লাঘব করি। সে যদি আমার তিনতলার ফ্লেট ভাড়া নিয়ে বাস করা শুরু করে, এক সময় সে ঘর কা মুরগী ডাল বরাবর হয়ে যাবে। আমি তখন কার চলচ্চিত্র দেখে হালকা হব?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক বাড়িওয়ালা বলেন, আমি সানি লিওনেকে বাড়ি ভাড়া দিতে চাই। কিন্তু আমার বউ একটি অভিশাপ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক বাড়িওয়ালা বলেন, সানি লিওনে বিবাহিত না হলে আমি তাকে স্বল্প মুল্যে বাড়ি ভাড়া দিতাম। কিন্তু সে কোথা হতে ডেনিয়েল ওয়েবার নামক এক পালোয়ানকে যোগাড় করেছে। ঐসব ডেনিয়েল সংগে নিয়ে সে মুম্বাইতে বাড়ি পাবে না।

দুখিনী সানি আপাতত হোটেলেই বাস করছেন।

সানি লিওনের দুঃখ ঘুচাতে এগিয়ে এসেছেন কারওয়ানবাজারের সর্দার মতিচুর রহমান। তিনি কয়েক দিনের মধ্যেই মুম্বাই শহরে একটি বাড়ি খরিদ করবেন। মতিবেদকের সংগে অন্তরংগ আলাপে মতিচুর রহমান বলেন, কারওয়ানবাজারের মালিক লতিফুর রহমানের শেলক অনুপ চুতিয়া মুম্বাই শহরে দশ বারখান বাড়ির মালিক। কিন্তু সে বাংলাদেশের জেলে পুটু পচাচ্ছে। তার বাড়িগুলির একটি বাড়ি আমি সানিকে ভাড়া দিব।

মতিচুর আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, সানি ও আমার সম্পর্ক ভাড়ার মাধ্যমে। আবারও বলছি, ভাড়ার মাধ্যমে। না না না, ভাড়ার মাধ্যমে। যাহ আপনি বড় দুষ্ট।

%d bloggers like this: