Archive for March, 2011

March 31, 2011

চট্টগ্রামের নেতাদের নাপাক বললেন মোদাচ্ছের

চট্টগ্রাম মতিনিধি

পুটু মারামারি বাদ দিয়ে চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগ নেতাদের ‘ওযু-গোসল’ করে ‘এক লাইনে’ আসতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সৈয়দ জে আর মেদাচ্ছের আলী।

তিনি বলেন, এক লাইনে না দাঁড়িয়ে আগু পিছু করে দাঁড়ালে সামনের জনের পুটু পিছনের জন মারবে। মারবেই। চট্টগ্রামের মানুষের এটা একটা বদ খাছলত। তাই এক লাইনে দাঁড়ানো জরুরী।

চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগে সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি পক্ষ। আর তাদের বিরোধী পক্ষের নেতৃত্বে রয়েছেন সহ-সভাপতি সাংসদ নুরুল ইসলাম বিএসসি ও যুগ্ম সম্পাদক আফসারুল আমীন।

নগর আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসনের পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য উপদেষ্টা বলেন, “আপনারা চারজন নেতা থাকলে চারটা গ্রুপ করেন। পরে আবার সুবিধা বুঝে দুই গ্রুপ করেন। এইসব গেংবেং বাদ দিয়ে এক লাইনে চলে আসুন। চট্টগ্রামের ফুয়া হলেই এসব করতে হবে?”

তিনি নগরের নেতাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, একে অন্যের পুটু মারার চিন্তার চেয়ে বড় দুর্ভাগ্য আর কিছুই হতে পারে না। এর সুযোগ অন্যরা নেবে।

বিরোধী দলের প্রতি ইঙ্গিত করে মোদাচ্ছের বলেন, “আমরা ভুল করলেও ওরা করবে না। তখন সবাই পুটু মারা খাব।”

March 31, 2011

শর্তসাপেক্ষে আলীমের জামিন

ঢাকা, মার্চ ৩১ (মতিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) — একাত্তরে রাজাকারি করার অপরাধে গ্রেপ্তার জিয়াউর রহমানের সাবেক মন্ত্রী আবদুল আলীমকে গাজীপুর কারাগার থেকে আজ বৃহস্পতিবার মিন্টো রোডের ডিবি অফিসে নিয়ে আসা হয়েছে। ভোর ৫ টা ২০ মিনিটে তাকে কর্তব্যরত ডিবি অফিসারের সামনে হাজির করা হয়। সেখানে কয়েকবার পুটু মারার পর তাকে আদালতে পাঠানো হয়। গ্রেপ্তারের পর রাজাকার আলীমের জামিনের আবদনের শুনানি ৩১ মার্চ পর্যন্ত মুলতবি রেখে তাকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়। এছাড়াও তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনমাফিক পুটু মারতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়।

আজ সকাল ১০ টায় রাজাকার আলীমকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সামনে হাজির করার কথা থাকলেও ফাটা পুটু জোড়া দিতে দেরি হবার কারণে তাকে হাজির করতে ১ঘন্টা দেরি হয়। পুটুর দুরবস্থার কথা বিবেচনা করে আজ বৃহস্পতিবার ট্রাইব্যুনাল এ বিএনপি নেতার জামিন মঞ্জুর করে। তার জামিনের শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে – আলীমকে ঢাকায় তার ছেলের বাড়িতে থাকতে হবে। কোন ধরনের রাজনৈতিক তৎপরতায় অংশ নিতে পারবে না। একাত্তরে নির্যাতিত কেউ কিংবা ক্ষতিগ্রস্ত কোন পরিাবারের কারো সাথে যোগাযোগ করা যাবে না।

পুটু বিধ্বস্ত রাজাকার আলীম

এদিকে বিরোধীদল বিএনপির জেষ্ঠ্য যুগ্ম মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মতিকণ্ঠকে বলেছেন, ‘আলীমকে জামিন  প্রদান বাকশালি সরকারের একটি কৌশল মাত্র। জামিনে বের হওয়া মাত্রই তাকে পূনরায় গ্রেপ্তার করা হবে। মাঝরাতের দিকে  তাকে নিয়ে অস্র উদ্ধারে বের হবে র‍্যাব। আগে থেকে ওঁত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা র‍্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি চালালে আত্মরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালাবে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে আলীম পালাতে চেষ্টা করলে ক্রসফায়ারে পুটুতে গুলি খেয়ে উপুড় হয়ে পড়ে মারা যাবে।

উল্লেখ্য, আলীমের আগে একই অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়ে আছেন বিএনপির সংসদ সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। জানা গেছে পুটু মারা খেতে খেতে মাদারফাকার সাকার পুটু ফেটে রক্ত ঝরছে। যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোটের অন্যতম শরিক মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ পর্যায়ের পাঁচ নেতাও এখন কারাবন্দি। তাদের পুটুর অবস্থাও বেশি সুবিধার নয় বলে জানতে পেরেছেন আমাদের কারাগার মতিনিধি।

March 31, 2011

ভারতের নাগরিকত্ব দাবি করলেন আফ্রিদি

কূটনৈতিক মতিবেদক

গতকাল ভারতের মহালিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ক্রিকেট সেমি ফাইনালে ভারত-পাকিস্তান লড়াইয়ের পর খেলায় হেরে গিয়ে ভারতের নাগরিকত্ব দাবি করলেন পাকিস্তান দলের সেক্সি অধিনায়ক বুম বুম শহীদ আফ্রিদি।

ষ্টেডিয়াম ভর্তি দর্শকের সামনে দুই হাত ছড়িয়ে মাঠে উপস্থিত ভারতের প্রধান মন্ত্রী মনমোহন সিংহের কাছে এই আবেদন জানান আফ্রিদি।

তোমাদের পাশে এসে বিপদের সাথি হতে আজকের চেষ্টা আমার

ম্যাচ পরবর্তী সাক্ষাতকারে আফ্রিদি বলেন, তিনি আর পাকিস্তানের হয়ে খেলতে চান না। ভারতের হয়ে ভারতীয় হিসেবে পরবর্তী বিশ্বকাপ খেলতে চান এই নন্দিত অলরাউন্ডার।

অশ্রু সজল কণ্ঠে আফ্রিদি বলেন, মে পাকিস্তান কে লিয়ে আর নাহি খেলেগা। উন লোগ বহুত বেহেন*ুদ হায়।

আফ্রিদি বলেন, বিরাট কোহলির মত আবাল খেলোয়াড়ের বদলে তার মত একজন অলরাউন্ডার থাকলে ভারত আগামী সব ম্যাচেই জিতবে ইনশা আল্লাহ। তিনি ক্যাপ্টেন পদ নিয়ে ধোনির সাথেও কোন পুটু মারামারিতে যাবেন না বলে অঙ্গীকার করেন।

মুলামুলি করছেন গিলানি ও মনমোহন

মাঠে উপস্থিত মনমোহন সিংহ ও পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রী গিলানি এ নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলাপ করেছেন বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা।

আফ্রিদির এহেন আচরনে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমদ ও ইসলামী ঐক্যজোটের প্রধান মুফতি আমিনী।

March 31, 2011

কাঁদালেন আফ্রিদি

উটপোঁদ শুভ্র, হারেক মাহমুদ ও পাকিতারিফুল ইসলাম: দ্বিতীয় আলো, ক্রীড়া ডেস্ক

আঘাতটা এত আকস্মিক ও অসহনীয় হবে, কে ভাবতে পেরেছিল।

কাঁদো, বাংপাকিরা, কাঁদো। দ্বিতীয় আলো সব সময় তোমাদের পাশে ছিল এবং এখনো থাকবে। দেশে এখন এতো বাংপাকি, তার পেছনে আমাদের অবদান কি কেউ অস্বীকার করবে? আমাদের খেলার পাতা যেন পাকিপ্রেমলীলার মাঠ। আমরা দ্বিতীয় আলোর পক্ষ থেকে পাকি-দলকে বৈচিত্র্যময় মুখকামসেবা দিয়ে তাদেরকে উদ্দীপ্ত ও উজ্জীবিত করার চেষ্টা করে এসেছি, আমাদের ক্রীড়া বিভাগের দু’জন তিনদিন রোজা রেখেছে পাকি-বিজয় কামনা করে, আরও দু’জন শুধু রোজাই নয়, খেলা চলার সময় নফল নামাজও পড়েছে। তার বিশ্বাস, নামাজ পড়লে পাকি উইকেট পড়বে না। তাই খেলার অধিকাংশ সময় তারা বসে ছিল জায়নামাজে। ওদিকে ফেসবুকে কয়েক লক্ষ বাংপাকি প্রার্থনার ব্যবস্থা করেছিল। আল্লাহপাক আমাদের কারোর মোনাজাত এবার পূর্ণ করেননি। ইয়া পারওয়ারদিগার, তোমার লীলা বোঝা দায়।

আফ্রিদির ভবিষ্যৎ পেশা

আমার ক্রীড়াবিভাগ এখন শোকাচ্ছন্ন। কয়েকজন হাউমাউ করে কেঁদেছে। সবচেয়ে কষ্ট পেয়েছে পাকিতারিফুল ইসলাম। সে শ্রীলঙ্কায় গিয়ে পাকিদের নিবিড় সান্নিধ্যে কাটিয়ে এসেছে কত মধুর মুহূর্ত, তার উপচে পড়া পাকিপ্রেমরসে পত্রিকার রঙিন ও সচিত্র পাতা টইটুম্বুর হয়ে গেছে। আজ তার দিকে তাকানো যাচ্ছে না।

কিন্তু এই দুঃখ তো চিরকালিন নয়। অশ্রু মুছে আমরা আবার শক্তি সঞ্চয় করে কলম ধরব পাকিবন্দনায়, পাকি ক্রিকেটারদেরকে মুখকাম সেবাদানে বিমুখ হব না কখনো। বাংপাকি বন্ধুরা, আসুন আমরা পাকি-ক্রিকেটের এই দুঃসময়ে তাদের পাশে দাঁড়াই। যা-ই ঘটুক না কেন, আমরা পাকিপ্রেমে থাকবো অটল, অবিচল। তাই তো কবি গেয়েছেন: যতদিন ধরে এই দুনিয়ায় খেলবে ক্রিকেট পাকি / তাদের চাইতে পেয়ারের দল হতে পারে কভু নাকি!

%d bloggers like this: