Archive for July 8th, 2013

July 8, 2013

মিশর লাইনে এসেছে: বাবুনগরী

নিজস্ব মতিবেদক

জাতিসংঘ পরমানু শক্তি কমিশনের সাবেক প্রধান ও শান্তিতে নোবেল বিজয়ী আল বারুদীকে মিশরের অন্তর্বর্তী কালীন প্রেসিডেন্ট পদে অভিষিক্ত হওয়ার জন্য সাবাশি জানিয়ে সদ্য গঠিত রাজনৈতিক দল বাবুনাগরিক শক্তির আমীর, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী অর্থনীতীবীদ ও গ্রামীন বেংকের বিতাড়িত মালিক ড. মুহম্মদ ইউনূস বাবুনগরী বলেছেন, মিশর লাইনে এসেছে।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বাবুনগরী এ কথা বলেন।

কয়েক দিন পুর্বে মিশরের সেনা প্রধান জেনারেল আবদুল ফাত্তাহ আল শিশি নির্বাচিত রাস্ট্র পতি মোহাম্মদ মুরসিকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসেন। এরই ধারাবাহিকতায় শান্তিতে নোবেল বিজয়ী আল বারুদী অন্তর্বর্তী কালীন প্রেসিডেন্ট পদে অভিষিক্ত হলেন।

ইউনূস বাবুনগরী বলেন, পৃথীবিতে নানা সময়ে নানা শিশ্টেম চালু হয়েছে। কিছু শিশ্টেম কাজ করে টিকে গেছে, কিছু শিশ্টেম কাজ না করে বিলুপ্ত হয়েছে। কিছু শিশ্টেমওয়ালা শিশ্টেমের সংগে টিকে গেছেন, কিছু শিশ্টেমওয়ালা শিশ্টেমের সংগে বিলুপ্ত হয়েছেন। সবই শিশ্টেমের বেপার।

মিশর, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের উদাহরন দিয়ে বাবুনগরী বলেন, এইসব দেশে গনতন্ত্র আপনা আপনি টিকতে পারে না। গনতন্ত্রকে ক্ষুদ্র ঋন দিয়া দিয়া টিকাইয়া রাখতে হয়। কিন্তু এইভাবে ত একটা দেশ চলতে পারে না। কারন এইভাবে চালাইতে গেলে এক সময় দেশের চাল খুলে ক্ষুদ্র ঋন দাতাকে দিয়া দিতে হবে।

আবেগঘন কণ্ঠে বাবুনগরী বলেন, সুস্ঠুভাবে দেশ চালানর জন্য প্রয়জন তিনটি জিনিস। হাবেল, কাবেল ও নোবেল। হাবেল কাম করবে, কাবেল কাম করাবে এবং নোবেল শান্তি বজায় রাখবে। মিশরে হাবেলরা শুধু হাবেলের কামই নহে, কাবেল ও নোবেলের কামও দখল করিয়া লইছিল। এভাবে দেশ চলতে পারে না। তাই হাবেলকে হটাইয়া কাবেল জেনারেল আল শিশি ও নোবেল আল বারুদী এখন তখতে বসিয়াছেন। এখন মিশর লাইনে এসেছে। এখন এভাবেই চলতে হবে।

একটি দেশের প্রতি ইংগিত করে ইউনূস বলেন, পৃথীবির একটি দেশে বাকশালী দুঃশাসন চলছে। সেখানে কাবেলদের কেন্টনমেন্টে বন্দী করে রাখা হয়, কুন ক্ষমতা দেওয়া হয় না। তারা শুধু মাঝে মধ্যে ভাংগা বিলডিং হতে মানুষ টানিয়া বাহির করে আর বন্যার পর গম বিতরন করে। সে দেশে নোবেলকে শান্তিতে থাকতে দেওয়া হয় না, বাকশালের বেটীরা তাকে ঘেটী ধরে খেদাইয়া দেয়। দেশটির নাম আমি বলব না, কিন্তু শুধু একটি কথাই বলতে চাই, সে দেশেও কাবেল ও নোবেলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

হাবেলদের চেলেঞ্জ দিয়ে বাবুনগরী বলেন, যুগে যুগে কাবেলরা হাবেলদের একাই টাইট দিয়াছে। এখন সাথে নোবেলও আছে। সাবধান শেখের বেটী।

July 8, 2013

টক মিষ্টি জেনানাগন

নিজস্ব মতিবেদক

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা আহমদ শফি সম্প্রতি নারি জাতীকে ভালবেসে তেতুলের সাথে তুলনা দেওয়ায় বিভিন্ন মহল হিংসা ও ইর্ষা মাখান টক-ঝাল-মিষ্টি প্রতিবাদ জানিয়েছে। এ বেপারে মতিকন্ঠ মতিবেদক তার সাথে সাখ্যাত করে তার মতামত জানতে চায়।

লালাঘন কন্ঠে তিনি বলেন, নারি হলো ভোগের সামগ্রি। ভোগ মানে খাওয়া। অর্থাত নারি হইল গিয়া খাদ্য। তাই নারিরে খাওনের সাথে তুলনা করলে হুয়াটস দি প্রব্লেম? আমার আগে কত জনই তো এই তুলনা করছে। খেতিমান মেশিনচালক দেলুয়ার হুসেন চাঁইদি একদা বলেছিলেন, জেনানারা কলার নেয়। তখন তো কেউ প্রতিবাদ করে নাই। আবার দেখেন, ইছলামি দেশগুলায় মেয়েদিগকে ললিপপ ও কেন্ডির সহিত তুলনা করা হয়েছে। ইহা হইতে বুঝা যায়, নারিগন একাধারে তেতুলের মত টক ও কেন্ডি-ললিপপের নেয় মিষ্টি হইতে পারে।

তেতুলের প্রসঙ্গ ওঠায় উত্যেজিত হয়ে কামঘন কন্ঠে তিনি আরো বলেন, তেতুল লুভনিয় খাদ্য। এই বয়সেও তেতুল তথা রমনী দেখলে আমার দ্বীমুখি লালাপাত হয়। আমি লালাবান লাল্লামা শফি। আসলে আমার বুড়া বয়সের ভেলকির কথা শোনেই ইম্পুটেন্ট মরদগুলা জ্বলে পুরে মরতেছে। যারা তেতুলের প্রক্রিত সমঝদার, তারা আমার সাথে একমত। এই যেমন, তেতুলের স্বাদ এরশাদ ভাল জানে। আমার সাথে তার মিলে। তাই সে আমাদের ঢাকা সম্মেলনে ছাগু হাগু-মুতার দাইত্য নিয়েছিল। সে, আমি আমরা হইলাম লালাপুরুষ। আর শুষ্কলালা ইম্পুটেন্টগুলার জন্যে শান্তনা হিসাবে আছে প্রবাদ বাক্য, তেতুল ফল টক।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ি, হেফাজতের ঘাটি অচিরেই টেকনাফ সংলগ্ন অনচল ছেড়ে তেতুলিয়ায় স্থানান্তর করা হবে।

%d bloggers like this: