Archive for March 6th, 2013

March 6, 2013

মাদারফাকার নহে, ব্রাদারফাকার: সাকা

নিজস্ব মতিবেদক

‘মাদারফাকার নহে, আমি ব্রাদারফাকার।’

বলেছেন বৃহত্তর জামায়াতে ইসলামীর বিএনপি শাখার জল্লাদে আমীর সমকামী মাদারফাকার সাকা।

আজ কাশিমপুর কারাগারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন চট্টগ্রাম নিবাসী প্রবীন সমকামী রাজাকার সাকা।

সাকা বলেন, সরকার আমায় দুই বছর ধরে জেলে আটক রেখেছে। কিন্তু গরম জিনিস নরম করার কুন উপায় রাখেনি। আমি একাধিক বার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীদের মুঠোফোন মেরে বলেছি, ছেলে হোক মেয়ে হোক একটা কিছু পাঠাও। অপু বিশ্বাস এবং/অথবা শাকিব খানকে পাঠাতে বলেছি, তারা পাত্তাই দেয় না। এম এ জলিল অনন্তকে পাঠাতে বললাম, সরকার শুনল না। বাধ্য হয়ে আলাল নামে একটি কিশোরকে আমি ফুসলিয়ে নিজের খাস কামরায় আনি।

কারাগারে সেক্স করে ক্লান্ত সাকা

পরিস্থিতি বেখ্যা করে সাকা বলেন, আমার নামে মামলা দিয়ে ঘন ঘন আমায় কাশিমপুর হতে ঢাকায় নিয়ে যায়। সারা দিন পরিশ্রম শেষে কারাগারে ফিরে আমার শুধু সেক্স উঠে। তখন আমি আলালকে বললাম, যদি আমার সাথে সেক্স করিস তাহলে তোর জামিন করিয়ে দিব। আলাল তার রোজগার হালাল করার জন্য আমার সংগে সেক্স করতে সম্মত হয়।

আবেগঘন কণ্ঠে সাকা বলেন, জেলে আমি একা আসিনি। আমার মেশিন ও পুটুও সংগে এসেছে। তারাও বন্দী কারাগারে। ডান্ডু সর্বদা গান্ডু খুজে, এটিই প্রকৃতির নিয়ম। তাই আলালের সংগে সেক্স প্রকৃতির ইশারাতেই হচ্ছে। চট্টগ্রাম প্রকৃতির বাইরে নয়, বরং প্রকৃতিরই অংশ।

সাকা বলেন, জেলের ভিতর সব কয়েদী ভাইয়ের মত। তাই আজ থেকে আমায় আর মাদারফাকার সাকা বলা চলবে না। আমি আজ ব্রাদারফাকার সাকা।

আলালের সংগে যোগাযোগ করা হলে তিনি কাদতে কাদতে মতিবেদককে বলেন, ব্রাদারফাকার সাকার সংগে সেক্স করার কারনে আমি দুঃখিত নই। জেলের ভিতর থাকলে পুরুষে পুরুষে একটু আধটু চুদাচুদি হয়েই থাকে। কিন্তু সেক্সের পর সাকা ঘন্টার পর ঘন্টা পিলু টক করেন। তিনি আমার বুকে মাথা রেখে ঘেনর ঘেনর ঘেনর ঘেনর করে চট্টগ্রামের ভাষায় কথা বলতে থাকেন। আজ দুইটি বছর ধরে এই ঘেনর ঘেনরের জালায় আমি শান্তিতে ঘুমাতে পারি না। আপনারা জলদি সাকাকে ফাসি দেন। সে একটি অভিশাপ।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আলালকে কারাগারে সাকার কামরা হতে উদ্ধার করা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তার পরিবর্তে সাকা আন্দালিব পার্থকে সম্ভব হলে কাশিমপুরে পাঠাতে সরকারের কাছে আর্জি জানিয়েছেন।

সাকা বলেন, আন্দালিব পার্থ সুইট আছে।

%d bloggers like this: